অ্যালামনাইদের দারুণ প্ল্যাটফর্ম, গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক বা গ্র‍্যাডনেট

বিশ্ববিদ্যালয় জীবন শেষ করে কর্মজীবনে ব্যস্ত সময় কাটছে প্রাক্তন শিক্ষার্থী বা অ্যালামনাইদের। বিশ্ববিদ্যালয়ে সহপাঠীগণ বা গ্রাজুয়েটগণ কে কোথায় আছেন, কি করছেন, কে কি গবেষনা বা উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছেন এই সম্পর্কে হয়ত খবর রাখা কারো পক্ষেই সম্ভব নয়। এই বিষয়টিকেই মাথায় রেখে তৈরী অ্যালামনাইদের দারুণ প্লাটফর্ম, গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক বা গ্র‍্যাডনেট।

স্বভাবতই প্রশ্ন আসে গ্র‍্যাডনেট কী এবং এবং এর গুরুত্ব ই বা কতটুকু। আলাপ করা যাক গ্র‍্যাডনেট এর সুবিধা ও কার্যক্রম নিয়ে। গ্র‍্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক বা গ্র‍্যাডনেট মূলত অ্যালামনাইদের এক ছাদের নিচে আনার একটি উদ্যোগ। এর মাধ্যমে খুব সহজেই যুক্ত হতে পারবেন অ্যালামনাইররা। অ্যালামনাইওদের ঐক্যের মাধ্যমে দেশ, বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুল- কলেজের উন্নয়ন এবং আর্থিকভাবে বিভিন্ন প্রয়োজনে সাহায্য প্রদান করা সম্ভবপর হবে।

অ্যালামনাইদের কে কোথায় আছেন ও কে কোন ক্ষেত্রে অবদান রাখছেন – এসব তথ্যের সমন্বয়ে তৈরী নেটওয়ার্কটি। এসব তথ্য কাজে লাগিয়ে মহৎ কাজের মাধ্যমে সমাজের এবং নিজেদের প্রিয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করতে পারবেন গ্র‍্যাজুয়েটগণ। 

গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক প্লার্টফর্ম, গ্র‍্যাডনেট তৈরি করেছেন দেশীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান, টেকনেক্সট লিমিটেড। গ্র‍্যাডনেট এর কো-ফাউন্ডার ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর, সৈয়দ রিজওয়ানুল হক বলেন, “বছরে শুধু মাত্র রিইউনিয়নে অ্যালামনাই সদস্যের সাক্ষাৎ হয়। এই মেধাবী প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের উন্নতি সাধনে কাজ বা একত্রে মিলে কোন ভালো কাজ হচ্ছে না শুধু মাত্র নিয়মিত যোগযোগ ও সঠিক প্লার্টফর্মের অভাবে। সেই অভাব দূর করতে গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক তৈরি করা হয়েছে।”

গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক প্লাটফর্ম, গ্র‍্যাডনেটে অ্যালামনাইদের নিজস্ব প্রোফাইল খোলার সুবিধা রয়েছে। একে অন্যের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন চাইলেই। রয়েছে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট,ফান্ডরেইজ করা, মেম্বারশিপ ফি কালেক্ট করা, জব সার্চ এর মত অনেক ফিচার। থাকছে সিভি তৈরির সুবিধা। ইতোমধ্যে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নর্থইষ্ট মেডিক্যাল কলেজ, গ্রিন ইউনিভার্সি ইইই, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর নৃতত্ব বিভাগ সহ অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাইরা গ্র‍্যাডনেটে যুক্ত হয়েছেন। এছাড়াও অনেক নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন ও গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক প্লাটফর্মটি ব্যবহার করছেন।

গ্র‍্যাডনেট এর মাধ্যমে উপকৃত হবেন, অ্যালামনাই ও তাঁদের প্রতিষ্ঠান, উভয়ই। গ্র‍্যাডনেট এর প্রদত্ত তথ্য অনুসারে, গ্র‍্যাডনেট ব্যবহারের মাধ্যমেঃ

  • বর্তমান শিক্ষার্থী ও তরুণ অ্যালমনাইদের মেন্টরিং করা যাবে। এর ফলে তাদের ভবিষ্যৎ পথযাত্রার পথ হবে আরো সহজ। অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা পাবেন উচ্চতর শিক্ষা, ক্যারিয়ার গাইডলাইন, রিসার্চ, লেটেস্ট ইন্ডাস্ট্রি ট্রেন্ড ইত্যাদি জানার এক্সক্লুসিভ সুযোগ।
  • লোকাল ট্যালেন্টদের সাপোর্ট এর মাধ্যমে নতুন অ্যালামনাই ও সাবের অ্যালামনাই, উভয়ই উপকৃত হবে। এছাড়াও অনেক অ্যালামনাই ইন্ডাস্ট্রি ভিজিট, ইন্টার্নশিপ, সিভি রিভিউ এর মত সুবিধা প্রদান করতে পারেন।
  • প্রয়োজনে বা কারো আর্থিক সাহায্যের প্রয়োজন হলে সেক্ষেত্রে অ্যালামনাইদের আলাপের সমন্বয়ে ইমারজেন্সি ফান্ড তৈরী করে সমস্যার সহজ সমাধান সম্ভব।
  • অ্যালমনাই লিডার সামিট এর মতো অনুষ্ঠান আলোচনার মাধ্যমে লেটেস্ট ইন্ডাস্ট্রি ট্রেন্ড, ক্যারিয়ার ফেস্টিভাল, রিসার্চ পেপার রাইটিং, উচ্চতর শিক্ষার প্রস্তুতি ইত্যাদি বিষয় অন্যদের সাহায্য সম্ভব।

মূলকথা হলো, অ্যালামনাইদের ক্ষুদ্র অবদান মাধ্যমেই একটি প্রতিষ্ঠান সফল হতে পারে খুব সহজেই।  ধরা যাক, একটি প্রতিষ্ঠানে ২০শতাংশ অ্যালমনাই অন্যদের সহায়তায় অধিক সফল হয়েছেন। কিছু বছরের মধ্যেই সফলতার এই সংখ্যাটি ৮০শতাংশে গিয়ে পৌছাবে। উদাহরণস্বরূপঃ করোনাকালীন সময়ে ১৭ টি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ৫ হাজারে বেশি সদস্য ৫০ লাখ টাকার বেশি ফান্ডরেইজ করেছে প্লাটফর্মটি ব্যবহার করে। গ্র্যাজুয়েট নেটওয়ার্ক সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে এই ঠিকানায় (https://gradnet.io) গিয়ে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,883 other subscribers

Comments