ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে করণীয়

দেশে কার্ড ব্যবহারকারীর সংখ্যা ধীরে ধীরে বেড়ে চলেছে ব্যাংকিং ব্যবস্থার উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে। বিশেষ করে আজকাল অনেকেই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের দিকে ঝুঁকছেন। তবে এখনও ক্রেডিট কার্ড আমাদের দেশে খুব একটা জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি। তাছাড়া এটি আমাদের দেশের অনেক মানুষের কাছে নতুন একটি ব্যাপার বলে ক্রেডিট কার্ড নিয়ে অনেক ভুল ধারণাও লক্ষ্য করা যায়। তবে ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কে এসব ভুল ধারণা ভেঙ্গে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের সঠিক নিয়ম সম্পর্কে সকলেরই জেনে নেয়া উচিত। এতে করে ক্রেডিট কার্ডের পূর্ণ সুবিধা নেয়া সহজ হবে।

ক্রেডিট কার্ড বেশ কাজের জিনিস হলেও তা সহজেই হয়ে উঠতে পারে বোঝা। ক্রেডিট কার্ডের ভুল ব্যবহার আপনাকে বড় ধরণের সমস্যায় ফেলে দিতে পারে। মূলত ক্রেডিট কার্ড আমাদের সাশ্রয় করতে সাহায্য করে এবং সেই সঙ্গে আমাদের সকল খরচকে সহজ করে দিতে পারে। তবে সেটি শুধুমাত্র সম্ভব হয় ক্রেডিট কার্ড সঠিক নিয়ম মেনে ব্যবহারে। এই পোস্ট থেকে জেনে নিতে পারবেন ক্রেডিট কার্ডের সঠিক ব্যবহার নিয়ে। ক্রেডিট কার্ড সঠিক নিয়মে ব্যবহার করে আপনি সহজেই সাশ্রয় করতে পারবেন।

প্রতি মাসেই ডিউ বা দেনা সঠিক সময়ে শোধ করা

ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ব্যাংক মূলত আপনাকে কেনাকাটার জন্য ধার দিয়ে থাকে। এই ধার পরবর্তীতে বিল আকারে প্রতি মাসের নির্দিষ্ট সময়ে শোধ করে দিতে হয়। ব্যাংক আপনাকে পেশা ও আয়ের উপরে ভিত্তি করে একটি ক্রেডিট লিমিট দিয়ে থাকে। যে কোন কেনাকাটায় আপনি এই সীমার মধ্যে থেকে খরচ করতে পারেন। তবে প্রতি মাসেই ক্রেডিট কার্ড একটি বিল স্টেটমেন্ট প্রদান করে থাকে। এই বিলের অর্থ একটি নির্দিষ্ট ডিউ ডেটের মধ্যে শোধ করতে হয়।

ব্যাংক মিনিমাম ডিউ শোধের একটি অপশনও রাখে। এই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আপনি বিল পেমেন্ট বা দেনা শোধ না করলে ব্যাংক আপনাকে বাড়তি চার্জ করতে পারে। এই চার্জ হচ্ছে ক্রেডিট কার্ডের ইন্টারেস্ট। অর্থাৎ প্রতি মাসে আপনি সঠিক সময়ের মধ্যে এই দেনা শোধ না করলে ক্রেডিট কার্ডে খরচের পরিমাণ বাড়তেই থাকবে। ফলে ক্রেডিট কার্ডও আপনার জন্য হয়ে উঠবে বোঝা।

কাজেই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে সতর্ক থাকা উচিত। কেনাকাটার সময় নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সীমার মধ্যে থাকা উচিত যাতে প্রতি মাসের বিল শোধ করে দেয়া সম্ভব হয়। ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে এটি প্রথম ও প্রধান নিয়ম যদি আপনি ক্রেডিট কার্ড থেকে পূর্ণ সুবিধা পেতে চান। 

কাজেই প্রতি মাসে আপনার দেনা শোধের শেষ সময়ের দিকে খেয়াল রাখুন ও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই তা শোধ করে দিন। নাহলে পরবর্তী মাসে তা শোধ করা আরও কঠিন হয়ে যেতে পারে।

পুরো দেনা বা ডিউ শোধ করা

প্রতি মাসে আপনি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে যা খরচ করে থাকেন তার পুরোটা শোধ না করলেও ব্যাংক আপনাকে জরিমানা করবেনা। এজন্য ব্যাংক মিনিমাম পেমেন্ট ডিউ নামের একটি সুবিধা দিয়ে থাকে। অর্থাৎ আপনি যা খরচ করেছেন তার থেকে কম পরিমাণও শোধ করতে পারবেন। তবে পুরো ডিউ শোধ না করলে তা পরবর্তী মাসে সুদ যোগ হতে থাকে। ফলে পুরো দেনা শোধ না করার ফলে ক্রেডিট কার্ড ধীরে ধীরে বোঝা হয়ে উঠতে পারে।

তাই সবসময় পুরো ডিউ বা দেনা শোধ করে দেয়া উচিত। এতে করে পরবর্তী সময়ে বাড়তি চাপ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। নিয়মিত পুরো দেনা শোধ করলে সহজে সাশ্রয় করাও সম্ভব হয়। তাই ক্রেডিট কার্ডে খরচের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকা উচিত যাতে পুরো দেনা প্রতি মাসেই শোধ করা যায়।

কার্ড শখের বশে ব্যবহার না করে চাহিদা অনুযায়ী ব্যবহার করা

অনেকেই ক্রেডিট কার্ড সব ধরণের কেনাকাটার ক্ষেত্রে শখের বশে ব্যবহার করে থাকেন। এটি করা কখনই উচিত নয়। ছোটখাটো সকল কেনাকাটায় ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে বড় পরিমাণের অর্থ দেনা হয়ে যেতে পারে। তাই কোন পণ্য ক্রয়ের ক্ষেত্রে চাহিদা অনুযায়ী ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করা উচিত।

সাধারণত দামী বা বাজেটের বাইরের পণ্যের ক্ষেত্রে ক্রেডিট কার্ড বেশি কাজে দেয়। যেমন ইএমআই এর ক্ষেত্রে এটা কাজে লাগে। জরুরি দরকারেও ক্রেডিট কার্ড অত্যন্ত কার্যকর। ক্রেডিট কার্ডকে সাময়িক ধার নেয়ার মতো করেই ব্যবহার করা উচিত। দেনা পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে বাড়তি মুনাফার মাঝে যেন না পড়তে হয় এমনভাবেই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করা শ্রেয়।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে এই সাবধানতাগুলো মেনে চলুন

👉 ক্রেডিট কার্ড এর খরচ কমানোর উপায়

ক্রেডিট লিমিটের ৩০ শতাংশের বেশি ব্যবহার না করা

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে ক্রেডিট লিমিটের দিকে নিয়মিত লক্ষ্য রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাংক আপনার বেতনের ৪ গুন পর্যন্ত সাধারণত ক্রেডিট লিমিট দিতে পারে। এই ক্রেডিট লিমিটের মধ্যে থেকেই আপনি খরচ করতে পারেন। তবে কখনই ক্রেডিট লিমিটের ৩০ শতাংশের বেশি ব্যবহার করা উচিত নয়।

আপনার বেতন ও আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী ক্রেডিট লিমিট দেয়া হলেও সবসময় ৩০ শতাংশের মধ্যে থাকা উচিত। এতে করে প্রতি মাসে বিল পরিশোধ করতে সমস্যা হবে না। এর বেশি ব্যবহার করলে তা আপনার জন্য বোঝা হয়ে উঠতে পারে। ৩০ শতাংশের বেশি ক্রেডিট ব্যবহার করে ফেললে পরবর্তী মাসে পূর্ণ বিল পরিশোধ করা কঠিন হয়ে যেতে পারে। ফলে ক্রেডিট কার্ডে দেনার পরিমাণ বেশি হয়ে যেতে পারে। যদি কখনও এর বেশি ব্যবহার করে ফেলেন তবে ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহার বন্ধ রাখা উচিত পুরো বিল শোধ না হওয়া পর্যন্ত। এতে নিজের বাজেট ও খরচ নিয়ন্ত্রনে রাখা যায় সহজে।

ক্রেডিট কার্ডের ইন্টারেস্ট সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা রাখা

আপনি যে ক্রেডিট কার্ডই নিন না কেন সবার আগে জেনে নেয়া উচিত ক্রেডিট কার্ডের ইন্টারেস্ট ও পূর্ণ চার্জ সম্পর্কে। চার্জ সম্পর্কে সঠিক ধারণা নিয়ে ও ইন্টারেস্ট কীভাবে হিসাব করা হবে সে সম্পর্কে জেনে তবেই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার শুরু করা উচিত।

ক্রেডিট কার্ডকে আপনি আপনার হিসাব রাখার টুল হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে যত্রতত্র কেনাকাটা না করে সঠিক ভাবে ও সীমানার মধ্যে থেকে ব্যবহার করার মাধ্যমেই আপনি লাভবান হতে পারবেন। নতুবা ক্রেডিট কার্ড আপনার খরচ বাড়িয়ে দেবে। এছাড়া ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন অফার গ্রহণ করা যায়। এর ফলে বাড়তি ডিস্কাউন্ট বা ক্যাশব্যাক পাওয়া যায়। এর মাধ্যমেও আপনি সাশ্রয় করতে পারেন। কাজেই অনলাইনে বা দোকান থেকে কেনাকাটার ক্ষেত্রে ক্রেডিট কার্ড বুঝেশুনে ব্যবহার করা উচিত। ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সীমানার মধ্যে থাকা সবথেকে জরুরি।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,560 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *