ফ্রিল্যান্সিং করতে কি যোগ্যতা লাগে, জেনে নিন

ফ্রিল্যান্সিং বর্তমানে বেশ জনপ্রিয় একটি পেশা হয়ে উঠেছে। কোথাও স্থায়ী চাকরি না করে ঘরে বসেই কিংবা নিজের পছন্দের স্থানে ল্যাপটপ বা পিসির সাহায্যে বিভিন্ন কাজ করে অর্থ উপার্জনকেই ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়ে থাকে। সাধারণত বাইরের দেশে ফ্রিল্যান্সারদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। তবে ফ্রিল্যান্সিং অনেকভাবেই করা যায়। আমাদের অনেকেরই ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা না থাকার ফলে ঠিক কীভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করা যায় এই নিয়ে দ্বিধায় পড়ে যান। আজকের এই পোস্টে এই ব্যাপারে দ্বিধা দূর করবার জন্যই আমরা আলোচনা করবো যে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে আসলে আপনার কী যোগ্যতা থাকা প্রয়োজন।

ফ্রিল্যান্সিং একটি ফ্রি পেশা, অর্থাৎ আপনি কখন বা কতটুকু কাজ করবেন সেটার নিয়ন্ত্রন আপনার হাতেই থাকে। তাই ফ্রিল্যান্সিং এর আলাদা একটা আকর্ষণ রয়েছে পেশা হিসেবে। পৃথিবীব্যাপী ফ্রিল্যান্সিং এর জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ যে এখানে নিজের সুবিধা মতো সময় দিয়ে বেশ ভালো আয় করা সম্ভব। তবে যে কোন কাজের মতোই এক্ষেত্রে সবকিছুই আপনার দক্ষতার উপর নির্ভর করে থাকে।

আপনি নিজেকে দক্ষ না করে ফ্রিল্যান্সিং থেকে খুব ভালো কিছু আশা করতে পারবেন না। আর তাই কিছু যোগ্যতা অর্জন করে তবেই ফ্রিল্যান্সিং শুরু করা উচিত। ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে হলে ধৈর্য থাকাটা খুব জরুরি। কেননা আপনি এক দিনেই দক্ষতা অর্জন করে আয় করা শুরু করতে পারবেন না। এজন্য আপনাকে লেগে থাকতে হবে। তবে সঠিক পথে আগালে খুব দ্রুতই সাফল্য পাওয়া সম্ভব।

ফ্রিল্যান্সিং করতে কোন বিষয়ে দক্ষতা দরকার?

ফ্রিল্যান্সিং অনেক বিস্তর একটি শব্দ। ফ্রিল্যান্সিং বলতে নির্দিষ্ট কোন দক্ষতাকে বুঝানো হয় না। এটি কাজের একটি ধরণ। ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আপনাকে প্রথমেই বিশেষ কোন একটি কাজে বা বিষয়ে দক্ষ হওয়া প্রয়োজন। সব বিষয়ে দক্ষ হতে চেষ্টা না করে বরং কোন একটি বিষয়ে ভালো দক্ষতা অর্জন করতে পারলে আপনার সাফল্য পাবার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে অনেকটাই। তাহলে এই বিশেষ কাজ বা দক্ষতা কী হতে পারে। সবথেকে জনপ্রিয় কিছু ফ্রিল্যান্সিং দক্ষতা হলঃ

  • ডিজিটাল মার্কেটিংঃ এই ক্ষেত্রেও অনেক ভাগ রয়েছে। যেমন ইমেইল, ফেসবুক ইন্সটাগ্রাম ইত্যাদি বিভিন্ন মাধ্যমে পণ্য বা ব্র্যান্ডের প্রচারনা। এসইও, লিড জেনারেশন ইত্যাদি অনেক কিছুই এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত।
  • গ্রাফিক্স ডিজাইনঃ যারা বিভিন্ন ডিজাইন, লোগো, বিজনেস কার্ড, টিশার্ট ডিজাইন বা এই ধরণের কাজ করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য মূলত এটি (গ্রাফিক ডিজাইন)।
  • কন্টেন্ট রাইটিংঃ মূলত আপনাকে এখানে বিভিন্ন বিষয়ের উপর আর্টিকেল লিখতে হবে বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ব্লগের জন্য। এই কাজ করতে ভালো ভাষিক দক্ষতা প্রয়োজন।
  • ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্টঃ কিছু প্রোগ্রামিং ভাষা নিয়ে ধারণা থাকার পাশাপাশি বিভিন্ন ওয়েবসাইট তৈরি করার কাজ মূলত এটি।
  • সফটওয়্যার ডেভেলপারঃ মূলত প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করে বিভিন্ন প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার কিংবা মোবাইল অ্যাপ তৈরি করাই কাজ এখানে।

উপরে শুধুমাত্র সবথেকে জনপ্রিয় কিছু ফ্রিল্যান্সিং কাজের কথা বলা হল। এছাড়াও আরও অসংখ্য ধরণের ফ্রিল্যান্সিং কাজের ভালো বাজার রয়েছে। আপনাকে ঠিক করতে হবে কোন বিষয়টির প্রতি আপনার আগ্রহ রয়েছে। এরপর সেই বিষয় সম্পর্কেই ধীরে ধীরে নিজেকে দক্ষ করে তুলতে হবে। শুধুমাত্র তাহলেই ফ্রিল্যান্সিং থেকে আপনি ভালো আয় করবার আশা করতে পারেন। ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে একে বলা যায় প্রথম ও প্রধান যোগ্যতা।

ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে কী কী যোগ্যতা লাগে? জেনে নিন

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

ইংলিশে ভালো দক্ষতা

ইংলিশে ভালো দক্ষতা থাকা অন্যতম প্রধান একটি যোগ্যতা। কেননা ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজের ক্ষেত্রে আপনার গ্রাহক প্রায় সবসময়ই বিদেশি হবেন। তার সাথে সঠিকভাবে যোগাযোগ করে সবকিছু বুঝে নিয়ে আপনাকে কাজ করতে হবে। তাই ইংলিশে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ভালো দক্ষতা থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এমন নয় যে আপনাকে একদম নির্ভুল ইংলিশ জানতে হবে। তবে অন্তত আপনার গ্রাহককে বুঝতে ও তাকে বুঝাতে পারার মতো দক্ষতা অর্জন না করলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং দক্ষতা থাকা সত্ত্বেও খুব বেশি দূর এগোতে পারবেন না।

তাই যে কোন বিশেষ দিকে দক্ষতা অর্জনের সঙ্গে সঙ্গে ইংলিশেও দক্ষতা বৃদ্ধি করুন। আপনি যে বিষয় নিয়ে কাজ করবেন সে বিষয়ক সকল ইংলিশ টার্মগুলো আগে থেকেই জেনে ও বুঝে নিন যাতে করে গ্রাহকের নির্দেশনা পুরোপুরি বুঝতে পারেন এবং সেই অনুযায়ী কাজ করতে পারেন।

👉 ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য ইংরেজি জানা কতটা গুরুত্বপূর্ণ?

কম্পিউটার দক্ষতা

ফ্রিল্যান্সিংয়ে আপনার কাজ যেহেতু পিসি বা কম্পিউটারেই হবে তাই কম্পিউটার বিষয়ক দক্ষতা থাকা জরুরি। কম্পিউটার চালনায় নতুন হলে আগে কম্পিউটার বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করে নিন। মাইক্রোসফট অফিসের বিভিন্ন কাজ সম্পর্কে শিখে নিন। এক্সেল, ওয়ার্ড, নোটপ্যাড ইত্যাদি প্রোগ্রামগুলোর বিভিন্ন ফাংশন নিয়ে ধারণা নিয়ে নিন। কেননা আপনি যে ধরণের ফ্রিল্যান্সিং কাজই করুন না কেন এগুলো আপনার দরকার হবেই।

অনলাইনে কম্পিউটারের বিভিন্ন প্রোগ্রাম চালানোর ব্যাপারে বিনামূল্যেই অনেকরকম টিউটোরিয়াল পেয়ে যাবেন। এগুলো থেকে আগে কম্পিউটারের দক্ষতা অর্জন করে নিন। কম্পিউটার সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকলে অন্য ব্যাপারগুলোও সহজ হয়ে যাবে আপনার জন্য।

টাইপিং দক্ষতা

টাইপিং দক্ষতা আপনার পুরো ফ্রিল্যান্সিং পেশার জন্যই বড় একটি জিনিস। আপনি খুব বেশি টাইপ করতে হয় এমন কোন কাজ না করলেও দ্রুতগতির টাইপিং থাকলে আপনি অনেক কাজই দ্রুত সেরে ফেলতে পারবেন। কেননা যেমন কাজই করুন না কেন মাঝে মধ্যে সেটির জন্য টাইপিং করার প্রয়োজন হবেই। কাজেই ইংলিশ টাইপিং এ অন্তত মিনিটে ৩০ শব্দ লেখার সক্ষমতা অর্জন করলে সব কাজের ক্ষেত্রেই তা আপনাকে সাহায্য করবে।

কন্টেন্ট রাইটিং করতে চাইলে দ্রুতগতির টাইপিং সেখার বিকল্প নেই। অনলাইনে সঠিকভাবে টাইপিং শিখতে বেশ কিছু ফ্রি টুল পাওয়া যায়। বারবার অনুশীলনের মাধ্যমে আপনি সহজেই দ্রুতগতিতে টাইপ করা শিখে নিতে পারবেন।

👉 দ্রুত টাইপিং শেখার কৌশল

ধৈর্য

ধৈর্য একটি বড় গুন যে কোন কাজের ক্ষেত্রেই। ফ্রিল্যান্সিং করতে চাইলে এটি আরও বেশি দরকারি। ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেই আয় করার চিন্তা করলে ফ্রিল্যান্সিং আপনার জন্য নয়। এর পিছনে আপনাকে বেশ সময় দিতে হবে। অনেক ক্ষেত্রেই প্রথম দিকে বেশ কষ্ট করা সত্ত্বেও কাজ পাওয়া কঠিন হতে পারে। এসময় অনেকেই ধৈর্য হারিয়ে ফ্রিল্যান্সিং বাদ দিয়ে দিতে চান। তবে ধৈর্য রাখাটা বেশ জরুরি। আপনি কোন কাজে সত্যিকারের দক্ষতা অর্জন করতে পারলে একবার পরিচিতি পেয়ে গেলে কাজ পাওয়া অনেকটাই সহজ হয়ে যায়।

অন্য যে কোন কাজের মতোই মানুষ নতুন কাউকে কাজ দেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকে। তাই নতুন হিসেবে কাজ পাওয়া কিছুটা কষ্টকর। তবে আপনি আপনার বায়ারকে সন্তুষ্ট করতে পারলে এবং আপনার কাজের জন্য ভালো রিভিউ সংগ্রহ করতে পারলে ধীরে ধীরে আপনার প্রোফাইল তৈরি হতে থাকবে। ফলে কাজও বাড়তে থাকবে আপনার রেটিং বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে। তাই ধৈর্য রেখে আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে হবে।

👉 সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার উপায়

উপরের যোগ্যতাগুলো ফ্রিল্যান্সিং করার ক্ষেত্রে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। তবে এছাড়াও অনেক দক্ষতা ও যোগ্যতার দরকার রয়েছে। সেগুলো আপনি নিজে থেকেই বুঝতে পারবেন কাজ শুরু করার সঙ্গে সঙ্গে। তাই ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে চাইলে উপরের যোগ্যতাগুলো অর্জনের লক্ষ্যে কাজ শুরু করে করে দিন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,985 other subscribers

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.