উইন্ডোজ বিটলকার কি? এর সুবিধা ও ব্যবহারের নিয়ম জানুন

উইন্ডোজ বিটলকার হলো উইন্ডোজ কম্পিউটার এর একটি অসাধারণ ফিচার যা সম্পর্কে অধিকাংশ উইন্ডোজ ব্যবহারকারী জানেন না। এই পোস্টে জানবেন উইন্ডোজ বিটলকার কি, কিভাবে কাজ করে, এর সুবিধা ও ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে।

উইন্ডোজ বিটলকার কি?

বিটলকার হলো উইন্ডোজ এর ন্যাটিভ সিকিউরিটি ফিচার যা দ্বারা যেকোনো ড্রাইভে থাকা ফাইল এনক্রিপ্ট করা যায়। মূলত যেকোনো ফাইলকে সর্বোচ্চ সুরক্ষা প্রদানে উইন্ডোজ বিটলকার ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এনক্রিপট করা ফাইল ডিক্রিপ্ট করতে নির্দিষ্ট কি (Key) বা সহজ কথায় পাসওয়ার্ড এর প্রয়োজন হয়। 

উইন্ডোজ বিটলকার কিভাবে কাজ করে?

TPM বা Trusted Platform Module নামে একটি হার্ডওয়্যার উপাদানের মাধ্যমে উইন্ডোজ বিটলকার কাজ করে। বিটলকার হার্ড ড্রাইভের জন্য কি তৈরী করে যা উক্ত ড্রাইভ অ্যাকসেস করতে কাজে লাগে। আবার একটি রিকভারি কি ও রয়েছে যা আসল কি ভুলে গেলে কাজে আসবে। এই রিকভারি কি অবশ্যই নিরাপদ কোনো স্থানে সংরক্ষণ করতে হয়। 

বিটলকার হচ্ছে একটি ইন্ডাস্ট্রি স্ট্যান্ডার্ড সিক্যুরিটি ব্যবস্থা যা বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ব্যবহৃত হয়ে আসছে। কম্পিউটারে কোনো ড্রাইভ যদি বিটলকার দিয়ে লক করা হয় তাহলে সেই ড্রাইভে প্রবেশ করতে চাইলে নির্দিষ্ট পাসওয়ার্ড এন্টার করতে হবে। পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে আলাদা রিকভারি কি দিয়ে ড্রাইভ আনলক করা যাবে। তবে এই রিকভারি কি এবং পাসওয়ার্ড উভয়ই যদি হারান তাহলে ডাটা হারাতে হবে।

বিটলকার আসলে ফাইলগুলো এনক্রিপ্ট করে। ফলে এদের গঠনে পরিবর্তন হয়ে যায়, যা ডিক্রিপ্ট না করলে কেউ সেসব ফাইল আর ব্যবহার করতে পারবেনা। আপনি যদি এনক্রিপশন সম্পর্কে জেনে থাকেন তাহলে বিটলকার বুঝতে আপনার জন্য সহজ হবে। 👉 এনক্রিপশন কী? এটা কী কাজে লাগে?

বিটলকার ব্যবহারের সুবিধা

বিটলকার মূলত কম্পিউটার ড্রাইভ এনক্রিপ্ট করে, এই বিষয়ে তো ধারণা পাওয়া গেলো। মূলত ডাটা ব্রিচ বা হ্যাক এর হাত থেকে কম্পিউটারকে সুরক্ষা প্রদান করে বিটলকার। TPM মডিউল ব্যবহার করে সম্পূর্ণ ড্রাইভকে সর্বোচ্চ সুরক্ষা প্রদান করে বিটলকার। চাইলে Active Directory তে অটোমেটিক সেভ হওয়ার জন্য বিটলকার সেটাপ করা যায়।

ফাইল এনক্রিপ্ট করতে কোনো ধরনের বাড়তি সফটওয়্যারের দরকার নেই উইন্ডোজ বিটলকার এর ক্ষেত্রে। এটা উইন্ডোজের মধ্যে বিল্ট-ইন থাকে। এছাড়া ড্রাইভের রিড ও রাইট স্পিডে তেমন কোনো আহামরি প্রভাব ফেলেনা বিটলকার। আবার বিটলকার সেটাপ করাও বেশ সহজ যা এই পোস্ট থেকেই শিখতে পারবেন।

বিটলকার ব্যবহার করতে কি লাগে?

বলে রাখা ভালো যে, কিছু কিছু কম্পিউটার বা ড্রাইভে বিটলকার কাজ করবেনা। নিম্নোক্ত অপারেটিং সিস্টেমগুলোতে উইন্ডোজ বিটলকার কাজ করেঃ

  • উইন্ডোজ ভিসতা ও উইন্ডোজ ৭ এর Ultimate ও Enterprise এডিশন (TPM ভার্সন কমপক্ষে ১.২ বা তার বেশি ও চালু থাকতে হবে)
  • উইন্ডোজ ৮ ও ৮.১ এর Pro ও Enterprise এডিশন
  • উইন্ডোজ ১০ বা ১১ এর Pro, Education ও Enterprise এডিশন
  • উইন্ডোজ সার্ভার ২০০৮ বা নতুন

এসবের পাশাপাশি কম্পিউটারে এডমিনিস্ট্রেটর হিসেবে লগিন করতে হবে। এছাড়া রিকভারি কি প্রিন্ট করতে প্রিন্টার প্রয়োজন হবে (ঐচ্ছিক)।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

উইন্ডোজ বিটলকার কি? এর সুবিধা ও ব্যবহারের নিয়ম জানুন

উইন্ডোজ বিটলকার ব্যবহারের নিয়ম

বিটলকার চালু করতে স্টার্ট মেন্যু এর সার্চবক্সে Manage Bitlocker লিখে সার্চ করুন। এছাড়া Device Encryption সেকশনে ডেডিকেটেড সেকশনে এই সেটিংস পেয়ে যাবেন। উল্লেখ্য যে উইন্ডোজ ১০ হোম এডিশনে বিটলকার কাজ করেনা। আপনার কম্পিউটারে বিটলকার সাপোর্ট করলে Turn on Bitlocker অপশন চালু করে এক ক্লিকে ফিচারটি ব্যবহার করতে পারবেন। এরপর নতুন সেটিংস দেখতে পাবেন, যেখান থেকে ধাপে ধাপে এগিয়ে যেতে হবে।

এবার সিস্টেম সেটিংস ও কনফিগারেশন চেক করে আপনার কম্পিউটারে বিটলকার কাজ করবে কিনা তা যাচাই করবে উইন্ডোজ। যদি আপনার কম্পিউটারে TPM মডিউল বন্ধ থাকে, তবে তা অটোমেটিক চালু করবে উইন্ডোজ। এই ধাপে কম্পিউটার এক বা একাধিকবার চালু করে আপনার কম্পিউটার প্রস্তুত কিনা তা যাচাই করার প্রয়োজন হতে পারে।

এনক্রিপশন শুরু হওয়ার আগে একটি পাসওয়ার্ড দিতে বলা হবে। প্রতিবার আপনার কম্পিউটার চালু করার পর ঐ ড্রাইভ অ্যাকসেস করার সময় এটি ব্যবহৃত হবে। আপনি চাইলে এটি ম্যানুয়ালি প্রদান করতে পারেন বা ইউএসবি ড্রাইভও ব্যবহার করতে পারেন।

👉 উইন্ডোজ পিসির নিরাপত্তার জন্য এই সেটিংগুলো চালু করুন

এবার রিকভারি কি সেটিংস দেখতে পাবেন যে পিন কম্পিউটার অ্যাকসেস করতে না পারলে তখন ব্যবহৃত হবে। উইন্ডোজ ১০ এ save the file to your Microsoft account, save to a flash drive, save to a local or cloud file, print the recovery key manually অপশন দেখতে পাবেন। আপনার যে অপশনটির সুবিধার মনে হয়, সেটি সিলেক্ট করুন।

এরপর Next এ ক্লিক করলে আপনার ড্রাইভের কতটুকু অংশ এনক্রিপ্ট করতে চান তা সিলেক্ট করতে বলা হবে। “Used disk space only” ও “whole drive” এই দুইটি অপশন পাবেন। Used disk অপশনটি অনেক দ্রুত কাজ করে এবং নতুন কম্পিউটার ও ড্রাইভের জন্য এটি ভালো অপশন। আবার ইতিমধ্যে ব্যবহৃত ড্রাইভের ক্ষেত্রে Whole Drive অপশনটি অধিক কার্যকরী। উল্লেখ্য যে Whole drive সিলেক্ট করলে এই প্রক্রিয়া একটু বেশি সময় নিবে।

উইন্ডোজ ১০ বিল্ড ১৫১১ বা এর চেয়ে নতুন ভার্সনের ক্ষেত্রে এনক্রিপশন মোড সিলেক্ট করতে বলা হতে পারে। এখান থেকে Compatible অপশনটি রিমুভেবলল ড্রাইভের জন্য ভালো ও পুরোনো কম্পিউটারেও কাজ করে। আর New অপশনটি ডিভাইস স্টোরেজ এর ক্ষেত্রে কাজ করে। Run Bitlocker System check বাটনে ক্লিক করলে আপনার এনক্রিপশন প্রসেস শুরু হওয়ার আগে উইন্ডোজ সিস্টেম চেক করবে। এবার কম্পিউটার ম্যানুয়ালি রিস্টার্ট করুন ও পাসওয়ার্ড প্রদান করুন। এবার আপনি সিলেক্ট করা ড্রাইভ এনক্রিপ্ট করতে প্রস্তুত কিনা তা জিজ্ঞেস করা হলে Confirm করুন। 

👉 উইন্ডোজ পিসিতে স্টোরেজ খালি করার উপায়

বিটলকার ব্যবহার করে ফাইল এনক্রিপ্ট হওয়ার সময় নির্ভর করে কতগুলো বা কী পরিমাণ ফাইল এনক্রিপ্ট করছেন তার উপর। নতুন কম্পিউটারে খুব দ্রুত,প্রায় ২০মিনিটের মধ্যে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। অন্যদিকে পুরোনো কম্পিউটারের ক্ষেত্রে ২ থেকে ৩ঘন্টাও সময় লাগতে পারে। আপনার যদি দ্রুত এনক্রিপ্ট করতে হয় তবে Used Disk space only অপশন সিলেক্ট করুন।

বিটলকার ডিক্রিপ্ট করার নিয়ম

আপনার ফাইলের এনক্রিপশন এর প্রয়োজন না হলে তা যেকোনো সময় ডিক্রিপ্ট করতে পারবেন। কন্ট্রোল প্যানেলের manage Bitlocker বা device encryption settings অপশনে প্রবেশ করে Turn off Bitlocker অপশন পেয়ে যাবেন। আপনাকে বিষয়টি কনফার্ম করতে বলা হলে কনফার্ম করুন ও কম্পিউটার রিস্টার্ট করুন।

এভাবে বেশ সহজে উইন্ডোজ বিটলকার ব্যবহার করতে পারবেন। আপনার কম্পিউটারে থাকা গুরত্বপূর্ণ ফাইল এনক্রিপ্ট করে সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারবেন।

👉 ভিডিওঃ ল্যাপটপ কেনার সময় যা খেয়াল রাখতে হবে

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,264 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.