মোবাইলের লক ভুলে গেলে কিভাবে খুলব

ভুলে যাওয়ার প্রবণতা কমবেশি আমাদের সবার জন্যই একটা বড় সমস্যা। আর মোবাইলের লক ভুলে গেলে তো সে মহাবিপদে পড়া গেলো! তবে ভালো খবর হলো, ফোনের প্যাটার্ন লক কিংবা পাসকোড ভুলে গেলেও বিশেষ কিছু টিপস অনুসরণ করে আবার ফোন ব্যবহার করা যাবে।

উল্লেখ্য যে আইফোন হোক কিংবা অ্যান্ড্রয়েড, ফোন আনলক বা রিসেট এর ক্ষেত্রে অবশ্যই ওই ফোনে লগিন থাকা অ্যাপল আইডি কিংবা গুগল অ্যাকাউন্ট এর প্রয়োজন পড়বে। চলুন জেনে নেয়া যাক, অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্যাটার্ন ও আইফোনের পাসকোড ভুলে গেলে কিভাবেআনলক বা রিসেট করবেন।

এন্ড্রয়েড ফোনের প্যাটার্ন লক ভুলে গেলে করণীয়

অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্যাটার্ন লক কিংবা পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে একাধিক উপায়ে ফোন আনলক বা রিসেট করা যায়। তবে যদি আপনি ফোন রিসেট করেন, তাহলে আপনার ফোনে থাকা সকল ডাটা মুছে যাবে। তাই আপনার ফোনে থাকা গুরুত্বপূর্ণ ডাটার ব্যাকাপ সবসময় রাখবেন।

তবে আপনি যদি আপনার ফোন নির্মাতার একাউন্টে দেয়া বিশেষ সার্ভিস ব্যবহার করেন তাহলে ফোন রিসেট না করে কোনো ডাটা না হারিয়েই প্যাটার্ন বা পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে পারবেন। এজন্য আপনার ফোনটি আগে থেকে ফোন নির্মাতার ক্লাউড সার্ভিসে যুক্ত থাকতে হবে।

যেমন, আপনি যদি স্যামসাং একাউন্টে আপনার স্যামসাং ফোন থেকে সাইন ইন করা থাকেন এবং এরপর ফোনের প্যাটার্ন লক ভুলে যান, তাহলে https://findmymobile.samsung.com/ ভিজিট করে আপনার আপনার ফোন আনলক করতে পারবেন।

শাওমি ফোনের মধ্যে মি একাউন্টে সাইন ইন করা থাকলেও শাওমি ফোনে এই সুবিধাটি পেতে পারেন। তবে এটা সব মডেলের ফোনে নাও থাকতে পারে। আপনার নিরাপত্তার জন্যই এমনটি করা হচ্ছে।

আরো জানুনঃ শাওমি মি একাউন্ট কি? Mi Account এর সুবিধা কি?

রিকভারি মোড

লক হয়ে যাওয়া এন্ড্রয়েড মোবাইল রিসেট করার সবচেয়ে জনপ্রিয় পদ্ধতি হচ্ছে রিকভারি মোড ব্যবহার করে লক হয়ে যাওয়া ফোন রিসেট করা। এতে ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজে থাকা সবকিছু মুছে যাবে। রিকভারি মোড ব্যবহার করে ফোন রিসেট করতেঃ

  • ফোন বন্ধ করুন
  • পাওয়ার বাটন ও ভলিউম আপ বাটন একই সাথে চেপে ধরুন
  • কিছুক্ষণ পর ফোন রিকভারি মোডে চালু হবে
মোবাইলের লক ভুলে গেলে কিভাবে খুলব - android recovery mode
  • প্রদর্শিত মেন্যু থেকে ভলিউম কি এর সাহায্যে নিচে স্ক্রল করুন ও পাওয়ার বাটন এর মাধ্যমে Wipe data / Factory Reset সিলেক্ট করুন
  • এরপর পরবর্তী নির্দেশনা অনুসরণ করে আপনার ফোন রিসেট করুন
  • ফোন রিসেট হয়ে হলে Reboot system এ ট্যাপ করে ফোন চালু করে রিসেট প্রসেস সম্পন্ন করুন

রিকভারি মোড এর মাধ্যনে ফোন রিসেট এর এই পদ্ধতিটি হার্ড রিসেট নামেও পরিচিত। এই প্রক্রিয়ায় ফোন রিসেট এর পর ফোনে থাকা সকল ডাটা, যেমনঃ ছবি, ফোন নাম্বার, অ্যাপ, ইত্যাদি মুছে যাবে। তবে মেমোরি কার্ড থাকলে তার ডাটা অক্ষত থাকবে।

গুগল ফাইন্ড মাই ডিভাইস – মোবাইলের লক ভুলে গেলে রিসেট করতে পারেন

২০১৫ সালের পরে তৈরী সকল অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে ফাইন্ড মাই ডিভাইস নামে ফিচারটি রয়েছে। এই ফিচার ব্যবহার করে মুলত চুরি হওয়া কিংবা হারিয়ে যাওয়া ফোন খুঁজে বের করা থেকে শুরু করে ফোনের ডাটা মুছার কাজ পর্যন্ত করা যায়। গুগল এর ফাইন্ড মাই ডিভাইস ব্যবহার করে ফোন রিসেট ও করা যায়।

আরো জানুনঃ গুগল ফাইন্ড মাই ডিভাইস ফিচার সম্পর্কে বিস্তারিত

উল্লেখ্য যে এই পদ্ধতিতে ফোন রিসেট করতে অবশ্যই আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ইন্টারনেটের সাথে ওয়াইফাই বা মোবাইল ডাটা দিয়ে কানেক্টেড থাকতে হবে। এই পদ্ধতিতেও আপনার ফোনের সকল ডেটা মুছে যাবে। ফাইন্ড মাই ডিভাইস ব্যবহার করে ফোন রিসেট করতেঃ

  • ডিভাইস মেন্যু থেকে Erase Device এ ক্লিক করুন
  • এরপর আপনার গুগল অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড দিন
  • সঠিকভাবে উল্লিখিত পদ্ধতি অনুসরণ করলে আপনার ফোন রিসেট হয়ে যাবে

আইফোনের পাসকোড ভুলে গেলে করণীয়

অনেকেই মনে করেন আইফোনের পাসকোড ভুলে গেলে তা রিসেট করা অনেক কঠিন। এমন কিন্তু না। আপনার আইক্লাউড একাউন্টের আইডি পাসওয়ার্ড জানা থাকলে খুব সহজেই কম্পিউটার বা ম্যাক ব্যবহার করে আইফোন রিসেট করতে পারবেন।

আরো জানুনঃ আইফোন কেন এত দামি ও জনপ্রিয়?

ফাইন্ড মাই আইফোন

ফাইন্ড মাই আইফোন ব্যবহার করে আইফোন রিসেট করতেঃ

  • ম্যাক চালিত কম্পিউটারে Find My অ্যাপ ওপেন করুন। অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করলে আইক্লাউড ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন
  • এরপর আপনার অ্যাপল আইডি দিয়ে লগিন করুন
  • উপরে থাকা Devices এ ক্লিক করুন কাংখিত ডিভাসটি সিলেক্ট করুন
মোবাইলের লক ভুলে গেলে কিভাবে খুলব
  • Erase iPhone এ ক্লিক করে আইফোন রিসেট করুন

এরপর যখন ফোন চালু করা হবে তখন আইফোন রিসেট হয়ে যাবে। পুনরায় ফোন চালু হওয়ার পর আইক্লাউড থেকে ব্যাকাপ নিয়ে কিংবা নতুন হিসেবেও ফোন সেটাপ এর অপশন বেছে নিতে পারেন। এরপরই নতুন পাসকোড সেট করতে পারবেন।

ফাইন্ডার

আপনার আইফোন যদি পূর্বে ম্যাক এর সাথে Sync করা থাকে, সেক্ষেত্রে খুব সহজেই আইফোন রিসেট করা যাবে। ম্যাক ব্যবহার করে আইফোন রিসেট করতেঃ

  • ম্যাক এর সাথে আইফোন ক্যাবল এর মাধ্যমে যুক্ত করুন
  • এরপর Finder এ প্রবেশ করুন সাইডবার এর Locations এর নিচে থাকা আপনার আইফোনটি সিলেক্ট করুন
  • এরপর General ট্যাব সিলেক্ট করুন
মোবাইলের লক ভুলে গেলে কিভাবে খুলব
  • Restore Backup এ ক্লিক করুন
  • এরপর আইক্লাউড ও ডিভাইসে থাকা সকল ব্যাকাপ দেখানো হবে, সেখান থেকে যেকোনো একটি সিলেক্ট করুন
  • এরপর আপনার ম্যাক এর পাসওয়ার্ড প্রদান করে Restore এ ক্লিক করুন।

আরো জানুনঃ আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ সম্পর্কে বিস্তারিত

আইটিউনস

আপনার কাছে যদি উইন্ডোজ বা লিনাক্স চালিত কম্পিউটার থাকে ও আপনি পূর্বে আইটিউনস এর সাথে আপনার আইফোন Sync করে থাকেন, সেক্ষেত্রে আইটিউনস ব্যবহার করেও আইফোন রিসেট করা যাবে। আইটিউনস ব্যবহার করে আইফোন রিসেট করতেঃ

  • কম্পিউটারের সাথে আইফোন ক্যাবল দিয়ে যুক্ত করুন
  • এরপর আইটিউনস এ প্রবেশ করুন
  • আপনি যদি এই ডিভাইসে আগে একই আইফোন দিয়ে কানেক্ট করে থাকেন, সেক্ষেত্রে আপনাকে কোনো পাসওয়ার্ড দিতে হবে না৷ তবে আপনি যদি আগে এই কম্পিউটারে আগে আইফোন কানেক্ট করে না থাকেন, সেক্ষেত্রে পাসওয়ার্ড চাওয়া হবে
  • এরপর আইটিউনস আপনার আইফোন এর সাথে Sync হবে
  • Restore Backup এ ক্লিক করুন
  • এরপর আইফোন রিসেট হয়ে যাবে
  • আইফোন রিসেট এর পর সেটাপ মেন্যুতে Restore from iTunes backup এ ক্লিক করে সদ্য নেওয়া ব্যাকাপ রিস্টোর করুন।

রিকভারি মোড

উপরোক্ত সকল পদ্ধতির একটিও যদি কাজ না করে, সেক্ষেত্রে রিকভারি মোডে আইফোন রিসেট করা ছাড়া আর কোনো উপায় থাকেনা। রিকভারি মোডে আইফোন রিসেট করতে প্রথমেই আইফোন বন্ধ করা বাধ্যতামুলক। আইফোনের মডেল ভেদে রিকভারি মোড এ প্রবেশের আলাদা পদ্ধতি রয়েছে। এখানে ক্লিক করে অ্যাপল এর অফিসিয়াল ডক থেকে বিস্তারিত জেনে নিন।

(নিচে সংক্ষেপে আংশিক কিছু স্টেপ দেয়া হল যাতে আপনি ধারণা পেতে পারেন।)

আপনার হাতের ডিভাসটি যদি আইফোন ৮ বা তার চেয়ে নতুন হয়, তাহলে ভলিউম আপ বাটন চেপে ধরে ছেড়ে দিন। এরপর ভলিউম ডাউন বাটন চেপে ধরে ছেড়ে দিন। এরপর পাওয়ার বাটন কিছুক্ষণ চেপে ধরে রাখলে আইফোন রিকভারি মোডে চালু হবে।

আপনার আইফোন যদি আইফোন ৭ সিরিজের হয়, সেক্ষেত্রে ভলিউম ডাউন বাটন ও পাওয়ার বাটন একই সাথে চেপে ধরে রাখুন। কিছুক্ষণ পর রিকভারি মোড এর স্ক্রিন দেখতে পাবেন।

আপনার আইফোন যদি আইফোন ৬এস কিংবা তার আগের মডেলের হয়, সেক্ষেত্রে হোম বাটন ও পাওয়ার বাটন চেপে ধরে রাখুন। কিছুক্ষণের মধ্যেই রিকভারি মোডের স্ক্রিন দেখতে পাবেন।

রিকভারি মোডে প্রবেশের পর আইফোন কম্পিউটারের সাথে ক্যাবল দিয়ে কানেক্ট করুন। এরপর ফাইন্ডার কিংবা আইটিউনস চালু করলেই আইফোন Restore বা Update এর একটি মেন্যু দেখতে পাবেন। Restore এ ক্লিক করে আইফোন রিসেটের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন। মনে রাখবেন, আপনার আইফোনে যদি আইক্লাউডের ফাইন্ড মাই ফিচার চালু থাকে তাহলে রিকভার করার সময় আপনার অ্যাপল আইডিতে সাইন ইন করতে হবে। অন্যথায় আইফোন রিসেট করা যাবেনা।

ভবিষ্যতে ফোন লক হওয়া ঠেকাতে করণীয়

লক হওয়া আইফোন কিংবা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল কিভাবে রিসেট করা যায়, তা আমরা জানলাম। যদি ব্যাকআপ না থাকে, তাহলে রিসেট করে ফোন পুনরায় ব্যবহার করা গেলেও ফোনে থাকা আগের সকল তথ্য মুছে যায়। তাই চেষ্টা করুন পাসওয়ার্ড ভুলার কারণে ফোন লক হওয়া ঠেকাতে। কথায় আছে, প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ ভালো। তাই অবশ্যই আগে থেকেই সাবধানতা অবলম্বন করা একান্ত প্রয়োজন।

ফোনের প্যাটার্ন কিংবা পাসকোড সম্পর্কিত কিছু কার্যকরী টিপস হলোঃ

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,570 other subscribers

  • আপনার প্যাটার্ন কিংবা পাসকোড নিরাপদ কোথাও লিখে রাখতে পারেন
  • আপনার মনে থাকবে, এমন সহজ কিন্তু অন্যদের কাছে দু্র্ভেদ্য প্যাটার্ন বা পাসকোড সেট করুন
  • আপনার আইফোন কিংবা অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অবশ্যই অ্যাপল আইডি কিংবা গুগল অ্যাকাউন্ট দিয়ে লগিন করুন
  • কোনো ক্রমেই অ্যাপল আইডি ও গুগল একাউন্টের পাসওয়ার্ড বা এক্সেস হারানো চলবে না, তাহলেই বিপদ
  • সম্ভব হলে নিয়মিত আপনার ফোনে থাকা ডাটার ব্যাকাপ নিয়ে রাখুন

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.