ব্যবহারকারী গোপনীয়তা লঙ্ঘনঃ ২০ মিলিয়ন ডলার জরিমানা দিচ্ছে ফেসবুক

facebook-homeসোশ্যাল নেটওয়ার্কিং জায়ান্ট ফেসবুক সাইটটির ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেতে ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার জরিমানা দিয়ে ভুক্তভোগীদের সাথে সমঝোতায় যেতে রাজি হয়েছে বলে এক সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে জানিয়েছে রয়টার্স।

এই সেটেলমেন্টের শর্তাবলীর আওতায় ফেসবুক তাদের উক্ত প্রাইভেসি পলিসিতে পরিবর্তন আনতেও বাধ্য থাকবে, যাতে করে সেবাটির ব্যবহারকারীরা তাদের কনটেন্ট ও তথ্যের ওপর আরও নিয়ন্ত্রণ স্থাপন করতে পারে। সব মিলিয়ে, এই সেটেলমেন্টটির কারণে ফেসবুকের প্রায় ১৪৫ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত খরচ হতে পারে।

আগেই হয়ত শুনেছেন, ২০১১ সালে শুরু হওয়া এই প্রাইভেসি সঙ্ক্রান্ত আইনী লড়াইয়ের মূল বিষয় ছিল ইউজারের ফেসবুক ‘লাইক’ কেন্দ্রিক। ব্যবহারকারীরা কোন ব্র্যান্ডের ফেসবুক পেজ লাইক করলে সংশ্লিষ্ট পেজের স্পন্সরড স্টোরিতে লাইক দাতা ফেসবুকারের নাম এবং প্রোফাইল ইমেজ দেখানো হয়। এই ব্যাপারটিকে অনেকেই তাদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘন হিসেবে দেখছেন। আর সেখান থেকেই ঐ আইনী প্রক্রিয়া শুরু হয়।

ক্যালিফোর্নিয়ার একটি আদালতের রায় অনুযায়ী বিজ্ঞাপনের মধ্যে একজন সদস্যের তথ্য এভাবে ব্যবহার করাটা বেআইনী। শুধু মাত্র সাইন-আপ করার সময় ‘টার্মস এন্ড কন্ডিশনস’ চেকবক্সে টিক নিয়েই এই ইস্যুতে স্বচ্ছতা আনা যাবেনা বলেও উক্ত রুলিং এ উঠে আসে।

এখন সমঝোতায় আসার পর ফেসবুক কীভাবে স্পন্সরড স্টোরি ঢেলে সাজাবে সেটিই হচ্ছে দেখার বিষয়। প্রাথমিকভাবে ঐ অভিযোগপত্র দায়ের করার পর এ পর্যন্ত (১৯ মাস) স্পন্সরড স্টোরি প্রোগ্রাম থেকে প্রায় ২৩৪ মিলিয়ন ডলার আয় করেছে ফেসবুক।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,384 other subscribers

Comments