মটোরোলা থিংকফোন – যা দেখে অনেকেই আফসোস করছে! (কারণ জানুন)

মটোরোলা নিয়ে এসেছে ‘থিংক ফোন’ নামের নতুন এক স্মার্টফোন। এর নস্টালজিক ডিজাইন অত্যন্ত দৃষ্টিনন্দন যা ৯০ এর দশকের আকর্ষণীয় ক্লাসিক আইবিএম সাথে মিলে। এটি মটোরোলার এমন একটি ফোন যা আপনি দুইবার না ভেবেই কিনতে চাইবেন। আপনি যদি মটোরোলা এর অনান্য ফোন এর খবর রাখেন তাহলে বুঝবেন এই ফোনকে নিয়ে আলাদাভাবে কেনো আলোচনা করা হচ্ছে। দুর্ভাগ্যবশত মটোরোলা এই আকর্ষণীয় ও লোভনীয় স্মার্টফোন তৈরী করলেও এটি হয়ত কখনোই একজন ক্রেতা হিসেবে আপনি কিনতে পারবেন না। 

কেনো এই ফোন কেনা যাবেনা?

এমন নয় যে Think Phone শুধুমাত্র চায়নায় পাওয়া যাবে বা এটার শুধু লিমিটেড এডিশনই রয়েছে। এই ফোন একটি কমার্সিয়াল ফোন হওয়ায় সাধারণ দোকানে বা অনলাইনে পাওয়া যাবেনা। জিজ্ঞাসা করা হলে মটোরোলা জানায় যে ভোক্তাগণ এ ফোনের কার্যকারিতা দ্বারা উপকৃত হবে তা জানা সত্ত্বেও এটিকে সাধারণভাবে বিক্রি করার তাদের কোন পরিকল্পনা নেই।

থিংক ফোন এর সবচেয়ে আর্কষণীয় দিক হলো Think Pad ইন্সপায়ারড ডিজাইন। ফোনের পিছনের অংশটি  তৈরি করা হয়েছে কার্বন ফাইবার এবং অ্যালুমিনিয়াম কাঠামো দিয়ে সাথে গরিলা গ্লাস ভিকটাস প্রটেকশন। অনেক ধরনের পরীক্ষার মাধ্যমে একে MIL-STD-810H সার্টিফিকেশন প্রদান করা হয়েছে এছাড়াও এর IP68 ওয়াটার এন্ড ডাস্ট রেজিটেন্স রেটিংও রয়েছে। এটি একটি শক্তিশালী স্মার্টফোন যা ThinkPad ডিজাইনের সাথে মিলে। 

রেডি ফর স্যুটে আপনি কীভাবে আপনার ফোন এবং পিসি একসাথে ব্যবহার করবেন, দ্রুত ফাইল শেয়ার করবেন, ডিভাইসের মধ্যে অ্যাপ স্ট্রিম করবেন, হটস্পট তৈরি করবেন এবং শেয়ার্ড ক্লিপবোর্ড ব্যবহার করবেন তা উন্নত করার বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এছাড়াও আপনি আপনার ফোনের ক্যামেরাকে ল্যাপটপে কানেক্ট করে  ওয়েবক্যাম হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন 

স্পেসিফিকেশন

ThinkPhone এন্ড্রয়েড ভার্সন হলো 13 এবং Motorola চার বছরের সিকিউরিটি আপডেটের সাথে তিন বছরের মেজর অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন আপডেটের প্রতিশ্রুতি জানিয়েছে। ফোনটিতে মটোরোলার থিঙ্কশিল্ড সিকিউরিটি প্ল্যাটফর্ম এবং একটি নতুন ডেডিকেটেড সিকিউরিটি চিপ রয়েছে। ThinkPhone রয়েছে Qualcomm Snapdragon 8+ Gen 1 প্রসেসর এবং 8GB র‍্যাম এবং 256GB স্টোরেজ। ৬.৬-ইঞ্চি 120Hz AMOLED এর স্ক্রিন যার যাতে সেল্ফি ক্যামেরা স্থান পেয়েছে। স্ক্রিনের নীচে, কর্পোরেট ডেটা লক আপ করার জন্য একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও রয়েছে।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

সাথে ফাস্ট ও ওয়্যারলেস চার্জিং এর জন্য রয়েছে ৫০০০মিলিএম্প ব্যাটারি। ক্যামেরা সিস্টেমে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন (OIS), একটি ১৩ মেগাপিক্সেল ওয়াইড-এংগেল লেন্স, একটি ডেপথ ক্যামেরা এবং একটি ৩২মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা সহ একটি ৫০-মেগাপিক্সেলের মেইন ক্যামেরা রয়েছে।

মটোরোলা মোবিলিটি লেনোভোর মালিকানাধীন, যেটি থিঙ্কপ্যাড নামেরও মালিক, যা ২০০৫ সালে আইবিএমের ব্যক্তিগত কম্পিউটার ব্যবসা কিনেছিলো। মটোরোলার থিঙ্কফোন ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ, লাতিন আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং এশিয়ার কিছু অংশে মুক্তি পাবে, তবে শুধুমাত্র কমার্সিয়াল ব্যবহারের জন্য কেনা যাবে।

 মটোরোলার আকর্ষণীয় সব স্মার্টফোনগুলোর  মধ্যে এটি একটি, তবে এই ফোন যে জনসাধারণ কিনতে পারবেনা সে বিষয়টি হতাশাজনক। এই ফোনে মটোরোলা ওয়ান বা মটো জি এর চেয়ে  আরও অনেক ভালো ফিচার আছে। তবে মটোরোলা যেহেতু শুধুমাত্র বিজনেস পার্টনারদের কাছে কমার্সিয়ালভাবে এই ফোন বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাই আপাতত সাধারণ ক্রেতাগণ এই ফোন কিনতে পারছেন না।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,813 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.