হ্যাপি নিউ ইয়ার ২০১৭!

“নিউজিল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়ে বছর শেষ করল টাইগাররা”- সংবাদ পাঠিকার ভাবলেশহীন সুললিত কণ্ঠে এই খবর শুনতে শুনতে জানালা দিয়ে নিউ ইয়ারের ফায়ারওয়ার্কস দেখছি। সাধারণত জানালা দিয়ে চাঁদ-তারা দেখি, কিন্তু আজকের ব্যাপারটা ভিন্ন। গ্লোবালাইজেশনের এই যুগে মডার্ন কালচারের সাথে একটুআধটু পরিচিত থাকা মন্দ না।

থার্টিফার্স্ট নাইটের সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যেই সম্পন্ন করেছি। লন্ড্রিতে শার্ট-প্যান্ট দেয়া ছিল, সন্ধ্যায় বাসায় এনে রেখেছি। রাতে রান্নার জন্য চাল ও মরিচ দরকার ছিল, আগেভাগেই এনে রেখেছি। কারণ আজ সন্ধ্যার পর বাইরে না নামাই ভাল। থার্টিফার্স্ট নাইটের কী কী যেন বিধিনিষেধ আছে। যদিও এতে আমার কোনোই সমস্যা হচ্ছেনা, কারণ আমি ‘মাগরিবের পর আর বাইরে না থাকা’য় অভ্যস্ত।

মানুষ কৌতূহলী প্রাণি। তাই ৩১ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে নগরবাসীর উপর ঠিক কী ধরণের রেস্ট্রিকশন থাকে সেগুলো সম্পর্কে বিশদ জানার জন্য খবরের কাগজে চোখ বোলাতে যাব, ঠিক এমন সময় রান্নাঘর থেকে ‘খালা’ মিডিয়াম স্কেলের একটা থ্রেট দিয়ে জানিয়ে গেছেন যে, জানুয়ারি থেকে তার বেতন বাড়াতে হবে। অন্যথায় অনশন। আমি বললাম ‘হায় হায় সামান্য কয়টা টাকার জন্য অনশন করবেন?’ খালা বললেন, ‘আমি অনশন করুম কোন দুঃখে? রান্না বন্ধ করে দিলে আপনাদেরই অনশন হয়ে যাবে’।

বাইরে ফায়ারওয়ার্কসের পরিমাণ বাড়ছে। দেখতে ভালোই লাগছে। কিন্তু জানালা দিয়ে প্রচুর মশা আসছে। মশক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর থেকে থার্টিফার্স্টে ওদের জন্য কিছু রেস্ট্রিকশন ঘোষণা করলে আমার জন্য ভাল হত। গ্রামে শীতের সিজনে মশা কম থাকে। কিন্তু শহরে এই থিওরি সম্পূর্ণ ভুল। যাইহোক, ব্যাপারনা। কয়েল জ্বালিয়ে দিয়েছি। কয়েল পুড়ে পুড়ে স্ট্যান্ডের কেন্দ্রাভিমুখে ধাবিত হচ্ছে। অক্সিজেন নিজে জ্বলেনা, অপরকে জ্বলতে সাহায্য করে। মশার কয়েল নিজেও জ্বলে, আশেপাশের প্রাণিদেরও জ্বালায়। মানুষের জ্বলে চোখ, আর মশাদের জ্বলে মন, কখনো কখনো পতঙ্গগুলোর জান ধরেও টান দেয়। কবি হলে এই কঠিন বাস্তবতা নিয়ে একটা বিরহকাব্য রচনা করতে পারতাম।

চোখের সামনে শেষ হয়ে যাচ্ছে ২০১৬। আসছে নতুন বছর, সেই সাথে খরচস্ফীতি। আমরা কি এমন থার্টিফার্স্ট চেয়েছিলাম? ;)

হোয়াটএভার, সবাইকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা। আশা করি নতুন বছরে বাংলাটেক টোয়েন্টিফোর ডটকমের সাথেই থাকবেন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 3,163 other subscribers

Comments