ফোন চুরি রোধ করার সেরা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ

নিজের শখের ফোনটি চুরি হওয়া থেকে রক্ষা করতে চায় সবাই। তাই আগে থেকে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে একটি এন্টি-থেফট সিস্টেম ইন্সটল করে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গুগল এর ফাইন্ড মাই ডিভাইস এর পাশাপাশি আরো কিছু থার্ড পার্টি অ্যাপ রয়েছে যেগুলো ফোন চুরি হওয়া রোধ করতে পারে। চলুন জেনে নেওয়া যাক চুরি রোধ করার সেরা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপসমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত।

ফাইন্ড মাই ডিভাইস

ফাইন্ড মাই ডিভাইস হলো গুগল এর এন্টি-থেফট অ্যাপ যা প্রতিটি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সিকিউরিটি অপশনে বিল্ট-ইন থাকে। এটি ব্যবহার করে ফোন রিমোটলি লক করা, ডিভাউস থেকে সাইন আউট করা বা কনটেন্ট মুছে দেওয়ার মত কাজ করা যায়। এছাড়া ম্যাপে ফোনের লোকেশন দেখা বা শব্দ প্লে করে ফোন খুঁজে বের করা যায় ফাইন্ড মাই ডিভাইস অ্যাপের মাধ্যমে।

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে Find My Device ফিচারটি ডিফল্টভাবে চালু করা থাকে, তবে ফিচারটি চালু আছে কিনা তা চেক করে নেওয়া উচিত। সেটিংস থেকে Google > Security > Find My Device এ প্রবেশ করে উইন্ডোর টপে থাকা টোগল অন করে দিন যদি ইতিমধ্যে চালু হয়ে না থাকে। ওয়েব অ্যাপ কিংবা স্মার্টফোন অ্যাপের মাধ্যমে ফাইন্ড মাই ডিভাইস ব্যবহার করা যাবে।

ম্যাকাফি মোবাইল সিকিউরিটি

McAfee মূলত তাদের এন্টি-ভাইরাস অ্যাপের জন্য পরিচিত, তবে তাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপে এন্টি-থেফট ফিচারও রয়েছে যা এটিকে ওয়ান-স্টপ সিকিউরিটি টুলে পরিণত করেছে।

ম্যাকাফি এর এই এন্টি-থেফট ফিচার এর মাধ্যমে ডিভাইস লক সিকিউরিটি, থিফ ক্যামেরা ও অ্যাপ আনইন্সটলেশন প্রটেকশন সুবিধা পাওয়া যায়। কেউ যদি আপনার পিন তিনবারের বেশি ভুল প্রদান করে তবে ফোনটি অটোমেটিক লক হয়ে যাবে। এই অবস্থায় যে ফোনটি আনলক করার চেষ্টা করেছে তা ছবি তুলবে অ্যাপটি এবং মাস্টার পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে তবেই এই লক খোলা যাবে।

ম্যাকাফি মোবাইল সিকিউরিটি অ্যাপটিতে ফাইন্ড মাই ফোন ফিচার রয়েছে। এই ফিচারের মাধ্যমে ফোন ম্যাপে দেখা যায়, রিমোটলি এলার্ম সাউন্ড প্লে করা যায় ও এমনকি স্টেপ-বাই-স্টেপ লোকেশন ট্র‍্যাকিংও করা যায়। অ্যাপটি বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়, তবে আরো এক্সট্রা ফিচার নেওয়া যাবে বার্ষিক ৩০ ডলার ফি এর বিনিময়ে। McAfee Mobile Security ডাউনলোড করুন

এন্টি-থেফট এলার্ম

Anti-Theft Alarm অ্যাপটি মূলত চুরি প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে, এটি ব্যবহার করে ফোন লোকেট বা রিমোটলি ডাটা মুছে দেওয়ার মত কাজ করা যায়না। নাম থেকে অ্যাপটির কাজ সম্পর্কে অনেকটা ধারণা করা যায়। মূলত নির্দিষ্ট পরিস্থিতিতে অ্যাপটি বিশাল এলার্ম প্লে করবে। এছাড়া কেউ আপনার রাখা স্থান থেকে ফোন সরানোর চেষ্ঠা করলে অ্যাপটি এলার্ম বাজাবে। কেউ যদি ফোন চুরি করে থাকে বলে মনে করেন, তবে রিমোটলি এলার্ম একটিভ করা যাবে।

মজার ব্যাপার হলো আপনার ফোন সাইলেন্ট থাকলেও এন্টি-থেফট এলার্ম অ্যপটির এলার্ম ফুল সাউন্ডে প্লে হবে। একবার একটিভ করা হলে পাসওয়ার্ড ছাড়া এই এলার্ম বন্ধ করা যাবেনা, এমনকি ব্যাটারি না সিম পরিবর্তন করলেও এটি বন্ধ করা যাবেনা। Anti-Theft Alarm ডাউনলোড করুন

ক্রুকক্যাচার

ফোন চুরি হয়ে গেলে CrookCatcher অ্যাপটি আপনার ফোনের চোরকে ধরতে সাহায্য করে। কেউ যদি ভুল কোড এর মাধ্যমে ফোন আনলক করার চেষ্টা করে, তবে অ্যাপটি তার ছবি তুলে আপনাকে ইমেইলে পাঠিয়ে দিবে। ইমেইলে ছবির পাশাপাশি জিপিএস কোঅর্ডিনেটস, আনুমানিক স্ট্রিট এড্রেস ও ম্যাপও অন্তর্ভুক্ত থাকে। ছবি তুলে ইমেইল পাঠানোর আগে কতবার ভুল পাসওয়ার্ড প্রদান করা হবে তা সেট করা যাবে অ্যাপের মাধ্যমে।

এই তালিকার অন্যান্য অ্যাপ ও ক্রুকক্যাচার এর মধ্যে পার্থক্য হলো ব্যাটারি ড্রেইনিং এর দিক দিয়ে। এই অ্যাপটি শুধুমাত্র ভুল কোড প্রদান করলে তবেই একটিভেট হয়, অর্থাৎ অ্যাপটি ব্যাকগ্রাউন্ডে সবসময় চালু থাকেনা যার ফলে ব্যাটারি সাশ্রয় হয়। অ্যাপটি বিনামূল্যে ব্যবহার করা যাবে, তবে এতে এড রয়েছে। CrookCatcher ডাউনলোড করুন

প্রি

Prey হলো আরেকটি এন্টি-থেফট মোবাইল ট্র‍্যাকার অ্যাপ। এটি একটি ক্রস-প্ল্যাটফর্ম টুল যা মোবাইল, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, ইত্যাদি ডিভাইস ট্র‍্যাক করতে পারে। অ্যাপটির ফ্রি ভার্সন ব্যবহার করে সর্বোচ্চ তিনটি ডিভাইস ট্র‍্যাক করা যাবে, তবে তা নির্দিষ্ট সিকিউরিটি জোনে লিমিটেড।

প্রি অ্যাপটির প্রিমিয়াম ভার্সন এর দাম মাসিক ৫ ডলার যাতে জিও-ফেন্সিং, কন্ট্রোল জোন অ্যাকশন, রিমোট স্ক্রিন লক, মেসেজ এলার্ট, লোকেশন হিস্টোরি, জিপিএস ট্র‍্যাকিং, ওয়াই-ফাই ট্রায়াংগুলেশন ও জিওআইপি এর মত ফিচার পাওয়া যাবে। এছাড়া প্রিমিয়াম প্ল্যান ব্যবহার করলে রিমোটলি ডাটা মুছে দেওয়া কিংবা উদ্ধার করা যাবে। Prey ডাউনলোড করুন

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

android phone

হোয়্যার’স মাই ড্রয়েড

Where’s My Droid অ্যাপটির পেইড ভার্সন থাকলেও ফ্রি ভার্সন ব্যবহার করে জিপিএস দ্বারা ফোন লোকেট করা, পাসকোড সেট করা, এসডি কার্ড মুছে দেওয়া, ফ্যাক্টরি রিসেট করা, সিম পরিবর্তন করলে এলার্ট পাওয়া, ইত্যাদি সুবিধা পাওয়া যায়।

Elite নামের প্রিমিয়াম প্ল্যান এর মাধ্যমে রিমোটলি ছবি তোলা, কেউ ফোন আনলক করতে গিয়ে ব্যার্থ হলে তার ছবি তোলা, জিও-ফেন্সিং, প্যাসিভ লোকেশন ট্র‍্যাকিং, আনইন্সটেলশন প্রিভেনশন ও মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্ট এর মত ফিচার পাওয়া যায়। অ্যাপটির প্রিমিয়াম প্লান এর দাম প্রতি মাসে মাত্র ১ডলার ও এন্যুয়াল প্ল্যানের দাম মাত্র ৯ডলার। Where’s My Droid ডাউনলোড করুন

তালিকায় উল্লেখিত প্রতিটি অ্যাপ বেশ নির্ভরযোগ্য ও ব্যবহারকারী দ্বারা খুবই ভালো রেটিং প্রাপ্ত। আপনার ফোন চুরি হওয়া থেকে রক্ষা করতে যেকোনো একটি অ্যাপ আপনার ফোনে ইন্সটল করে রাখুন।

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 8,561 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *