ইউটিউব ভিডিও দ্বন্দ্বঃ রাশিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে আদালতে গেল গুগল!

YouTube

সার্চ সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গুগল এবার রাশিয়ান সরকারের ইউটিউব ভিডিও সংক্রান্ত একটি সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে দেশটির আদালতে আপিল করেছে। কর্তৃপক্ষ সেখানে গুগলের ভিডিও শেয়ারিং সাইটের একটি ক্লিপ কালো তালিকাভুক্ত করার পর মার্কিন কোম্পানিটি এ পদক্ষেপ নিল। গুগল বলছে, তারা রাশিয়ার নীতি-নির্ধারকগণ কর্তৃক গৃহীত কালো তালিকা সংক্রান্ত বিধিমালা সম্পর্কে ভালভাবে জানার জন্যই আদালতের স্মরণাপন্ন হয়েছে।

যে ভিডিও ক্লিপটি নিয়ে ঘটনার উৎপত্তি সেটি ইতোমধ্যেই রাশিয়ায় দেখানো বন্ধন করে দিয়েছে গুগল। তবে অন্যান্য দেশ থেকে ভিডিওটি দেখা যাবে। ১৮ জানুয়ারি ২০১২ সালে রাশিয়া ভিত্তিক স্নিগোভা কর্তৃক আপলোড করা ঐ ভিডিওর বিরুদ্ধে অভিযোগ হচ্ছে এই যে, এটি “কিভাবে আত্নহত্যা করতে হয়” সেই তথ্য প্রদান করে। এতে দেখা যায় একজন মহিলা একটি রেজর ব্লেড এবং কৃত্রিম সাজসজ্জা নিয়ে এমন কিছু করছে যাতে মনে হয় তিনি তার একটি কব্জি কেটে ফেলেছেন।

গত নভেম্বরে মস্কো তাদের তথ্য আইনে একটি সংশোধনী এনেছে যার ফলে রাশিয়ায় শিশুদেরকে অনাকাঙ্ক্ষিত কার্যকলাপ থেকে রক্ষা করার জন্য যেকোন ওয়েবসাইট অফলাইনে নেয়া যাবে। অভিযুক্ত ভিডিও ক্লিপ দেখানো বন্ধ না করলে সেখানে পুরো ইউটিউব সাইট স্থানীয় আইএসপি’র মাধ্যমে ব্লক করে দেয়া হত।

রাশিয়ায় গুগলের ইউটিউব এর আগেও বিভিন্ন সময় সরকারী হস্তক্ষেপের কারণে ভিডিও ব্লক করে দিয়েছে। তবে ঠিক কতগুলো ভিডিও দেখানো বন্ধ হয়েছে তার নির্দিষ্ট কোন সংখ্যা প্রকাশ করা হয়নি।

শুধু রাশিয়ায় নয় বিশ্বের আরও অনেক দেশে এখন বেশ কিছু ইস্যুতে ভিডিও ক্লিপ এমনকি পুরো ইউটিউব সাইট ব্লক করার ঘটনা ঘটছে যা আপনার আগে থেকেই জানা থাকার কথা।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,980 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.