পৃথিবীর প্রথম ওয়াটার-কুলড ল্যাপটপ আনছে আসুস

কম্পিউটিং জগতে ‘লিক্যুইড কুলিং’ অর্থাৎ তরল পদার্থের দ্বারা কম্পিউটারকে ঠান্ডা রাখা খুবই ব্যয়বহুল পদ্ধতি হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অনেক দামী এবং উচ্চমাত্রার কম্পিউটারের জন্য এই ধরণের প্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। তবে ল্যাপটপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আসুস বাজারে ল্যাপটপ এর কুলিং এর জন্য এরকমই একটি প্রযুক্তি নিয়ে আসছে।

এই সপ্তাহের শুরুর দিকে বার্লিনে আইএফএ সম্মেলনে আসুস GX700 মডেলের একটি ল্যাপটপটি প্রকাশ করে। এটি একটি ১৭ ইঞ্চি ল্যাপটপ যাতে 4K মানের স্ক্রিন এবং এনভিডিয়া জিপিইউ থাকবে। এতে ইন্টেলের স্কাইলাক প্রসেসর সংযুক্ত থাকবে বলেও সম্মেলনে জানানো হয়।

এই ল্যাপটপটি গেমিং পাগলদের জন্য বেশ উপযোগী হবে এবং এতে একটি পাম্প সংযুক্ত থাকবে যার সাহায্যে শীতল পানির ধারা পিসিটিকে ঠান্ডা রাখবে। এই পাম্পটি ল্যাপটপের পিছনে সংযুক্ত থাকবে যাতে করে গেমারদের জন্য এটা কোন সম্যসার কারণ না হয়।

তবে বিশেষজ্ঞরা এই ল্যাপটপের কিছু বিষয় নিয়ে দ্বিমত পোষণ করেছেন। ল্যাপটপটির মেইনটেন্যান্স করা অনেক ঝামেলাপুর্ণ হবে বলে তারা মনে করেন। কারণ পানির প্রবাহের সময় যে বুদবুদের সৃষ্টি হবে তা নিষ্কাষণ না করলে ল্যাপটপের ক্ষতি হবার সম্ভাবনা থাকে।

সাধারণত এদরনের শীতলীকরণ কৌশলকে প্রতি ৬ মাস অন্তর অন্তর পরিস্কার করার দরকার হয়। তবে GX700 মডেলের ল্যাপটপটি দেখে মনে হয় না যে এটির পরিষ্কার প্রক্রিয়া অনেক সহজ হবে। তাই এটা দেখার জন্য আমাদেরকে অপেক্ষা করতে হবে যে এই সমস্যা দূর করার জন্য আসুস কী করে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,834 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.