ফেসবুকে এলো “ভেরিফাইড পেজ ও প্রোফাইল”

verified facebook pageসোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকে কতশত পেইজ এবং প্রোফাইলই তো আমরা দেখে থাকি। কিন্তু এগুলোর সবই কি আসল? এর মধ্যে কোন কোন আইডি রয়েছে ফেইক, যারা অন্য আরেকজনের নাম ব্যবহার করে ফেসবুকে একাউন্ট খুলে সেই নামেই পরিচিত হচ্ছে। বিশেষ করে সেলিব্রেটি বা সুপরিচিত “পাবলিক ফিগার” ব্যক্তিবর্গের নাম নিয়ে এ ধরণেরর ভুয়া প্রোফাইল বেশি তৈরি হয়। একই ব্যাপার ঘটছে ফ্যানপেজের ক্ষেত্রেও।

অনেকেই জনপ্রিয় ব্র্যান্ড থেকে শুরু করে সেলিব্রেটিদের নাম নিয়ে একের পর এক ফেসবুক পেজ খুলে যাচ্ছেন। আর সাধারণ ফেসবুকাররা সেসব পেজে লাইক দিচ্ছেন। এতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা ব্র্যান্ডের অফিসিয়াল তথ্য প্রচারের চেয়ে গুজব ছড়ানোর আশংকা বেড়ে যায়। আর এসব রুখতে ফেসবুক চালু করেছে “ভেরিফাইড পেজ ও প্রোফাইল”, যা আপনাকে সঠিক ফেসবুক পেইজ এবং প্রোফাইলের সন্ধান দেবে। টুইটারগুগল প্লাসে এ ধরণের সুবিধা আগে থেকেই চালু থাকলেও ফেসবুকে ফিচারটি একদমই নতুন।

কীভাবে চিনবেন ভেরিভাইড পেইজ বা প্রোফাইল? হুম, খুবই সময়োপযোগী প্রশ্ন! ফেসবুকের পক্ষ থেকে যেসব ফ্যানপেজ বা ব্যক্তি প্রোফাইলকে “ভেরিফাইড” স্ট্যাটাস প্রদান করা হবে তাদের নামের পাশে টিকচিহ্নযুক্ত একটি ছোট নীল বৃত্ত দেখা যাবে। নীল রঙের সেই ব্যাজের ওপর মাউস পয়েন্টার রাখলেই একাউন্ট অথেনটিকেশন সঙ্ক্রান্ত তথ্য প্রদর্শিত হবে।

শুধুমাত্র বড় সংখ্যক ফ্যান/ফলোয়ার সমৃদ্ধ সুপরিচিত পেজ ও প্রোফাইলেই ভেরিফিকেশন ব্যাজ পাওয়া যাবে। সুতরাং, সকল “আসল” পেইজ/প্রোফাইলই ভেরিফাইড স্ট্যাটাস পাবেনা। এবং আপনি আপনার নিজের প্রোফাইল বা ফ্যানপেজের ভেরিফিকেশন চেয়ে আবেদনও করতে পারবেন না। কোম্পানিটি নিজ থেকেই এই ব্যাজ প্রদান করবে। ঠিক কীভাবে এই ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হবে সে ব্যাপারে কোন তথ্য দেয়নি ফেসবুক। তবে আপনি যদি এগুলো নিয়ে কোন সন্দেহ পোষণ করেন, তাহলে রিপোর্ট করার দরজা খোলাই আছে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,256 other subscribers

Comments