টাইমলাইন নিয়ে মামলায় সমঝোতায় গেল ফেসবুক

facebook timelineফেসবুকে ব্যবহারকারী প্রোফাইলের বর্তমান নাম “টাইমলাইন” নিয়ে অন্য একটি কোম্পানির সাথে বেশ কিছুদিন আগে থেকেই আইনী লড়াই চলে আসছিল। ২০১১ সালে ফেসবুক প্রথমবারের মত যখন শব্দগুচ্ছ ব্যবহার শুরু করে তখনই ট্রেডমার্ক লঙ্ঘন সঙ্ক্রান্ত অভিযোগপত্র দাখিল করে “টাইমলাইন ইনকর্পোরেশন” নামের ঐ প্রতিষ্ঠান। এরপর, কোর্টে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং জায়ান্ট “টাইমলাইন” শব্দটির “সাধারণ” ব্যবহারনীতির বৈধতা প্রমাণে ব্যর্থ হয় এবং এটি তাদের একটি “পণ্য/ সেবা” হিসেবে গণ্য হয়।

সহজ কথায়, প্রাথমিকভাবে মামলাটিতে এক প্রকার হেরেই গিয়েছিল ফেসবুক। দুই কোম্পানির মধ্যে গত ২২ এপ্রিল ট্র্যায়াল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু এর মধ্যে উভয় প্রতিষ্ঠান আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতায় পৌঁছে গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সিক্যুরিটি এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে দাখিলকৃত এক ফাইলে টাইমলাইন এই কথা স্বীকার করেছে। তবে ঠিক কী ধরণের শর্তের ভিত্তিতে এই সেটেলমেন্ট হল, সে সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।

টাইমলাইন ইনকর্পোরেশোন ফেসবুক টাইমলাইনের মত প্রায় একই সেবা প্রদান করে যা ব্যবহারকারীদের সংরক্ষণকৃত বিভিন্ন ইভেন্টকে গ্র্যাফিকাল উপায়ে উপস্থাপন করে এবং এর জন্য তাদের “টাইমলাইনস” নামে নির্দিষ্ট ট্রেডমার্কও নেয়া আছে।

এখন উক্ত প্রতিষ্ঠানদ্বয়ের মধ্যে সমঝোতার ফলে ফেসবুক আগের মতই তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারবে। এছাড়া এতে টাইমলাইনের ব্যবসায়ও উল্লেখযোগ্য কোন প্রভাব পরবে না এবং তাদের জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ কোন ইস্যু হবেনা বলেই জানাচ্ছে কোম্পানিটি।

সাম্প্রতিক এই সেটেলমেন্ট নিয়ে ফেসবুক কোন মন্তব্য করতে রাজী হয়নি। টাইমলাইনের পক্ষ থেকেও আনুষ্ঠানিক কিছু জানা যায়নি।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,409 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.