অনলাইন ব্যবসায় ইনকামের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলো মনে রাখুন

অনলাইনে আয়ের অগণিত উপায় রয়েছে, তবে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় অনলাইনে আয়ের ক্ষেত্রে সবার জন্য মেনে চলা অত্যাবশ্যক। এই পোস্টে জানবেন নিজের অনলাইন থেকে আয় করে সফলতা অর্জনের ক্ষেত্রে  যেসব বিষয় মাথায় রাখতে হবে সেগুলো সম্পর্কে।

অনলাইন ব্যবসা আর সাধারণ ব্যবসার মধ্যে তেমন তফাৎ নেই

আপনি যদি ভাবেন যে অনলাইন ব্যবসা ও সাধারণ ব্যবসা সম্পূর্ণ দুইটি ভিন্ন জিনিস, তাহলে বলে দেওয়া ভালো এই ধারণাটি সঠিক নয়। অনলাইন ব্যবসার ক্ষেত্রেও চিরাচরিত ব্যবসার মত আপনার প্রোডাক্ট স্টোর করতে হয় ও ঠিক সময়ে সরবরাহ করতে হয়। সাধারণ ব্যবসার ক্ষেত্রে ক্রেতা দোকানে এসে প্রোডাক্ট কিনছে ও অনলাইন ব্যবসার ক্ষেত্রে প্রোডাক্ট আপনি পৌঁছে দিচ্ছেন – এই হলো অনলাইন ও অফলাইন ব্যবসার মধ্যে মূল পার্থক্য। ব্যবসার অন্য সকল বিষয় দুইটি বিষয়ের ক্ষেত্রে প্রায় একই।

তাই আপনার অনলাইন ব্যবসার ধরন, পরিধি বা সময়কাল যে ধরনের হোক না কেনো, অনলাইন ব্যবসাকে সাধারণ যেকোনো ব্যবসার মত বিবেচনা করা উচিত। মনে রাখতে হবে আপনার ফেসবুক পেজ বা ওয়েবসাইট থেকে কিন্তু আয় হচ্ছেনা, আয় হচ্ছে আপনার ব্যবসার মাধ্যমে বিক্রিত প্রোডাক্ট থেকে।

আপনার কাস্টমারদের চিনুন

যেকোনো ব্যবসার মূল উদ্দেশ্য হলো কাস্টমারের কাছে পণ্য বিক্রি করা। ব্যবসার অস্তিত্বের পেছনের চালিকাশক্তি হলো কাস্টমারের চাহিদা। তাই আপনার অনলাইন ব্যবসার কাস্টমার কারা তা আগে থেকে ভেবে নেওয়া উচিত। আপনার পন্যের ক্রেতা কারা সে বিষয়েই যদি আপনি না জানেন, তাহলে সম্ভাব্য ক্রেতাদের কাছে আপনার ব্যবসা পৌঁছানোর কোনো উপায় থাকেনা।

অনলাইন ব্যবসা শুরুর আগে আপনার ক্রেতা কারা হবে, ক্রেতাদের প্রয়োজন মেটাতে পারবেন কিনা, ক্রেতাগণ অন্যদের কাছে আপনার প্রোডাক্টের কথা জানাবে কিনা, ইত্যাদি বিষয় বিবেচনা করা উচিত। উল্লেখিত বিষয় যখন আপনার কাছে পরিস্কার হবে, তখন আপনার অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

নির্দিষ্ট নিশ বাছাই করুন

প্রতিটি মার্কেটে নিশ (niche) থাকলেও সকল নিশে কিন্তু মার্কেট থাকেনা। এই বিষয়টি মাথায় রেখে যদি আপনি মার্কেটহীন নিশের পেছনে অনেক অর্থ ব্যয় করেন তাহলে মস্ত বড় ভুল করে বসবেন। এতে আপনার সময়, অর্থ ও সুযোগ, সবকিছুই নষ্ট হবে। তাই নিজের ব্যবসার নিশ বাছাই করার আগে যথেষ্ট পরিমাণ গবেষণা করুন, উক্ত নিশ এর প্রোডাক্টের কাস্টমার আছে কিনা, ইত্যাদি বিষয় বিবেচনা করুন।

সঠিক পথে মনিটাইজ করুন

“মনিটাইজেশন” শব্দটির সাথে কমবেশি সবাই পরিচিত হয়ে থাকবেন। কোনো ওয়েবসাইট বা ডিজিটাল অ্যাসেট থেকে আয়কে বলা হয় মনিটাইজেশন। প্রোডাক্ট বা সেবা বিক্রি করে আয়ের পাশাপাশি ওয়েবসাইট থেকে মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে আয় করা যেতে পারে। ওয়েবসাইট ছাড়াও ইমেইল এর মাধ্যমে মনিটাইজেশন করা যেতে পারে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, এডসেন্স, স্পন্সরড পোস্ট, ব্যানার বা ডিসপ্লে এড, ইত্যাদির মাধ্যমে মনিটাইজেশন ইনকাম করা যেতে পারে। যে মনিটাইজেশন স্ট্রেটেজিই বেছে নেন না কেনো, উক্ত পদ্ধতি নৈতিক বা এথিক্যাল কিনা সে বিষয়ে সজাগ থাকুন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

অনলাইন ব্যবসায় ইনকামের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলো মনে রাখুন

👉 বিনিয়োগ করার আগে যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হবে

অস্বাভাবিক সহজ আয় থেকে দূরে থাকুন

কোনো বিষয় যদি বাস্তব হিসেবে অতিরঞ্জিত মনে হয়, তবে উক্ত বিষয় এড়িয়ে চলা উত্তম। ব্যবসার ক্ষেত্রে দ্রুত লাভ অর্জন করতে চেয়ে বিভিন্ন ভুল স্কিম অনুসরণ করে বসেন অনেকে, যার ফলে আর্থিক অবস্থার অবনতি হওয়া শুরু হয়। তাই রাতারাতি বড়লোক হওয়ার উপায়সমূহ অনুসরণ না করে পরীক্ষিত কার্যকরী উপায়ে আপনার ব্যবসা পরিচালনা করুন।

সময় মানেই অর্থ

টেকসই নয় এমন অনলাইনে আয়ের পেছনে সময় নষ্ট করাটা কিন্তু এক ধরনের বোকামি। শুধুমাত্র অর্থ আয় হচ্ছে বলে ঘন্টার পর ঘন্টা পরিশ্রম করে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং অনলাইন সার্ভে করা মানে কিন্তু বোকামি৷ তাই আপনার সময়কে যথেষ্ট গুরুত্ব প্রদান করুন ও প্রদত্ত সময়ের সাথে পরিমিত আয় আসবে এমন আয়ের পথ বেছে নিন। চেষ্টা করুন দক্ষতা অর্জনে সময় প্রদান করে তার থেকে ভবিষ্যতে আয়ের পথ তৈরী করার।

ক্লিকবেইট এর পথ ধরবেন না

ক্লিকবেইট মানে হলো যেকোনো উপায়ে কোনো কনটেন্টে যত বেশি সম্ভব ক্লিক নিয়ে আসা। মূলত আসল কনটেক্সট শেয়ার না করে মানুষ ক্লিক করবে এমন একটি গল্প সাজানোর বিষয়টিকে ক্লিকবেইট হিসেবে আখ্যা দেওয়া যেতে পারে। হ্যাঁ, এই উপায়ে হয়ত আপনার ওয়েবসাইটের কনটেন্ট কিছু ক্লিক আসবে। কিন্তু এসব কনটেন্ট কেউ মনোযোগ দিয়ে পড়বেনা ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনায় ক্লিকবেইট বাধার সৃষ্টি করতে পারে। তাই ক্লিকবেইট এর পথে না হেটে ভালো মানের কনটেন্ট তৈরী করুন।

এসইও-কে গুরুত্ব দিন

অনলাইনে আর্থিক লাভের মুখ দেখতে চাইলে দক্ষতার পাশাপাশি প্রয়োজন এসইও এর মত বিষয়কে গুরুত্ব প্রদান করা। প্রায় সকল অনলাইন ব্যবসার ক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বা এসইও বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। তাই কার্যকরী অনলাইন উপস্থিতি বজায় রাখতে অবশ্যই এসইও-কে যথেষ্ট গুরুত্ব প্রদান করা উচিত।

পুঁজি, দক্ষতা ও সময় প্রয়োজনীয় বিষয়

অর্থ, সময়, দক্ষতা, ইত্যাদি যেকোনো ধরনের আয়ের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় বিষয়। একইভাবে অনলাইনে আয়ের ক্ষেত্রেও উল্লেখিত বিষয়গুলো বেশ গুরুত্বপূর্ণ। অনলাইন ব্যবসা পরিচালনা করতে প্রয়োজনীয় টুলস ও সফটওয়্যার কিনতে অবশ্যই অর্থের প্রয়োজন হবে।

যেমনঃ একটি ব্লগ শুরু করতে চাইলে ডোমেইন ও হোস্টিং কিনতে হবে। একজন ফ্রিল্যান্স গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে চাইলে কম্পিউটার ও সফটওয়্যার লাগবে। অর্থাৎ অনলাইনে যেকোনো ধরনের আয় করতে চাইলে মূলধন, দক্ষতা ও রিসোর্স, সময়, ইত্যাদি বিষয় থাকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তাই এসব বিষয় মাথায় রাখুন।

উল্লিখিত বিষয়গুলো গুরুত্ব দিয়ে সামনে এগিয়ে গেলে আশা করি আপনার অনলাইন ইনকামের পথ প্রশস্ত হবে।

👉 ভিডিওঃ সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার উপায়

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,269 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.