ক্রেডিট কার্ড নেয়ার আগে যা জানা দরকার

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল সুবিধা পাওয়া যায়। যার ফলে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের জনপ্রিয়তা দিনদিন বাড়ছে। আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড নিতে চান, তবে আগে ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জেনে নিন। এই পোস্টে ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার আগে যেসব বিষয় জানা উচিত, সেগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানবেন।

নতুন কার্ড আপনার ক্রেডিট স্কোর তৈরি অথবা ধ্বংস করতে পারে

নতুন ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার আগে মনে রাখবেন একটি কার্ড কিন্তু আপনার ক্রেডিট স্কোর বাড়ানোর পাশাপাশি ক্রেডিট স্কোর কমাতেও পারে। শুধুমাত্র আপনার খরচের উপর নয়, বরং আপনার বিল পরিশোধের উপরেও ক্রেডিট স্কোর নির্ভর করে। তাই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে উভয় দিক বিবেচনা করা উচিত।

নিজের সাধ্যের বাইরে গেলে বিপদে পড়বেন

ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে খরচ করা অর্থ কিন্তু সেই ঘুরেফিরে আপনার নিজেরই টাকা। তাই আপনি টাকা দিয়ে সরাসরি কিনলে যে বিষয়ে টাকা খরচ করতেন না, একই বিষয়ে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার পরিহার করুন।

ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে করা খরচ কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ফিরিয়ে দিতে হয়। তাই সাধারণ অর্থ খরচ করার মত ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার ক্ষেত্রেও হিসাব করে খরচ করা শ্রেয়। চলতি মাসে বা পরের মাসের মধ্যে ক্রেডিট কার্ডের খরচ বহন করার মত সক্ষমতা যদি আপনার না থাকে, তাহলে কোনো জিনিস ক্রেডিট কার্ড দ্বারা ক্রয়ের আগে ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিন।

মাসের বিল মাসেই পরিশোধ না করলে সমস্যা হবে

প্রতিমাসে খরচের হিসাবসহ ক্রেডিট কার্ডের বিল স্টেটমেন্ট আসে। ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে সাবধানতা অবলম্বনের অংশ হিসেবে প্রতি মাসের বিল হাতে পাওয়ার পরপর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পরিশোধ করে ফেলুন। অন্যথায় বিলের এমাউন্টের ওপর বাড়তি সুদ ও জরিমানা দিতে হবে। এমনকি আপনি আইনি ব্যবস্থার মুখোমুখিও হতে পারেন ব্যাংকের দ্বারা।

মিনিমাম বিল সম্পর্কে জানেন তো?

ক্রেডিট কার্ডের সম্পূর্ণ বিল একই সাথে প্রদান করতে হয়না, একটি ছোট নির্দিষ্ট অংক পরিশোধ করলেও চলে। ব্যাপারটি আপাতদৃষ্টিতে বেশ সুবিধার মনে হলেও আসলে কিন্তু এটার নেতিবাচক দিকও আছে।

মনে রাখবেন, আপনার পরিশোধে বাকি থাকা অর্থের উপর কিন্তু সুদ চলছে। অর্থাৎ আপনি যতদিন পাওনা টাকা পরিশোধ বাকি রাখবেন, ইন্টারেস্ট ও তত বাড়তে থাকবে। তার মানে হলো বিল পরে পরিশোধের মায়াজালে না পড়ে নিয়মিত পরিশোধ করা উত্তম।

নিয়মিত বিল পরিশোধে ইন্টারেস্ট সীমিত থাকে

আমরা ইতিমধ্যে আয় বুঝে ব্যায়ের বিষয়টি সম্পর্কে জেনেছি। আপনি যদি আপনার বিল পরিশোধের সামর্থ্যের মধ্যে ক্রেডিট কার্ড থেকে খরচ করেন, তবে প্রতি মাসে নিয়মিত বিল পরিশোধ করতে পারবেন। আর নিয়মিত বিল পরিশোধ করলে আপনার ইন্টারেস্ট বাড়ছেনা। যার ফলে আপনাকে ইন্টারেস্ট রেট নিয়ে চিন্তায় ডুবে থাকতে হচ্ছেনা। এই নিয়ম অনুসরণ করে আপনি চাইলে ক্রেডিট কার্ড রিওয়ার্ডসমূহ ও উপভোগের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

সুবিধাপূর্ণ রিওয়ার্ডযুক্ত কার্ড বেছে নিন

একটি কার্ড নেওয়ার আগে উক্ত কার্ডের রিওয়ার্ডসমূহ বিবেচনা করে নিন। যে কার্ড নিচ্ছেন, সে কার্ড আপনি যেসব ক্ষেত্রে ব্যবহার করবেন সেসব ক্ষেত্রে রিওয়ার্ডস পাবেন কিনা তা যাচাই করে নিন। এমন নয় যে ক্রেডিট কার্ডের রিওয়ার্ডস আপনার খরচ উল্লেখযোগ্য হারে কমিয়ে দিয়ে। বরং এর মানে হলো খরচ করার জন্য আপনি বাড়তি সুবিধা পাবেন।

আপনার বাছাই করা ক্রেডিট কার্ডের রিওয়ার্ড যদি আপনার ব্যয়ের ক্ষেত্রে কাজে না আসে, তবে তা অনেকটা অযৌক্তিক বলা চলে। সরাসরি ক্যাশব্যাক বা ডিসকাউন্ট অফার এর মত রিওয়ার্ডস প্রদান করে এমন কার্ড নির্বাচন করুন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

বিল পরিশোধ না করলে মাশুল দিতে হবে

ক্রেডিট কার্ডের বিল একেবারে পরিশোধ না করলে কি হয়? প্রথমত, আপনার ক্রেডিট রিপোর্টে দাগ পড়বে যার জন্য অনেক বছর মাশুল দিতে হতে পারে। এছাড়া বিল পরিশোধ না করলে কোনো রকম লোন নেওয়া কিংবা ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার পথ ও বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

শুধু তাই নয়, ইন্টারেস্ট রেট ও বেড়ে যেতে পারে বিল পরিশোধ না করলে। আবার আপনার ক্রেডিট ভালো থাকলে তা খারাপে বদলে যেতে তেমন বেশি সময় লাগবেনা। এছাড়া আপনার বিল পরিশোধের জন্য ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি আপনাকে তাগাদা দিতে থাকবে। বেশ বিশ্রি পরিস্থিতিতে পড়তে পারেন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধে ব্যর্থ হলে। তাই বুদ্ধিমানের মত প্রতিমাসের বিল প্রতিমাসে পরিশোধ করাই উত্তম।

👉 ক্রেডিট কার্ড কি ও কিভাবে পাবেন

ক্রেডিট কার্ড কোনো ইমারজেন্সি ফান্ড নয়

ক্রেডিট কার্ডে জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারের আগে মনে রাখবেন, এর বিল ও কিন্তু পরিশোধ করতে হবে। অর্থাৎ আপনি পরিশোধ করতে পারবেন না এমন কোনো কিছুর বিল কার্ডের মাধ্যমে প্রদান করলেও সেই ক্রেডিট কার্ডের বিল ও কিন্তু আপনি পরিশোধ করতে পারবেন না। উলটো এই বিলের বোঝা ও ইন্টারেস্ট রেট সাথে নিয়ে বেকায়দায় পড়তে হবে।

ক্রেডিট কার্ড নেয়ার আগে যেসব তথ্য জানা দরকার

তাড়াহুড়োর মধ্যে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বড় কোনো কেনাকাটা বা পেমেন্ট এড়িয়ে চলুন। এছাড়া অর্থের প্রয়োজনে অন্য কোনো উৎস থেকে অর্থ যোগার করার চেষ্টা করতে পারেন। নিতান্ত অর্থের প্রয়োজন হলে আপনার ব্যাংকের সেভিংস একাউন্টের সাহায্য ও নিতে পারেন।

👉 নতুন ক্রেডিট কার্ড নেয়ার পর যে কাজগুলো অবশ্যই করবেন

ক্রেডিট কার্ড মানেই শুধু লোনের বোঝা, তা কিন্তু নয়। আপনার ব্যয়ের বাজে পথগুলো খুঁজে বের করতে পারেন ক্রেডিট কার্ডের বিল চেক করে। প্রতি মাসে আপনার ক্রেডিট কার্ডের বিল যখন হাতে পাবেন, তখন তা চেক করে কোন খরচসমুহ টাকা নষ্টের কাতারে পড়ে, তা খুঁজে বের করুন। এরপর এসব বাজে খরচ থেকে দূরে থাকার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করুন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,269 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.