ভালোবাসার কিছু হতাশাজনক রসায়ন যা আপনার অবশ্যই জানা উচিৎ

সামনেই ভ্যালেন্টাইন’স ডে। বছরের সবচেয়ে ‘ভালোবাসাময়’ একটি দিন। এদিনটি ঘিরে আপনার হয়ত অনেক প্ল্যান-প্রোগ্রাম আছে। ঠিক আছে, ভাল কথা! চলুন এবার দেখে নিই ভালোবাসা নিয়ে পরিচালিত বিভিন্ন গবেষণায় উঠে আসা কিছু তিক্ত ফ্যাক্ট/তত্ব যেগুলো সবারই জেনে রাখা উচিৎ।

১. ব্রেকআপ মানে শুধুই বিচ্ছিন্ন হওয়া নয়!

নাটক-সিনেমা বা আধুনিক সংস্কৃতির কল্যাণে ‘ব্রেকআপ’ শব্দটি আপনার নিকট নিশ্চয়ই অজানা নয়। সম্পর্কে ভাঙ্গন যে সবসময় মানুষদের দূরে ঠেলে দেয় এই কথাটি সত্যি নয়। কখনও কখনও প্রত্যাখানকারী ব্যক্তির প্রতি কেউ কেউ আরও বেশি আকৃষ্ট হয়ে পড়ে যা ‘আসক্তি’তেও রূপ নিতে পারে!

২. ‘রোমান্টিক লাভ’ মাত্র ১ বছর স্থায়ী হয়!

ইংরেজি শব্দগুচ্ছ ‘রোমান্টিক লাভ’ বলতে আপনি যাই বুঝে থাকেন না কেন, এর একটি বিজ্ঞানভিত্তিক রাসায়নিক ব্যাপার আছে। প্রিয়জনের কাছাকাছি থাকাকালীন আপনার মধ্যে যে ‘অন্যরকম ভালোলাগার অনুভূতি’ থাকে সেটি মূলত মস্তিষ্কের অভ্যন্তরে রাসায়নিক পদার্থের নিঃসরণের ফলেই সৃষ্টি হয়। আর এই ঘটনাটি ১ বছরের মত ঘটে থাকে। যদিও এর পর ভালোবাসা স্থায়ী হয় তবে তা সেই আগের মাত্রায় ‘রোমান্টিক’ আর থাকেনা।

৩. সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে সম্পর্কের ভাঙন

এটা নিয়ে দ্বিমত করার লোক খুব কম পাবেন। বাস্তব জীবনে একটু খেয়াল করলেই দেখবেন, বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডরা তাদের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট যেমন ফেসবুকের পাসওয়ার্ড আদান-প্রদান করে থাকে। আর এরপর একে অপরের মেসেজবক্স, কমেন্ট প্রভৃতি নিয়ে ক্যাচালের সৃষ্টি করে।

৪. ভগ্নহৃদয়ে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

সম্পর্কের উত্থান-পতনে মন-মানসিকতায় ব্যাপক চাপ সৃষ্টি হয়। এরকম পরিস্থিতিতে মানুষের মস্তিষ্ক ‘স্ট্রেস হরমোন’ নিঃসরণ করে থাকে, যা রোগ প্রতিরোধক সিস্টেম দুর্বল করে তোলে এবং শরীরকে অসুস্থতার দিকে ধাবিত করে।

৫. হৃদয় সত্যি সত্যি ভাঙে!

‘হার্ট ব্রেকিং’ কথাটি শুনেছেন নিশ্চয়ই। আমরা এটি রূপক অর্থে ব্যবহার করলেও মানুষের হার্ট বা হৃদযন্ত্র সত্যি সত্যিই ‘ভাঙনের’ শিকার হতে পারে। এটি ‘ব্রোকেন হার্ট সিনড্রোম’ নামে পরিচিত যা অতিরিক্ত মানসিক বা শারীরিক চাপের কারনে ঘটে থাকে। এসময় হৃদযন্ত্রের পেশীতে সাময়িক গোলযোগ হয়ে থাকে।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,561 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *