ওয়ালটন প্রিমো R10 – সেরা বাজেট স্মার্টফোন?

বাংলাদেশের স্মার্টফোন মার্কেটে ওয়ালটন এর অবদান অনন্য। একটা সময় যেখানে দামী বিদেশী ব্র্যান্ডের ফোনগুলো কিনতে হিমশিম খাচ্ছিলো দেশের মানুষ, ঠিক তখনই সাশ্রয়ী মূল্যে দেশবাসীর হাতে ফোন পৌঁছে দেয় ওয়ালটন। আমাদের দেশে স্মার্টফোন এর প্রচলনের পেছনে ওয়ালটন এর ভূমিকা অনেক।

সবসময় সাশ্রয়ী মূল্যে সেরা স্পেসিফিকেশন প্রদানের চেষ্টা করে এসেছে ওয়ালটন। সেই ধারা অব্যহত রাখতে দেশের বাজারে আরেকটি বাজেট ফোন নিয়ে এলো কোম্পানিটি। কথা বলছি ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটি নিয়ে। ঊর্ধ্বগতির এই বাজারে ওয়ালটন এর এই নতুন ফোন এক স্বস্তির নিঃশ্বাস বাজেট ক্রেতাদের কাছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক এই নতুন ওয়ালটন ফোন সম্পর্কে।

ডিজাইন ও ডিসপ্লে

ডিজাইনের দিক দিয়ে ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটিকে অপরিচিত মনে হবেনা। আইফোন প্রো সিরিজের ব্যাক ক্যামেরা ডিজাইন রীতিমত উপস্থিত এই ফোনে, যা দূর থেকে দেখে যেকেউ আইফোন ভেবে বসতে পারেন। ফোনের ফ্রন্টে রয়েছে নচ ডিসপ্লে।

এবার আসি ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটির ডিসপ্লে সেকশনে। ৬.৫২ইঞ্চির এইচডিপ্লাস ডিসপ্লে রয়েছে এই ফোনে। দাম বিবেচনায় এই ফোনের ডিসপ্লে মানানসই বলা চলে। তবে এখানে অনেকে ৯০হার্জ রিফ্রেশ রেট থাকা ভালো একটি এডিশন হতে পারতো বলে দাবি করবেন।

এছাড়া ফুলএইচডিপ্লাস ডিসপ্লে এর কমতি একদিকে ভালো ব্যাপার কারণ ফোনে থাকা চিপসেট এই ডিসপ্লেকে পাওয়ার প্রদান করতে গিয়ে বেশ স্ট্রাগল করতো। এদিকে ফোনের ফ্রন্টে থাকা ডিসপ্লে নচ মূলত একটি সাবজেক্টিভ বিষয় যা কারো ভালো না লাগা ব্যক্তিগত বিষয়।

পারফরম্যান্স

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটিতে ইউনিসক টাইগার টি৬১০ প্রসেসর ব্যবহৃত হয়েছে। এই প্রসেসরটি ইতিমধ্যে আমরা অনেক বাজেট ফোনে ব্যবহৃত হতে দেখেছি। পারফরম্যান্স এর দিক দিয়ে এই প্রসেসর মিডিয়াটেক জি৭০ এর সমতুল্য।

সাধারণ দৈনিক স্মার্টফোন ব্যবহার থেকে শুরু করে টুকটাক গেমিং করা যাবে এই ওয়ালটন প্রিমো আর১০ এর টি৬১০ প্রসেসরের কল্যাণে। ফোনটিতে ৪জিবি র‍্যাম ও ৬৪জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ রয়েছে, আরো থাকছে এসডি কার্ড ব্যবহার করে স্টোরেজ বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ।

বাজেট ফোন হলেও এই ফোনে সাইড মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর রয়েছে। এছাড়া এফএম রেডিও, ইউএসবি-সি, ফেস আনলক এর মত অনেক ফিচার পেয়ে যাবেন এই ফোনে। ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটিতে একটি এক্সট্রা সাইড বাটন রয়েছে যা কাস্টমাইজেবল একশনে ব্যবহার করা যাবে।

ক্যামেরা

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটির ব্যাকে রয়েছে ১৩মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ। এখানে ১৩মেগাপিক্সেল মেইন সেন্সরকে সাহায্য করবে বাকি দুইটি ২মেগাপিক্সেলের এসিস্টিং লেন্স। বলে রাখা ভালো ফোনটিতে ফুলএইচডি রেজ্যুলেশনে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে ফ্রন্ট ও ব্যাক, উভয় ক্যামেরা দ্বারা। ফোনের ফ্রন্টে পেয়ে যাবেন ৮মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ - Walton Primo R10

👉 ওয়ালটন মোবাইলের দাম

ব্যাটারি

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটিতে ৪৮৫০মিলিএম্প এর ব্যাটারি রয়েছে। ফোনের বক্সে পেয়ে যাবেন ১০ওয়াট এর চার্জার। এখানে বড় ব্যাটারির এবং পাওয়ার-এফিসিয়েন্ট ডিসপ্লে ও প্রসেসরের কল্যাণে ভালো ব্যাটারি ব্যাকাপ পেলেও ফোনটি চার্জ দিতে বেশ অনেকটা সময় খরচ হবে যা কিছুটা বিরক্তিকর বিষয়। ওয়ালটন এখানে অন্তত ১৮ওয়াট এর চার্জার প্রদান করতে পারতো।

দাম

ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটি পাওয়া যাবে বোটল গ্রিন, ফোর্ড ব্লু, ও মিডনাইট গ্রিন কালারে। ৪জিবি র‍্যাম ও ৬৪জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্ট এর ওয়ালটন প্রিমো আর১০ এর দাম ১২,৯৯০টাকা।

সুলভ মূল্যে এই ফোন অফার করছে ভালো ডিসপ্লে, ডিসেন্ট ক্যামেরা সেটাপ, বিশাল ব্যাটারি, সাইড মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর এবং চলনসই প্রসেসর। বিশেষ করে বর্তমান স্মার্টফোন বাজারের অবস্থা বিবেচনা করলে ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটিকে বেশ ভালো একটি ডিল বলতে হবে।

আপনার কাছে ওয়ালটন প্রিমো আর১০ ফোনটি কেমন লেগেছে? ফোনটি সম্পর্কে আপনার মতামত আমাদের জানাতে পারেন কমেন্ট সেকশনে।

👉 ভিডিওঃ স্মার্টফোন কেনার সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল করা দরকার

👉 আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রিপশন কনফার্ম করুন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,813 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.