ওয়ালটন মোবাইলের দাম ২০২৪

বাজেট রেঞ্জে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন বেশ দারুণ প্রতিযোগিতার সহিত টিকে আছে। দেশের বাজারে ওয়ালটন এর অসংখ্য ফোন পাওয়া যাচ্ছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক বাছাইকৃত কিছু ওয়ালটন মোবাইলের দাম, স্পেসিফিকেশন, ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত। উল্লেখ্য যে, তালিকায় উল্লিখিত কিছু ফোনের প্রসেসর সম্পর্কে জানা যায়নি যার কারণে এই তালিকায় উক্ত ফোনসমূহের প্রসেসরের নাম নেই।

ওয়ালটন নেক্সজি এন৭০ – Walton NEXG N70

ওয়ালটনের নতুন এই ফোনটি আউটলুকের দিক থেকে অত্যন্ত প্রিমিয়াম ও সুন্দর। স্লিম এই ফোনটি হাতে নিলে বাজেট ফোন মনে হবে না কোনভাবেই। কাজেই যারা স্টাইল পছন্দ করেন তারা এই ফোনটি দেখতে পারেন। 

ফোনের সামনে আছে ৬.৬ ইঞ্চির একটি এলসিডি প্যানেল যেখানে ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট এবং ১৮০ হার্টজের টাচ স্যামপ্লিং রেট রয়েছে। ফোনের প্রসেসর দেয়া হয়েছে ইউনিসকের টাইগার টি৬০৬ যা একটি বাজেট চিপ। ফলে দৈনন্দিন কাজগুলো সহজেই করা যাবে ফোনটিতে। র‍্যামও পাবেন মোট ৮ জিবি।

ফোনের পিছনে আছে ৫২ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ। টুকটাক ফটোগ্রাফির জন্য বেশ ভালো একটি ক্যামেরা দেয়া হয়েছে ডিভাইসটিতে। এছাড়া সামনে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা।

ফোনটিতে দেয়া হয়েছে ৫০০০ মিলিএম্পের বিশাল একটি ব্যাটারি। ফলে সহজেই একদিনেরও বেশি ব্যাটারি ব্যাকাপ পাওয়া যায় একবার চার্জ থেকেই। তবে এখানে ফাস্ট চার্জিংয়ের কোন সুবিধা পাবেন না। ফোনের অন্যান্য ফিচারের মধ্যে এফএম রেডিও, সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা ইত্যাদি রয়েছে। স্বল্প বাজেটে বেশ কিছু ভালো ফিচার ও সুন্দর ডিজাইন দিয়ে বাজারে নজর কেড়েছে ফোনটি।

Walton NEXG N70

ওয়ালটন নেক্সজি এন৭০ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৬ ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ ইউনিসক টাইগার টি৬০৬
  • র‍্যামঃ ৮ জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪ জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৫২ মেগাপিক্সেল ডুয়াল ক্যামেরা 
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮ মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০ মিলিএম্প

ওয়ালটন নেক্সজি এন৭০ এর দামঃ ১০,৯৯৯ টাকা

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই১১ – Walton Orbit Y11

Walton Orbit Y11

ওয়ালটনের একদম কম বাজেটের ফোন এটি। জাদের একদম কম বাজেটে বা ব্যাকাপ ফোন দরকার তাদের জন্য ভালো একটি ফোন হতে পারে এটি। খুব কম মূল্যের ফোন হলেও এতে বেশ কিছু ভালো ফিচার রয়েছে। 

ফোনের সামনে রয়েছে ৫ ইঞ্চির একটি এলসিডি প্যানেল। ডিসপ্লের আশেপাশে বেজেল রয়েছে যার ফলে ফোনটিকে বেশ পুরনো মডেলের বলে মনে হয়। তবে এখানে কোয়াড কোরের প্রসেসর ও ২ জিবি র‍্যাম রয়েছে। অ্যান্ড্রয়েড গো অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার হওয়ায় দৈনন্দিন কাজগুলো করতে সমস্যায় পড়তে হয় না। ফোনের পিছনে ৫ মেগাপিক্সেল এবং সামনে ২ মেগাপিক্সেলের একটি ক্যামেরা পাওয়া যাবে। চলনসই ছবি তোলা যাবে এই ক্যামেরা থেকে।

ফোনের ব্যাটারি ২৫০০ মিলিএম্পের। এটি কম মনে হলেও এই কম শক্তিশালী ফোনকে সহজেই একদিন ব্যাকাপ দিতে পারবে। ফলে ব্যাটারি লাইফ নিয়ে সমস্যায় পড়তে হবে না। এছাড়া বাড়তি ফিচার হিসেবে এখানে ফেস আনলক সুবিধা, ৩.৫ মিমি অডিও পোর্ট, ডুয়াল সিম ৪জি ইত্যাদি পাওয়া যাবে। দুটি রঙে ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে। ব্যাকাপ ফোন হিসেবে নিতে চাইলে এই ফোনটিকে রাখতে পারেন পছন্দের তালিকায়।

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই১১ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৫ ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক কোয়াড কোর
  • র‍্যামঃ ২ জিবি
  • স্টোরেজঃ ১৬ জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা 
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ২ মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ২৫০০ মিলিএম্প

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই১১ এর দামঃ ৫,৪৭৫ টাকা

ওয়ালটন নেক্সজি এন৬ – Walton NEXG N6

NexG N6

এ বছর বাজারে ওয়ালটন তাদের নতুন জেনারেশনের ফোন হিসেবে নিয়ে এসেছে নেক্সজি এন৬ ফোনটি। মধ্যম বাজেটের এই ফোনে আছে নতুন ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ৬.৬ ইঞ্চি এলসিডি ডিসপ্লে। এছাড়া গেমিংয়ে ভালো সুবিধা দিতে আছে ১৮০ হার্টজের টাচ স্যামপ্লিং রেটও। পারফর্মেন্সের জন্য দেয়া হয়েছে অক্টাকোরের একটি প্রসেসর। ফোনের র‍্যাম সফটওয়্যারের সুবিধার সাহায্যে পাওয়া যাবে ৮ জিবি পর্যন্ত। এছাড়া ১২৮ জিবি স্টোরেজ সুবিধাও থাকবে।

ফোনের ক্যামেরার দিকেও রাখা হয়েছে নজর। ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপে মূল ক্যামেরা দেয়া আছে ৫০ মেগাপিক্সেলের। এছাড়া ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরাও পাবেন। সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি শ্যুটার। পুরো ফোনটির ডিজাইন খুব সুন্দরভাবে করা হয়েছে। হাতে নিলে ফোনটি একটি প্রিমিয়াম অভিজ্ঞতা দিতে পারে। এছাড়া সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ৫০০০ মিলিএম্প বড় ব্যাটারি, টাইপ সি ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জ ইত্যাদি বিভিন্ন সুবিধাও দেয়া হয়েছে।

ওয়ালটন নেক্সজি এন৬ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৬ ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ অক্টাকোর ১.৬ গিগাহার্টজ
  • র‍্যামঃ ৮ জিবি
  • স্টোরেজঃ ১২৮ জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৫০ মেগাপিক্সেল ডুয়াল ক্যামেরা 
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮ মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০ মিলিএম্প

ওয়ালটন নেক্সজি এন৬ এর দামঃ ১৫,৪৯৯ টাকা

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই২০ – Walton Orbit Y20

যারা একদমই কম বাজেটে ভালো পারফর্মেন্স দেয় এমন স্মার্টফোন খুঁজছেন তাদের জন্য খুবই ভালো একটি ফোন এটি। এই মডেলে কম দামেও ভালো পারফর্মেন্স প্রদান করতে ওয়ালটন ব্যবহার করেছে ১.৬ গিগাহার্টজের অক্টাকোর প্রসেসর। সেই সাথে অ্যান্ড্রয়েড গো অপারেটিং সিস্টেম থাকায় দৈনন্দিন স্বাভাবিক কাজ করতে বেগ পেতে হয় না এই ফোনে।

Orbit Y20

২ জিবি র‍্যাম ও ৩২ জিবি স্টোরেজের সাথে বাজারে এসেছে ফোনটি। সামনে পাবেন ৬.৫২ ইঞ্চির সুন্দর একটি এলসিডি ডিসপ্লে। এই দামেও পিছনে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ রেখেছে ওয়ালটন। ৮ মেগাপিক্সেলের মূল ক্যামেরা ছাড়াও পাওয়া যাবে ডেপথ এবং ম্যাক্রো সেন্সর। নিরাপত্তার জন্য আছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ৪০০০ মিলিএম্প ব্যাটারি দীর্ঘ সময় ব্যাকাপ দিতে পারবে। তাছাড়া এই দামেও টাইপ-সি পোর্ট দিয়েছে ওয়ালটন।

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই২০ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ অক্টাকোর ১.৬ গিগাহার্টজ
  • র‍্যামঃ ২ জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২ জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৮ মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা 
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৫ মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪০০০ মিলিএম্প

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই২০ এর দামঃ ৮,৩৬০ টাকা

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই২১ – Walton Orbit Y21

ওয়ালটনের অরবিট সিরিজের নতুন বাজারে আসা ফোন এটি। কম দামে স্মার্টফোন খুঁজছেন যারা তাদের জন্য এটি খুবই ভালো একটি পছন্দ হতে পারে। সবদিকে ব্যালেন্স রাখার চেষ্টা করা হয়েছে এই ফোনে। সামনে আছে আধুনিক ৯০ হার্টজ হাই রিফ্রেশ রেটের ৬.৬ ইঞ্চির বড় ডিসপ্লে। এছাড়া ১৮০ হার্টজের টাচ স্যামপ্লিং রেটও থাকবে এই ডিসপ্লেতে।

Orbit Y21

ইউনিসকের টাইগার ৬০৬ অক্টাকোর প্রসেসর দেয়া আছে যা দৈনন্দিন কাজগুলো সহজেই সামলাতে পারবে। নতুন অ্যান্ড্রয়েড ১২ গো এডিশন দেয়া থাকায় সব কাজই দ্রুত হবে। পিছনে ডুয়াল ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা রয়েছে। এছাড়া ৪ জিবি র‍্যাপিড র‍্যাম ও ৩২ জিবি স্টোরেজও দেয়া থাকবে ফোনে। এর সুন্দর মিনিমালিস্ট ডিজাইন বেশ আকর্ষণীয়। ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি পাবেন যা সারাদিন সহজেই ব্যাকাপ দেবে। এছাড়া নিরাপত্তার জন্য সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও রয়েছে।

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই২১ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৬ ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ  ইউনিসক টাইগার ৬০৬
  • র‍্যামঃ ৪ জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২ জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৮ মেগাপিক্সেল ডুয়াল ক্যামেরা 
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৫ মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০ মিলিএম্প

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই২১ এর দামঃ ৮,৪৯৯ টাকা

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই৫০ – Walton Orbit Y50

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই৫০ একটি সুন্দর বিল্ডের বাজেট ফোন। এতে ওয়ালটন ৬.৮২ ইঞ্চির বিশাল ডিসপ্লে দিয়েছে। নতুন বাজারে আসা এই ফোনে আছে হেলিও এ২২ চিপসেট। দৈনন্দিন কাজে বেশ ভালো পারফর্মেন্স দিতে পারে ফোনটি।

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই৫০ – Walton Orbit Y50

৪ জিবি র‍্যাম আর ৬৪ জিবি রম থাকায় হালকা গেমিং করতেও কোন সমস্যা হবে না। এছাড়া পিছনে আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের এআই ট্রিপল ক্যামেরা। সামনের সেলফি ক্যামেরাটি ৮ মেগাপিক্সেলের। কম বাজেটে বেশ ভালো স্পেক দিচ্ছে এই ফোনটি।

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই৫০ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৮২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক হেলিও এ২২
  • র‍্যামঃ ৪জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ১৩মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা 
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪২০০মিলিএম্প

ওয়ালটন অরবিট ওয়াই৫০ এর দামঃ ১২,৯৯৯ টাকা

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৭ – Walton Primo HM7

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৭ ওয়ালটনের আরেকটি বাজেট ফোন। ইউনিসক টি৬১০ প্রসেসর আর মালি জি৫২ জিপিইউ দেয়া হয়েছে এই ফোনে যা দৈনন্দিন স্বাভাবিক কাজগুলো ভালোভাবেই করে ফেলতে পারে। আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা সিস্টেম আর ৪৯০০ মিলিএম্পের ব্যাটারিও।

এর একটি বড় ফিচার এর ডিসপ্লে যা ৬.৫২ ইঞ্চির এবং ওয়াইডভাইন এল১ সার্টিফাইড। অর্থাৎ এতে এইচডিতে স্ট্রিমিং করতে পারবেন নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম ইত্যাদি সার্ভিস থেকে। যদি আপনি অনেক বেশি মুভি বা সিরিজ দেখেন বাজেটে ফোনটি আপনার জন্য ভালো পছন্দ হতে পারে।

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৭ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ ইউনিসক টি৬১০
  • র‍্যামঃ ৩জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ট্রিপল (১৩+২+২ মেগাপিক্সেল)
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪৯০০মিলিএম্প
ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৭ – Walton Primo HM7

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৭ এর দামঃ ১১,৯৯৯ টাকা

👉 শাওমি রেডমি ফোনের দাম জানুন

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ – Walton Primo R10

বাজারে নতুন ছাড়া পাতলা ও সুন্দর দেখতে এই ফোনটি স্পেকের দিক থেকে বেশ ব্যালেন্সড একটি ফোন। এতে আছে ইউনিসকের টি৬১০ প্রসেসর আর ৪ জিবি র‍্যাম যা এক্সপ্যান্সন টেকনোলজির মাধ্যমে ৮ জিবি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যায়। তাই দৈনন্দিন কাজগুলো সহজেই এতে করা যায়। ক্যামেরা হিসেবে ১৩ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা রয়েছে। টাইপ সি পোর্ট ও ৪৮৫০ মিলিএম্পের ব্যাটারি থাকায় এটির ব্যাকআপও বেশ ভালো।

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ – Walton Primo R10

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক হেলিও জি২৫
  • র‍্যামঃ ৩জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ট্রিপল (১৩+২+ভিজিএ মেগাপিক্সেল)
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ এর দামঃ ১৩,৪৯৯ টাকা

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১১ – Walton Primo GH11

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১১ – Walton Primo GH11

স্টাইলিশ এই কম দামের ফোনটিতে ওয়ালটন অ্যান্ড্রয়েড ১২ গো এডিশন (২জিবি ভার্সন) ব্যবহার করায় এই ফোনটি খুব ভালো পারফর্ম করতে পারে। চিপসেট হিসেবে হেলিও এ২২ থাকায় দৈনন্দিন কাজ খুব স্মুথলি করা যায় হালকা অপারেটিং সিস্টেম দেয়া এই ফোনে। তাছাড়া ক্যামেরায় আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা। ৪২০০ মিলিএম্প ব্যাটারি ফোনটিকে সারাদিন ব্যাকাপ দিতে সক্ষম। কম বাজেটে ভালো পারফর্মেন্স চাইলে ফোনটি দেখতে পারেন। 

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১১ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক হেলিও এ২২
  • র‍্যামঃ ২/৪জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ট্রিপল (১৩+২+২ মেগাপিক্সেল)
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৫মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪২০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১১ এর দামঃ 

  • ২জিবি র‍্যাম + ৩২ জিবি স্টোরেজঃ ৮,৫১০ টাকা
  • ৪জিবি র‍্যাম + ৩২ জিবি স্টোরেজঃ ৯,৯৯৯ টাকা

ওয়ালটন প্রিমো আর৯ – Walton Primo R9

ওয়ালটন প্রিমো আর৯ – Walton Primo R9

বাজেটের সাথে ব্যালেন্সড পারফর্মেন্সের ফোন এটি। হেলিও জি২৫ অক্টাকোর চিপ এতে চলনসই পারফর্মেন্স দেয়। এই চিপটির সঙ্গে কিছু গেমিং টেকনোলজি থাকায় কিছুটা গেমিংও করতে পারবেন। সেই সাথে এতে দেয়া আছে ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা যা পিক্সেল বিনিং টেকনোলজি ব্যবহার করে ৫২ মেগাপিক্সেলের ছবি তুলতে পারে। এতে ৫০০০ মিলিএম্পের বড় ব্যাটারি থাকায় এর ব্যাকাপ খুব ভালো। তাই বলা যায় বাজেট হিসেবে খুব ভালো ফিচার আছে এই ফোনে।

ওয়ালটন প্রিমো আর৯ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক হেলিও জি২৫
  • র‍্যামঃ ৩জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ট্রিপল (১৩+২+ভিজিএ মেগাপিক্সেল)
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো আর৯ এর দামঃ ১০,৪৯৯ টাকা

👉 অপো ফোনের দাম জানুন

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৬ – Walton Primo HM6

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৬ – Walton Primo HM6

একদম কম বাজেটে যদি বড় ব্যাটারির ফোন খুঁজে থাকেন এর থেকে ভালো কোন ফোন তবে বাজারে খুঁজে পাওয়া শক্ত। ৬০০০ মিলিএম্পের ব্যাটারি দেয়া হয়েছে এতে যা দীর্ঘ সময় ব্যাকাপ দেবে। সেই সাথে আছে অ্যান্ড্রয়েড গো এডিশন যা ব্যাটারি খুব অল্প ব্যবহার করেই ফোনকে চালাতে পারে। ১.৬ গিগাহার্টজের অক্টাকোর প্রসেসর আছে এর চিপ হিসেবে। পিছনে ডুয়াল ক্যামেরা যার প্রধান সেন্সর ১৩ মেগাপিক্সেলের। গুগল এসিস্ট্যান্ট, ফেস আনলক সুবিধাও আছে এতে।

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৬ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ ১.৬ গিগাহার্টজ অক্টাকোর
  • র‍্যামঃ ২জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ডুয়াল (১৩+২ মেগাপিক্সেল)
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৬০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৬ এর দামঃ ৮,২৯৯ টাকা

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১০আই – Walton Primo GH10i

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১০আই – Walton Primo GH10i

মাত্র আট হাজার টাকা বাজেটে ট্রিপল ক্যামেরা ফোন বাজারে পাওয়া খুবই কষ্টকর। সেটিই সম্ভব করছে ওয়ালটন। এতে পিছনে ৩ টি ক্যামেরা দেয়া আছে যার প্রধান লেন্সটি ৮ মেগাপিক্সেলের। অন্য দুটি ক্যামেরা হিসেবে আছে ম্যাক্রো ও ডেপথ সেন্সর। ইউনিসকের টাইগার টি৩১০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে এই ফোনে। এই বাজেটে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারও দিয়েছে ওয়ালটন। কম বাজেটে বেশ ভালো একটি ফোন এটি।

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৬ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ ইউনিসক টাইগার টি৩১০
  • র‍্যামঃ ২জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ট্রিপল (৮+ভিজিএ+ভিজিএ মেগাপিক্সেল)
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৫মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো এইচএম৬ এর দামঃ ৮,২৯০ টাকা

👉 রিয়েলমি ফোনের দাম জানুন

ওয়ালটন প্রিমো ইএফ১০ – Walton Primo EF10

ওয়ালটন প্রিমো ইএফ১০ – Walton Primo EF10

কম বাজেটের ফোন এটি। ব্যাসিক বিভিন্ন কাজ সহজেই হ্যান্ডেল করতে পারলেও এই ফোনে ভারি কিছু করতে পারবেন না। এটি ছোট আকারের ফোন, তাই হাতে ধরতে সহজ লাগবে। ৩০০০ মিলিএম্পের ব্যাটারি দেয়া আছে এতে। অ্যান্ড্রয়েড গো এডিশন থাকায় সহজেই একদিন ব্যাকাপ পাওয়া যাবে। ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা আছে পিছনে, সেলফি ক্যামেরা হিসেবে ৫ মেগাপিক্সেলের সেন্সর দেয়া হয়েছে।

ওয়ালটন প্রিমো ইএফ১০ এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৫.৪৫ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ ১.৬ গিগাহার্টজ অক্টাকোর
  • র‍্যামঃ ১জিবি
  • স্টোরেজঃ ১৬জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৮ মেগাপিক্সেল
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৫মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৩০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো ইএফ১০ এর দামঃ ৬,৩০০ টাকা

ওয়ালটন প্রিমো এস৮ মিনি – Walton Primo S8 Mini

কম দামে ওয়ালটন প্রিমো এস৮ মিনি ফোন দিচ্ছে চমকপ্রদ সুবিধা

১৫হাজার টাকার মধ্যে স্ন্যাপড্রাগন ৬৬৫ প্রসেসর অফার করছে ওয়ালটন প্রিমো এস৮ মিনি ফোনটি। একাধিক র‍্যাম ভ্যারিয়েন্টে ফোনটি পাওয়া যাবে, তবে ৪জিবি র‍্যাম ও ৬৪জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্ট একটি “ভ্যালু ফর মানি” অপশন। বাজেট ফোন হলেও ফোনটিতে ১৬মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা সেটাপ ও অসাধারণ ডিজাইন রয়েছে। ৫০০০মিলিএম্প এর ব্যাটারি থাকছে ফোনটিতে।

ওয়ালটন প্রিমো এস৮ মিনি এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫৩ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬৫
  • র‍্যামঃ ৪জিবি / ৬জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ১৬মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ১৩মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো এস৮ মিনি এর দামঃ

  • ৪জিবি / ৬৪জিবি ১৪,৯৯৯টাকা
  • ৬জিবি / ৬৪জিবি ১৬,৬৯৯টাকা

👉 কম দামে ভালো ফোন

ওয়ালটন প্রিমো এস৮ – Walton Primo S8

দামে মাত্র ২১হাজার টাকা হলেও ওয়ালটন প্রিমো এস৮ ফোনটির ডিজাইন যে কারো নজর কাড়তে বাধ্য। ফোনটির অসাধারণ ডিজাইনের পাশাপাশি ৯০হার্জ রিফ্রেশ রেট ফোনটি ব্যবহারের অভিজ্ঞতাকে অন্য মাত্রায় নিয়ে যাবে। দাম হিসেবে এই ফোনটিকে একটি পারফেক্ট ফোন বলা চলে যেকোনো সাধারণ ব্যবহারকারীর জন্য।

ওয়ালটন প্রিমো এস৮ এর স্পেসিফিকেশনঃ

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৭৮ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক হেলিও জি৮৮
  • র‍্যামঃ ৬জিবি
  • স্টোরেজঃ ১২৮জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৪৮মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো এস৮ এর দামঃ ২০,৯৯০টাকা

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

👉 আইটেল মোবাইলের দাম জানুন

ওয়ালটন প্রিমো এফ১০ – Walton Primo F10

ওয়ালটন প্রিমো এফ১০ ফোনটি ওয়ালটন প্রিমো জিএম৪ ফোনটির মত এক্সট্রিম বাজেট ফোন। তাই এই ফোনটির দাম, স্পেসিফিকেশন বা ডিজাইনে ভুল ধরা বোকামি হবে। ফোনটিতে ২জিবি র‍্যাম ও ১৬জিবি স্টোরেজ রয়েছে।

ওয়ালটন প্রিমো এফ১০ এর স্পেসিফিকেশনঃ

  • ডিসপ্লেঃ ৫.৯৯ইঞ্চি
  • র‍্যামঃ ২জিবি
  • স্টোরেজঃ ১৬জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ২মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৩০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো এফ১০ এর দামঃ ৫,৭৯৯টাকা

👉 ইনফিনিক্স মোবাইলের দাম জানুন

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১০ – Walton Primo GH10

৮হাজার টাকার মধ্যে ৩২জিবি স্টোরেজ অফার করছে ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১০ ফোনটি। কম দামে যাদের একটু বাড়তি স্টোরেজযুক্ত ব্যবহারযোগ্য একটি ফোন দরকার, তারা এই ফোনটি দেখতে পারেন।

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১০ এর স্পেসিফিকেশনঃ

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫২ইঞ্চি
  • র‍্যামঃ ২জিবি
  • স্টোরেজঃ ৩২জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৫মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো জিএইচ১০ এর দামঃ ৮,৩৯০ টাকা

👉 নকিয়া ফোনের দাম জানুন

ওয়ালটন প্রিমো জেডএক্স৪ – Walton Primo ZX4

বর্তমান বাজারে ওয়ালটন এর সবচেয়ে দামি ফোন হলো ওয়ালটন প্রিমো জেডএক্স৪। অসাধারণ ডিজাইন, পেন্টাক্যামেরা সেটাপ ও শক্তিশালী প্রসেসরযুক্ত এই ফোনটিকে দেশীয় ব্র্যান্ড, ওয়ালটন তাদের সেরা স্মার্টফোন বলে পরিচয় দিয়েছে।

ওয়ালটন প্রিমো জেডএক্স৪ এর স্পেসিফিকেশনঃ

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৬৯ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৫
  • র‍্যামঃ ৮জিবি
  • স্টোরেজঃ ১২৮জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৬৪মেগাপিক্সেল পেন্টাক্যামেরা
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৩২মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৪০০০মিলিএম্প

ওয়ালটন প্রিমো জিএক্স৪ এর দামঃ ২৬,৯৯৯টাকা

👉 টেকনো মোবাইলের দাম জানুন

ওয়ালটন এর কোন ফোনটি আপনার সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে? আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,561 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *