আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ সম্পর্কে বিস্তারিত

আইফোন ব্যাটারি হেলথ অনেক আলোচিত একটি বিষয়। এটা নিয়ে প্রচুর মাতামাতি হলেও রয়েছে বেশ কিছু ধোঁয়াশা। অ্যাপল তাদের আইফোন ৬ ও পরের মডেলের আইফোনগুলোতে আইওএস ১১.৩ এর সাথে ব্যাটারি হেলথ টুল যুক্ত করে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক অ্যাপল এর আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ কি?

আইফোন ব্যাটারি এর অবস্থা কেমন, তা জানার উপায় হচ্ছে ডিভাইসটির ব্যাটারি হেলথ চেক করা। একটি ফোনের সর্বোচ্চ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি সময়ের সাথে সাথে কমতে থাকে। নতুন আইফোনের ব্যাটারির হেলথ ১০০% হয়ে থাকে। ব্যবহারের সাথে সাথে এই ব্যাটারি হেলথ ধীরে ধীরে কমে যেতে থাকে। ব্যাটারি হেলথ কমার সাথে সাথে ফোনের সর্বোচ্চ পারফরম্যান্স ডেলিভার করার ক্ষমতাও ধীরে ধীরে কমতে থাকে।

আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ চেক করার নিয়ম

যে কেউ খুব সহজে আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ চেক করতে পারে বা ব্যাটারি হেলথ দেখতে পারে। আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ চেক করতেঃ

  • Settings এ প্রবেশ করুন
how-to-check-iphone-battery-health-1
  • স্ক্রল করে Battery তে ট্যাপ করুন
how-to-check-iphone-battery-health-2
  • Battery Health এ ট্যাপ করুন
আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ সম্পর্কে বিস্তারিত

এরপর Maximum Capacity লেখার পাশে আপনার ব্যাটারি হেলথ কত শতাংশ, সেটি প্রদর্শিত হবে। এখানে আইফোন ব্যাটারি হেলথ কত সেটার পাশাপাশি আপনার আইফোনের ব্যাটারির সর্বোচ্চ পারফরম্যান্স ক্ষমতা সম্পর্কেও জানতে পারবেন। ব্যাটারি হেলথ মুলত ফোন কেনার সময় ফোনের ব্যাটারির অবস্থার সাথে বর্তমান ব্যাটারির অবস্থাকে তুলনা করে একটি শতাংশ হারে ব্যাটারির অবস্থা প্রদর্শন করে।

আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ কি নির্দেশ করে?

আইফোন এর ব্যাটারি হেলথ মেন্যুতে একটি শতকরা ব্যাটারি হেলথ দেখানো হয় যা আপনার আইফোনের ব্যাটারির ম্যাক্সিমাম ক্যাপাসিটি নির্দেশ করে। চলুন জেনে নিই আপনার ব্যাটারি হেলথ আপনার ফোনের ব্যাটারি সম্পর্কে কি নির্দেশ করে।

আপনার ব্যাটারি হেলথ ১০০% হলে বুঝতে হবে আপনার ব্যাটারি বর্তমানে সেরা ও সচরাচর পারফরম্যান্স স্টেজে আছে। ১০০ এর চেয়ে কমলে বুঝতে হবে এটি এখন আগের চেয়ে কিছুটা কম ব্যাকআপ দিবে।

৭৯% বা তার চেয়ে যদি কম ব্যাটারি হেলথ প্রদর্শিত হয়, সেক্ষেত্রে আপনার আইফোন এর ব্যাটারি রিপ্লেস এর চিন্তা করতে পারেন। সবসময় অথোরাইজড অ্যাপল কেয়ার থেকে ব্যাটারি রিপ্লেস করুন। এছাড়াও Unknown ব্যাটারি হেলথ ও প্রদর্শন করা হয় ব্যাটারি হেলথ মেন্যুতে, যা অ্যাপল সার্ভিস সেন্টারে নিয়ে ঠিক করতে হয়।

আরো জানুনঃ আইফোন কেন এত দামি ও জনপ্রিয়?

আইফোনের ব্যাটারি হেলথ খুব বেশি কমে গেলে ফোন হঠাত বন্ধ হয়ে যেতে পারে বা রিস্টার্ট নিতে পারে। (পাওয়ার বাটন চেপে ফোন পুনরায় চালু করতে পারবেন)। মূলত তখন ব্যাটারিটি ফোনের পারফরমেন্স অনুযায়ী যথেষ্ট বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারেনা। এরপর ফোন কিছুটা স্লো হয়ে যায়। আসলে এজন্যই পুরাতন আইফোনের স্পিড কমিয়ে দেয় অ্যাপল। তখন সেটা আপনার ব্যাটারি হেলথ স্ক্রিনে বলে দেওয়া হয় যে এটি এখন আর পিক বা সর্বোচ্চ পারফরমেন্স সাপোর্ট করেনা। এমতাবস্থায় ব্যাটারি পরিবর্তন করাই উত্তম।

আইফোন এর চার্জিং সম্পর্কে ভুল ধারণাসমুহ

আইফোন এর ব্যাটারি ও ব্যাটারি চার্জ করা সম্পর্কে অনেকেই অনেক রকমের তথ্য দিয়ে থাকেন। এর মধ্যে কিছু তথ্য সঠিক হলেও প্রচুর ভুল ধারণাও রয়েছে। ফোন চার্জ করার সম্পর্কে উল্লেখযোগ্য কিছু প্রচলিত ভুল ধারণা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

রাতের বেলা ফোন চার্জে দিয়ে ঘুমানো ঠিক না – এই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। আপনার আইফোন ওভারচার্জ হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই, কেননা ফোনের চার্জিং সিস্টেমে এমন নিরাপত্তা সেট করা দেওয়া আছে। তাই আপনি চাইলেই নিশ্চিন্তে রাতের বেলা আপনার আইফোন চার্জে দিয়ে ঘুমাতে পারেন। তবে ঘুমানোর সময় চার্জ দিয়ে ফোনটি বিছানায় নিজের কাছে না রেখে টেবিলে রেখে দিতে পারেন।

ফোনের চার্জ সম্পূর্ণভাবে শেষ হয়ে না গেলে চার্জে দেওয়ার প্রয়োজন নেই – এই ধারণাটিওভুল। একটি ফোন একবার শূণ্য থেকে ১০০% সম্পূর্ণ চার্জ করলে ব্যাটারির একটি সাইকেল সম্পন্ন হয়। আবার একটি লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির চার্জিং সাইকেলই ৫০০ বারের মত। তাই ফোন একদম শূন্য থেকে চার্জ করার ক্ষেত্রে ব্যাটারির সাইকেল দ্রুত শেষ হয়।

ফলস্বরুপ, সময়ের আগেই ব্যাটারি ডিগ্রেড হয়ে যায় ও আশানুরুপ ব্যাটারি ব্যাকাপ পাওয়া যায়না। এছাড়া ব্যাটারির ভালো পারফর্মেন্স নিশ্চিত করার জন্য ফোনের চার্জ ৩০-৪০ শতাংশের দিকে এলেই একে চার্জ করা উত্তম।

আরো জানুনঃ স্মার্টফোনের ব্যাটারি ভাল রাখার উপায়

ফোন চার্জে দিয়ে ব্যবহার করা উচিত নয় – এই ধারণাটি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ভুল। ফোন চার্জে লাগিয়ে ব্যবহার করলে ফোনের চার্জ কিছুটা আস্তে হয়, কিন্তু এতে ব্যাটারির আহামরি কোনো ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকেনা। তবে পাওয়ার বেশি প্রয়োজন, এমন কাজ ফোন চার্জে লাগিয়ে করলে ব্যাটারির উপর চাপ পড়তে পারে। এসময় ফোন গরম হয়ে যেতে পারে। আপনার ফোনে যদি কোনো সমস্যা থাকে তাহলে এটা আপনার ফোনের জন্য নিরাপদ নাও হতে পারে। তাই ব্যাটারি যে কয়েক ঘন্টায় চার্জ হয়, সে সময়ে ফোন ব্যবহার না করতে পারাটাই উত্তম।

আইফোন এর ব্যাটারি ভালো রাখার উপায়

আইফোন এর ব্যাটারি ভালো রাখতে ও বেশি ব্যাটারি ব্যাকাপ পেতে চাইলে কিছু পন্থা অবলম্বন করতে পারেন। এমন কিছু ব্যাটারিবাঁচানোর ও ব্যাটারি ভালো রাখার কার্যকরী উপায় নিচে দেওয়া হলো।

Optimized Battery Charging ফিচার চালু রাখুন। আপনি যদি ব্যাটারি হেলথ মেন্যুতে খেয়াল করেন, তাহলে স্ক্রিনের নিচের দিকে অপটিমাইজড ব্যাটারি চার্জিং ফিচারটি দেখতে পারবেন। এর কাজ হচ্ছে আপনার নিয়মিত চার্জিং প্যাটার্ন লক্ষ্য করা এবং সেই অনুযায়ী ফোনটি ১০০% চার্জ করা।

অপটিমাইজড ব্যাটারি চার্জিং ফিচারটি অনুমান করে যে আপনি চার্জ থেকে খুলে কখন ফোনটি ব্যবহার শুরু করবেন। সেই সময়ের ঠিক আগে ফোনটি ১০০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ হবে। এর আগে নয়। ফলে ফোনের ব্যাটারি লাইফ আরো দীর্ঘস্থায়ী হবে। এ ব্যাপারে আরো বিস্তারিত আলোচনা করে একটি পোস্ট দেয়ার প্রত্যাশা রইল। আশা করি আমাদের ফলো করে সাথেই থাকবেন

Background App Refresh ফিচারটি ফোন ব্যবহার না করলেও ফোনের ব্যাটারি ব্যবহার করে ব্যাকগ্রাউন্ডে সকল অ্যাপকে রিফ্রেশ করে থাকে। Settings অ্যাপ এ গিয়ে General থেকে Background App Refresh অপশনে গিয়ে বন্ধ করা যাবে এই ফিচার।

অটোমেটিক অ্যাপ আপডেটের কারণেও অনেক সময় অজান্তেই আইফোনের ব্যাটারি খরচ হতে দেখা দেয়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে Settings অ্যাপে প্রবেশ করে নিচের দিকে স্ক্রল করে iTunes & App Store অপশন থেকে Updates এ গিয়ে আপডেট অফ করে দিন।

সিরি’র দ্বারা আইফোনে বিভিন্ন অ্যাপ সাজেশন দেখানো হয়। এসব অ্যাপ সাজেশন প্রদানে আইফোনকে আপনার লোকেশন ডাটা ও অ্যাপ স্টোর অ্যাকসেস করতে হয়, যার ফলে বেশি ব্যাটারি খরচ হয়। তাই সিরি অ্যাপ সাজেশন ফিচারটি বন্ধ রাখাই শ্রেয়। ফিচারটি বন্ধ করতে Settings অ্যাপ থেকে Siri & Search এ প্রবেশ করে Siri Suggestions সেকশন থেকে একে একে সকল সিরি সাজেশন অপশন বন্ধ করে দিন।

আইফোনের ক্ষেত্রে এম্বিয়েন্ট লাইট সেন্সর ব্যবহার করে আইফোন প্রয়োজনীয় ব্রাইটনেস ঠিক করতে পারে। অটো-ব্রাইটনেস ফিচারটি চালু রাখাই ব্যাটারির ক্ষেত্রে উত্তম। Settings অ্যাপে প্রবেশ করে Accessibility মেন্যুতে প্রবেশ করে Display & Size এ ট্যাপ করে অটো-ব্রাইটনেস ফিচারটি চালু করতে পারবেন।

আইফোনের ব্রাইটনেস ও কিন্তু আইফোনের ব্যাটারিতে দারুণ প্রভাব ফেলে। তাই দরকার না হলে আপনার আইফোনের ব্রাইটনেস কমিয়ে ব্যবহার করা চেষ্টা করুন।

এনিমেশন ও মোশন এর কারণেও আইফোনে উল্লেখযোগ্য হারে চার্জ কাটে। মোশন ও এনিমেশন বন্ধ করা যাবে Settings অ্যাপে প্রবেশ করে Accessibility মেন্যুতে থাকা Reduce Motion অপশনটি অন করে।

যখনই আপনার ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, কিংবা ডাটা ব্যবহারের প্রয়োজন হয় না, তখন অযথা এসব সার্ভিস চালু করে রাখবেন না। কোনো কারণ ছাড়াই এসব সার্ভিস চালু রাখার ফলে উল্লেখযাগ্য হারে ফোনের চার্জ খরচ হয়। ওয়াইফাই, ব্লুটুথ ও মোবাইল ডাটা আপনার আইফোনের কনট্রোল প্যানেল থেকে বন্ধ করতে পারবেন যা যেকোনো সময় স্ক্রিনের ডান পাশে উপর দিক থেকে নিচের দিকে সোয়াইপ করলে প্রদর্শিত হয়।

ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, কিংবা ডাটা এর পাশাপাশি হটস্পট ও দরকার না হলে সেটিও বন্ধ রাখুন। আইফোনের হটস্পট বন্ধ করতে Settings অ্যাপে প্রবেশ করে Personal Hotspot মেন্যুতে প্রবেশ করে Personal Hotspot সুইচ অফ করে দিন।

Settings অ্যাপে প্রবেশ করে কিছুটা নিচের দিকে স্ক্রল করে Battery সেকশনে প্রবেশ করলে আপনার আইফোনে কোন অ্যাপ কতক্ষণ ব্যবহার করছেন ও কোন অ্যাপ কত চার্জ কেটে নিচ্ছে, তার বিবরণ পেয়ে যাবেন। উল্লেখযোগ্য হারে যেসব অ্যাপ ব্যবহার ছাড়াই চার্জ কেটে নিচ্ছে বলে আপনার দৃষ্টিগোচর হচ্ছে, সেসব অ্যাপ ব্যবহার না করাই উত্তর।

লোকেশন সার্ভিস ও উল্লেখযোগ্য হারে ফোনের চার্জ কেটে নেয়। Settings অ্যাপ থেকে Privacy মেন্যুতে প্রবেশ করে Location Services এ প্রবেশ করে Location Services বন্ধ করে দিন। এছাড়াও Privacy মেন্যুতে থাকা Location Services এ থাকা Sytem Services অপশনে প্রবেশ করেও অন্যান্য লোকেশন শেয়ারিং অ্যাপ দেখা ও ডিসেবল করা যায়।

আপনার আইফোনে যখনই সাধারণ কাজ করেন, যা করতে অতিরিক্ত পাওয়ার লাগেনা, তখনই Low Power Mode ব্যবহার করতে পারেন। এতে ব্যাটারি ব্যাকাপ ভালো পাওয়া যায়। Low Power Mode মূলত অপ্রয়োজনীয় সব সার্ভিস বন্ধ রেখে ফোনের ব্যাটারি ব্যাকাপ বাড়িয়ে দেয়। Settings অ্যাপ এর Battery সেকশন থেকে Low Power মোড অন করতে পারবেন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,570 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.