বাজারে এল সোয়া আট লাখ টাকা দামের এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন ভার্চু টিআই!

vertu-android-120213

বিলাসবহুল মোবাইল ফোন নির্মাতা ভার্চুর ব্যাপার স্যাপারই আলাদা। এরা সব সময় উচ্চমূল্যের স্মার্টফোন তৈরি করে থাকে। সাধারণভাবে ব্যয়বহুল ডিভাইস নির্মাতার কথা উঠলে অ্যাপল বা স্যামসাং এর কথা মনে আসলেও ভার্চু সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী। এই প্রতিষ্ঠানটির কাজই হচ্ছে বিশেষ ধরণের কাঁচামাল ব্যবহার করে এমন কিছু হ্যান্ডসেট বাজারে আনা, যার মালিক আশেপাশের লোকজনের থেকে তার গেজেটের জন্যই ভিন্নভাবে পরিচিত হতে পারবে!

অবাক করা ব্যাপার হল, গত বছর পর্যন্ত ভার্চু ছিল নকিয়ার একটি আলাদা বিভাগ যা আকর্ষণীয় ডিজাইন ও প্রিমিয়াম ম্যাটেরিয়ালের সিম্বিয়ান স্মার্টফোন তৈরি করত। কিন্তু ফিনিশ কোম্পানি নকিয়ার দিন খারাপ যাওয়ায় তারা ভার্চু ইউনিট বিক্রি করতে বাধ্য হয়।

নকিয়াসহ বেশ কিছু মোবাইল নির্মাতা এখন উইন্ডোজ ফোন অপারেটিং সিস্টেম চালিত মোবাইলের ওপর জোড় দিচ্ছে। লুমিয়া সিরিজের সাফল্যের পরেও ভার্চু যেন কিছুতেই মাইক্রোসফটের অপারেটিং সিস্টেমের ওপর ভরসা রাখতে পারছে না। আর এজন্যই তারা “ভার্চু টিআই” স্মার্টফোন মডেলের জন্য এন্ড্রয়েডকে বেছে নিয়েছে। হ্যান্ডসেটটি ইতোমধ্যেই বাজারে চলে এনেছে। এর মূল্য মাত্র ৭,৯০০ ইউরো।

আজ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ তারিখের ইউরো’র বিপরীতে টাকার মুদ্রা বিনিময় হার হচ্ছে ১ ইউরো = ১০৪.৮৫ বাংলাদেশী টাকা। সুতরাং আপনি যদি একটি ভার্চু টিআই সেট কিনতে চান, তবে খরচ হতে পারে মাত্র ৮,২৮,৩১৫ টাকা।

এই স্মার্টফোনে আছে টাইটানিয়াম ফ্রেম এবং ৩.৭ ইঞ্চি ডব্লিউভিজিএ স্যাফাইর স্ক্রিন, ৮ মেগাপিক্সেল অটোফোকাস প্রধান ক্যামেরা, টুইন এলইডি ফ্ল্যাশ, ১.৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা, ৬৪ জিবি আভ্যন্তরীণ মেমোরি, ১ জিবি র‍্যাম এবং ১.৭ গিগাহার্টজ ডুয়াল কোর প্রসেসর। আর অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে এন্ড্রয়েড ৪.০ আইসক্রিম স্যান্ডউইচ।

ভার্চু টিআই ইংল্যান্ড একজন মাত্র কারিগরের হাতে অ্যাসেম্বল করা হয়েছে। প্রত্যেকটি সেটে তার সাইন দেয়া আছে। চব্বিশ ঘন্টা উপলভ্য গ্রাহকসেবার জন্য এতে রয়েছে বিশেষ “ভার্চু কি”।

কিন্তু এত কিছু থাকার পরেও ফোর’জি নেটওয়ার্ক সমর্থন করবেনা ভার্চু টিআই।

ভার্চু কখনোই বিশাল বাজার দখলের জন্য প্রতিযোগিতা করেনা। ১০ বছরের ব্যবসায়িক জীবনে সারা বিশ্বে মোট ৩২৬,০০০ লোক গ্রাহক হয়েছে এদের। আর খুচরা বিক্রয় কেন্দ্র আছে মাত্র ৫০০।

১৮০ গ্রাম ওজনের ভার্চু টিআইয়ের গঠন অত্যন্ত মজবুত। এর উপর দিয়ে ডেলিভারি ট্রাক চলে গেলেও ফোনের স্ক্রিন পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত হয়না, বরং সবকিছুই ঠিকঠাক চলতে থাকে।

আমার তো মনে হয় শুধুমাত্র ফোরজি নেই বলেই আপনি এটি কিনবেন না! আর…… ফোরজি থাকলে হয়ত একমাসের মানিব্যাক গ্যারান্টি নিয়ে ট্রাই করে দেখতেও পারতেন। কি বলেন?

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 5,973 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.