স্টিভ জবসের উদ্ভাবনগুলো কি সত্যি সত্যিই “অচল বা সেকেলে” হয়ে গেছে?

অ্যাপলের সিইও পদ থেকে ইস্তফা দেয়ার সময় স্টিভ বলেনঃ Unfortunately, that day has come....সপ্তাহখানেক আগে ইংরেজি পত্রিকা ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে অ্যাপল প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জবসের একটি পূর্বে অপ্রকাশিত ভিডিও ইন্টারভিউ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। “এভরি স্টিভ জবস ভিডিও” নামের এক ইউটিউব প্রোফাইল থেকে ১ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড ব্যপ্তিকালের ঐ ক্লিপটি পোস্ট করা হয়েছে। ১৯৯৪ সালে এই সাক্ষাৎকারটি ধারণ করা হয়েছিল এবং এবারই প্রথম তা জনসম্মুখে আসে।

ঐ ভিডিওতে দেখা যায়, মিঃ জবস বলছেন, প্রযুক্তিক্ষেত্রে সকল আবিষ্কারই কয়েক বছরের মধ্যে পুরাতন বা সেকেলে হতে বাধ্য। একের পর এক নতুন উদ্ভাবন এবং ক্রমবর্ধমান চাহিদাই এর মূল কারণ।

“এটি এমন কোন ক্ষেত্র নয় যেখানে কেউ কোন ছবি আঁকবে এবং শতাব্দী ধরে মানুষ সেটি দেখতে থাকবে”

১৯৯৪ সালে, যখন স্টিভ জবসের বয়স ছিল মাত্র ৩৯, তখন ঐ ইন্টারভিউতে তিনি বলেন, “আমার বয়স যখন ৫০ বছর হবে, আমার সারা জীবনের সব কাজ তখন সেকেলে হয়ে যাবে”;

“এটি (প্রযুক্তি বিশ্ব) এমন একটি জায়গা যেখানে কেউ এমন কোন নীতি রচনা করেনা যা ২০০ বছর ধরে প্রচলিত থাকবে। এটি এমন কোন ক্ষেত্র নয় যেখানে কেউ কোন ছবি আঁকবে এবং শতাব্দী ধরে মানুষ সেটি দেখতে থাকবে, অথবা এমন কোন গীর্জাও কেউ নির্মান করবেনা যা শত শত বছর ধরে মানুষের প্রশংসা পাবে এবং সবাই এটিকে অবাক হয়ে দেখতে থাকবে। না…… এটি এমন এক স্থান যেখানে প্রত্যেকে নিজের কাজটুকু করে ও বছর দশেকের মধ্যে তা হারিয়ে যায় এবং সত্যি সত্যিই ১০ বা ২০ বছর পর সেগুলোকে আর ব্যবহার করা যায় না”; “নাহ… এটা নবজাগরণের মত কোন বিষয় নয়, বরং তা থেকে আলাদা”;

“পলি জমে জমে যেমন পাহাড় হয়, এটিও তেমন। আপনারা সবাই মিলে এক পাহাড় গড়ে তুলছেন, সেখানে আপনি আপনার পলিটুকু দিলেন। এভাবে ওই পাহাড়টিকে আরও উঁচু করলেন। কেউ যদি নিখুঁত চোখে না দেখে, তবে আপনার অবদানটি তার চোখেই পরবে না। কেবল বিরল কোন ভূতাত্ত্বিকদের চোখেই আপনার পলিটুকু ধরা দিতে পারে”;

২০১১ সালে ৫৬ বছর বয়সে ক্যান্সারে আক্রান্ত স্টিভ জবস পৃথিবী ছেড়ে চলে যান। তার বিদায়ে অসংখ্য মানুষ শোকে মুহ্যমান হয়ে পরেন। যদিও স্টিভের সকল আবিষ্কার এখন আর ব্যবহৃত হচ্ছে না, তবে তার উদ্বেগ অনুযায়ী সবগুলোই কিন্তু “অচল”ও হয়ে যায়নি। অন্তত আইফোন, আইপ্যাড, আইক্লাউড প্রভৃতি পণ্য/সেবা স্টিভ জবসের কথা আরও অনেক দিন আমাদের স্মরণে রাখবে।

আলোচিত সেই ভিডিওটি এখানে দেখুনঃ

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,723 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.