এটিএম কার্ড কি? এর সুবিধা-অসুবিধা ও বিস্তারিত জানুন

প্রযুক্তির প্রতিনিয়ত উন্নতির সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশের ব্যাংকিং সেক্টরও দিন দিন আরো উন্নতির দিকে যাচ্ছে। আগের দিনে লেনদেন এর ক্ষেত্রে নগদ অর্থ ছিলো মূল ভরসা। কিন্তু বর্তমানে ক্যাশলেস লেনদেন করার মাধ্যমে মানুষের অর্থ সম্পদ আরো নিরাপদ থাকছে।

এটিএম কার্ড হলো ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের খুবই সহজ একটি মাধ্যম। দেশের যেকোনো জায়গা থেকে এটিএম কার্ড ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করে লেনদেন করা সম্ভব। আমাদের দেশে এখনো অনেকেই আছেন যারা জানেন না এটিএম কার্ড কি, কিভাবে এটিএম কার্ড তোলা যাবে বা এর সুবিধা অসুবিধা গুলো কি। আজকের আর্টিকেলে আমরা এটিএম কার্ড সম্পর্কে সকল কিছু বিস্তারিত ভাবে জানবো।

এটিএম কার্ড কি?

এটিএম কার্ড হলো এমন একটি কার্ড যার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যাংকের বা সাপোর্টেড যে কোনো এটিএম বুথ থেকে পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তে বসে লেনদেন করতে পারবেন। অনেক সময় পকেটে ক্যাশ টাকা নিয়ে চলাফেরা করা বিপদজনক হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ATM কার্ড ব্যবহার করে আপনার প্রয়োজন মতো টাকা তুলে খরচ করতে পারেন। মূলত একাউন্টের সাথে যুক্ত ডিজিটাল ব্যাংক কার্ডগুলোকেই বলা হয় এটিএম কার্ড।

এটিএম মেশিন কি?

এটিএম কার্ড এবং এটিএম মেশিন আলাদা দুইটি জিনিস হলেও আমাদের মধ্যে অনেক মানুষ আছে যারা এই দুটিকে একই মনে করে। কিন্তু আক্ষরিক অর্থে এটিএম কার্ড ও এটিএম মেশিন সম্পূর্ণ আলাদা জিনিস। এটিএম কার্ড মূলত ছোট্ট একটি কার্ড যার মধ্যে একটি নির্দিষ্ট চিপ থাকে। অন্যদিকে এটিএম বুথের মধ্যে টাকা তোলার জন্য যে সকল মেশিন থাকে সেগুলোকে বলা হয় এটিএম মেশিন। ATM বলতে মূলত অটোমেটেড টেলার মেশিন বোঝানো হয়। এই মেশিনটি অনলাইনে ব্যাংকের সাথে কানেক্ট করা থাকে। এর মধ্যে নগদ টাকার নোট থাকে। কম্পিউটারের মাধ্যমে এটিএম মেশিন নিয়ন্ত্রণ করা হয়। 

এটিএম কার্ড কয় প্রকার?

এই কার্ডকে প্রধানত দুই ভাগে ভাগ করা যায়। একটি হলো ক্রেডিট কার্ড আরেকটি হল ডেবিট কার্ড। এই দুইটি কার্ডের কাজের ধরন ভিন্ন রকম হয়ে থাকে। যে কার্ডের মাধ্যমে আপনি আপনার জমাকৃত টাকার বাইরে অতিরিক্ত পরিমাণ টাকা লেনদেন করতে পারবেন সেই কার্ডকে বলা হয় ক্রেডিট কার্ড। এই কার্ডে মূলত ব্যাংক থেকে আরও অতিরিক্ত টাকা ধার হিসেবে নেওয়া যায়। অন্যদিকে ডেবিট কার্ড হলো এমন একটি কার্ড যার মাধ্যমে আপনার ব্যাংক একাউন্টে যত পরিমান টাকা আছে আপনি শুধুমাত্র ততই খরচ করতে পারবেন। ক্রেডিট কার্ডে যে অতিরিক্ত টাকা ধার নেওয়ার সুবিধা আছে সেটি ডেবিট কার্ডে পাওয়া সম্ভব নয়। তবে ক্রেডিট কার্ড দিয়ে এটিএম বুথ থেকে টাকা তুললে অনেক বাড়তি চার্জ দিতে হয়।

atm card booth

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

এটিএম কার্ডের কাজ কি?

এটিএম কার্ড হলো এমন এক ধরনের আধুনিক প্রযুক্তি যে আয়তনের দিক থেকে অনেক ক্ষুদ্র এবং সেটা দিয়ে আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করতে পারবেন। আগের দিনে ব্যাংকের সামনে লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থেকে টাকা উত্তোলন বা জমা করতে হতো। এখন সেটি এটিএম বুথে দিন রাত ২৪ ঘন্টার মধ্যে যখন খুশি তোলা সম্ভব হবে। 

কিভাবে এটিএম কার্ড পাওয়া যাবে?

এটিএম কার্ড পাবার জন্য একজন গ্রাহককে নির্দিষ্ট কিছু উপায় অবলম্বন করতে হয়। সেগুলো হলো –

  • সবার আগে দেশের মধ্যে থাকা যেকোনো ধরনের সাপোর্টেড ব্যাংক একাউন্ট খুলতে হবে। 
  • এরপর সেই ব্যাংক থেকে একটি এটিএম কার্ড সংগ্রহ করতে হবে। 
  • এই কার্ড নেওয়ার সময় আপনার অনেক প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট ব্যাংকে জমা দিতে হবে। ব্যাংকে প্রয়োজন ডকুমেন্ট না দিতে পারলে এটিএম কার্ড নেওয়া সম্ভব হবে না । 
  • যখন ব্যাংক থেকে আপনাকে একটি এটিএম কার্ড দেওয়া হবে তখন আপনি সেটা এক্টিভ করে ওই কার্ডের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করতে পারবেন। 

ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার পরে ব্যাংক একাউন্টের সাথে এটিএম কার্ড সংযুক্ত করতে চাইলে অবশ্যই ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে নিতে হবে। বিভিন্ন ব্যাংকের কাজের ধরন বিভিন্ন রকম হয় বিধায় ব্যাংকে কর্মরত ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বলে সেই অনুযায়ী কাজ করা সবচেয়ে উত্তম। 

এটিএম কার্ড ব্যবহার করে টাকা তোলার উপায়

এটিএম কার্ড ব্যবহার করে টাকা তোলা অত্যন্ত সহজ এবং নিরাপদ। এটিএম কার্ড থেকে টাকা তোলার জন্য নিম্নলিখিত উপায় গুলো অনুসরণ করতে হবে –

  • আপনার ব্যাংক একাউন্টের নির্দিষ্ট এটিএম বুথে যেয়ে যে কোনো একটি এটিএম মেশিনের সামনে দাড়াতে হবে। 
  • সেই মেশিনে আপনার এটিএম কার্ডটি প্লেস করে নিরাপত্তা পিন এন্টার করে ক্যাশ আউট করবেন নাকি ক্যাশ ইন করবেন সেই অপশন টি সিলেক্ট করতে হবে।
  • এবার কত টাকা লেনদেন করবেন সেটি টাইপ করতে হবে। 
  • ব্যাংক আপনাকে এটিএম কার্ড দেওয়ার সময় একটি গোপন পিন কোড দিয়ে থাকবে। এই কোডটি খুবই ই গুরুত্বপূর্ণ এবং আপনি ছাড়া অন্য কেউ যাতে এই কোডটি না জানে সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। 
  • সম্পূর্ণ প্রসেস কমপ্লিট হওয়ার পরে আপনার কার্ডটি আবার মেশিন থেকে বের হয়ে যাবে। খেয়াল রেখে সংগ্রহ করে নিন। 

এভাবে আপনি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা এটিএম কার্ডের মাধ্যমে উত্তোলন করতে পারবেন। এটিএম কার্ড দিয়ে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা উত্তোলন করা যায়। তবে এই টাকার পরিমাণ বিভিন্ন ব্যাংক ভেদে বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। সেজন্য এটিএম কার্ড দিয়ে আপনি কত টাকা উত্তোলন করতে পারবেন সেই বিষয়ে আপনার ব্যাংকের নীতিমালা সম্পর্কে জেনে নেওয়া উচিত। 👉 এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলার নিয়ম জানুন। আরও জানুনঃ 👉 এটিএম বুথে কার্ড আটকে গেলে করণীয়

এটিএম কার্ডের সুবিধা 

এসকল কার্ড ব্যবহারের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। তবে সবার ক্ষেত্রে এই সুবিধা গুলো একই মনে নাও হতে পারে। এটিএম কার্ডের কিছু সুবিধা নিম্নে দেওয়া হল –

  • ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে আপনি খুব সহজে লেনদেন করতে পারবেন। 
  • এই কার্ড ব্যবহার করার ফলে আপনাকে নগদ অর্থ একসাথে বহন করতে হবে না। আপনি চাইলে প্রচুর পরিমাণ অর্থ কার্ডের মধ্যে নিয়ে ঘুরতে পারবেন। 
  • এটিএম কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন শপিং মল, অনলাইন মার্কেটপ্লেস, বিল পেমেন্ট সহ আরো বিভিন্ন ধরনের কাজ সম্পন্ন করা যাবে। 
  • সপ্তাহে সাত দিন দিনে বা রাতে ২৪ ঘন্টা এটিএম বুথ থেকে টাকা জমা বা উত্তোলন করা যাবে। 

এটিএম কার্ডের অসুবিধা 

যার সুবিধা রয়েছে তার অসুবিধাও রয়েছে। এই কার্ডের অসুবিধা গুলো হলো-

  • এটিএম এর ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে আপনি টাকা লেনদেন করার জন্য ব্যাংকের কাছে ঋণী হয়ে যাবেন। 
  • আপনার কার্ডের গোপন পিন নাম্বার যদি কেউ জেনে যায় ও কার্ড পেয়ে তাহলে তারা কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন করতে পারবে। 
  • প্রতিবছর এটিএম কার্ডের জন্য ব্যাংকে নির্দিষ্ট পরিমাণ চার্জ প্রদান করতে হয়।

বর্তমানে আধুনিকায়নের যুগে এটিএম কার্ড মানুষের জীবন জীবিকা আরো সহজ করে তুলছে। এটিএম কার্ডের সঠিক ব্যবহার করা হলে এটিএম কার্ড অত্যন্ত কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে। এটিএম কার্ড সম্পর্কে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারবেন। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন রকম তথ্য ও টিপস পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েবসাইটে। 

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,572 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *