রবি ও এয়ারটেল এক হওয়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিল বিটিআরসি

By -

robi airtel 1 company

বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশন বিটিআরসি দেশের দুই মোবাইল ফোন অপারেটর রবি ও এয়ারটেলকে ব্যবসা একীভূত করার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে বলে জানিয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি সংবাদ মাধ্যম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,617 other subscribers

পত্রিকাটি লিখছে, মঙ্গলবার বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেছেন, “আজ কমিশন বৈঠকে রবি ও এয়ারটেলের একীভূত হওয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত  অনুমোদন দেওয়া হয়েছে”।

ফলে, সরকারি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্ধারিত ফি ও মাসুল প্রদান করে একীভূত হওয়ার দরজা খুলে গেলো এই দুই অপারেটরের সামনে।

আপনার হয়ত মনে আছে, এর আগে চলতি বছর জানুয়ারিতে রবি আজিয়াটা লিমিটেড (রবি) এবং এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের (এয়ারটেল) কার্যক্রম একীভূত করতে নিজেদের মধ্যে চুক্তি সম্পন্ন করে। সেপ্টেম্বর ২০১৫ এর শুরুতে কোম্পানি দুটির মূল প্রতিষ্ঠান আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদ (আজিয়াটা) এবং ভারতী এয়ারটেল লিমিটেড (ভারতী) এর তরফ থেকে বাংলাদেশে ব্যবসায়িক কার্যক্রম একীভূত করার সম্ভাবনার বিষয়ে আলোচনা শুরুর ঘোষণা দেওয়ার পর ২০১৬ এর জানুয়ারির শেষ দিকে এই চুক্তি হয়।

বিভিন্ন আইনি প্রক্রিয়া পার হয়ে অবশেষে একত্রীত হওয়ার চূড়ান্ত অনুমোদন পেল কোম্পানি দুটি। আশা করা হচ্ছে, ডিসেম্বর ২০১৬ এর মধ্যেই এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

ইতোপূর্বে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, একীভূতকরণের পর, দুই কোম্পানির একীভূত সত্তা রবি নামেই ব্যবসা পরিচালনা করবে এবং একীভূত সত্তার গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ৪ কোটিতে।

রবি + এয়ারটেল = রবি

চুক্তি সম্পাদনের ফলে শেয়ার মূলধনের পুনর্বিন্যাস হবে এবং এতে আজিয়াটা একীভূত সত্তার ৬৮.৩% নিয়ন্ত্রণ করবে। অন্যদিকে ভারতী ২৫ শতাংশ এবং বাকি ৬.৭% বর্তমানের অপর শেয়ারহোল্ডার জাপানের এনটিটি ডকোমোর কাছে থাকবে।

জানুয়ারিতে এক প্রেস রিলিজে দুই মোবাইল কোম্পানির একীভূতকরণের যৌক্তিকতা এবং লেনদেন সমন্বিতকরণ নিয়ে যা বলা হয়েছে তা এখানে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি:

  • এই একীভূতকরণ প্রতিযোগিতার পরিবেশ জোরদার করার মাধ্যমে গ্রাহকের জন্যে আরো উন্নততর অভিজ্ঞতা এবং অধিকতর পছন্দের সুযোগ নিয়ে আসবে
  • একীভূতকরণের মাধ্যমে ৪ কোটি গ্রাহকের জন্যে তুলনামূলক বিচারে সবচেয়ে বিস্তৃত নেটওয়ার্ক কাভারেজ এবং উন্নততর মোবাইল ইন্টারনেট সেবার অভিজ্ঞতা নিশ্চিত হবে
  • সবচেয়ে বিস্তৃত বিক্রয় ও বিপণন চ্যানেলের মাধ্যমে এবং দেশজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক গ্রাহক সেবা কেন্দ্রের সহযোগিতায় বিক্রয় ও বিপণন সেবা আরো বিস্তৃত এলাকায় পৌঁছে দেওয়া যাবে
  • ৪ কোটি গ্রাহকের বিশাল সংখ্যার শক্তির ওপর ভর করে গ্রাহককে নিজ নেটওয়ার্কে (অন-নেট) কম মূল্যে কল করার সুযোগ প্রদান করা যাবে
  • সারা বাংলাদেশ জুড়ে ইন্টারনেট সংযোগের প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা এবং দুই কোম্পানির কার্যক্রম একীভূতকরণের মাধ্যমে ব্যয় সংকোচনের ফলে আরো সুলভে মোবাইল সেবা পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজিয়াটা গ্রুপ বারহাড, মালয়েশিয়া এবং এনটিটি ডোকোমো ইনকরপোরেটেড, জাপান এর একটি যৌথ প্রতিষ্ঠান রবি আজিয়াটা লিমিটেড। রবি আজিয়াটা আগে টেলিকম মালয়েশিয়া ইন্টারন্যাশনাল (বাংলাদেশ) নামে পরিচিত ছিল। এ্যাকটেল ব্র্যান্ড হিসেবে ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশে এর যাত্রা শুরু হয়। ২০১০ সালের ২৮ মার্চ, এই সেবাটি ‘রবি’ ব্র্যান্ড হিসেবে অভিহিত হয়, এবং প্রতিষ্ঠানটি রবি আজিয়াটা লিমিটেড নামে পরিচিত হয়। আর এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের মালিক ভারতের টেলিকম জায়ান্ট ভারতী এয়ারটেল, যারা বাংলাদেশে ওয়ারিদ টেলিকমের ব্যবসা কিনে নিয়েছিল।

★ সোফিয়া রোবট সম্পর্কে সকল তথ্য

       
প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

 

Comments

Leave a Reply