ভিভো V30 লাইট আসছে দুর্দান্ত ডিসপ্লে এবং ক্যামেরা নিয়ে

Vivo ফোনগুলো বাংলাদেশের বাজারে দারুন জনপ্রিয়। ভিভোর জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ হচ্ছে এর ফোনগুলোর আকর্ষণীয় ডিজাইন এবং কম দামে অনেক বেশি সুবিধা। এছাড়া ভিভো ফোনগুলো টেকেও বেশ ভালো সময় ধরে। নিত্যনতুন ডিজাইনের এবং স্পেসিফিকেশনের ফোন বাজারে আনার ক্ষেত্রে ভিভোর নাম ডাক রয়েছে।

ভিভো সম্প্রতি বাজারে নিয়ে এসেছে ভিভো ভি৩০ লাইট স্মার্টফোন। এটি হচ্ছে V30 সিরিজের প্রথম ফোন। ভিভো এর আগেও ভি সিরিজের ভি২৫, ভি২৭, এবং ভি২৯ সিরিজের ফোন বাজারে নিয়ে এসেছিল।

ভিভো V30 লাইট স্মার্টফোনে দেয়া হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৬৯৫ প্রসেসর এবং এতে ১২ জিবি র‍্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ রয়েছে। ফোনটি এন্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১৩ অপারেটিং সিস্টেমে চলবে। আশা করা যায় ফোনটি আরো কিছু আপডেট ভবিষ্যতে পাবে।

ভিভো ভি৩০ লাইট ফোনে ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি অ্যামোলেড ডিসপ্লে রয়েছে। এটি 120 হার্টজ রিফ্রেশ রেট সমৃদ্ধ E4 এমোলেড স্ক্রিন যাতে আপনি ১১৫০ নিট পর্যন্ত পিক ব্রাইটনেস পেতে পারেন। ডিসপ্লের নিচে থাকছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ডিভাইসটিতে ৪৪ ওয়াট ফাস্টচার্জিং এবং ৪৮০০ mAh ব্যাটারি আছে।

ফোনটির পেছনের দিকে এর মূল ক্যামেরা প্যানেলে রয়েছে ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, একটি ৮ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড সেন্সর এবং একটি ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর। সেইসাথে রয়েছে ফ্লাশ। আর ফোনটি সামনের দিকে আছে ৫০ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। ফোনটির মূল ক্যামেরায় অপটিক্যাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশন সুবিধা রয়েছে।

vivo v30 lite

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

৫জি কানেক্টিভিটি সমৃদ্ধ এই ফোনে আরো পাবেন NFC এবং IP54 রেটিং। এই ফোনটি কোন এন্ট্রি-লেভেল ফোন নয়। এর দাম শুরু হতে পারে ৫৩০ ডলার থেকে। অর্থাৎ যদি বাংলাদেশের বাজারে এটি আসে তাহলে উক্ত ভিভো মোবাইলের দাম ৫০ হাজার টাকার উপরে হবে বলে ধরে নিতে পারেন। তো আপনার কি মনে হচ্ছে আপনি কি ৫০ হাজার টাকা বাজেট নিয়ে ভিভোর এই ফোনটি কিনবেন? আপনার মতামত কমেন্টে জানান। ধন্যবাদ!

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,586 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *