পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলছেঃ হয়নি পরীক্ষা, ছিল ভাঙচুর-আটক

polytechnic issueপলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের দু’দফা দাবি নিয়ে কয়েকদিন ধরে চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে আজ রোববারও রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন জেলার সরকারি-বেসরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র-ছাত্রীরা বিক্ষোভ করেছেন। এসময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের খবর পাওয়া গেছে। এতে অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছেন। পটুয়াখালীতে পরীক্ষা বর্জন করে প্রশাসনিক ভবনে তালা লাগিয়ে ছাত্রদের বিক্ষোভের এক পর্যায়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে এবং পরবর্তীতে ১৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। নোয়াখালী, রাজশাহীতেও বিক্ষোভ ও অপ্রিতীকর পরিস্থিতির রিপোর্ট এসেছে। (ইমেজ ক্রেডিটঃ বাংলাটেক২৪ ডটকম পাঠক)

আজ রোববার সকাল ১০টা ও বেলা ২টা থেকে প্রথমবর্ষসহ বিভিন্ন বর্ষের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা আরম্ভ হওয়ার কথা ছিল।

ঢাকার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সকাল ৮টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত তেজগাঁও, শ্যামলী, মহাখালী ও মিরপুর-১০ এলাকায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

বাংলাদেশ কারিগরি ছাত্র পরিষদ (বাকাছাপ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক মো. জাকির হোসেনের বরাত দিয়ে প্রথম আলো জানাচ্ছে, ‘ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের ‘প্রকৌশলী’ হিসেবে ঘোষণা দেওয়া ও অন্যান্য পেশার সঙ্গে বেতনবৈষম্য দূর করার দাবিতে তাঁরা আন্দোলন করছেন। তিনি জানান, ডিপ্লোমা নার্স ও ডিপ্লোমা টেক্সটাইল প্রকৌশলীরা শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করার সময় মাসে ১১ হাজার টাকা ভাতা পান, কিন্তু তাঁরা পান ৫০০ টাকা। এ বৈষম্য দূর করার ব্যাপারে সরকারকে সুস্পষ্ট সিদ্ধান্ত দিতে হবে।’

কুমিল্লায় পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে সদর দক্ষিণ ইউএনও (উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা) ফাতেমা জাহানের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বিজয়পুর ইউনিয়ন পরিষদের ভূমি অফিসে হামলা চালিয়ে কাগজপত্র তছনছ করে বিক্ষোভকারীরা তাতে আগুন দেন এবং এসব ঘটনায় পুলিশসহ অন্তত ১৫-২০ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

পলিটেকনিক আন্দোলনের ব্যাপারে আপনি কী কী জানেন তা এখানে মন্তব্যের মাধ্যমে (সম্ভব হলে ছবি সহ) আমাদের সবার সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 3,266 other subscribers

Comments