শাওমি ১১টি সিরিজ এলো বাংলাদেশে

বাংলাদেশে অফিসিয়ালি চলে এলো শাওমির এই বছরের ফ্ল্যাশশিপ লাইন-আপ, শাওমি ১১টি সিরিজ। শাওমি ১১টি ও শাওমি ১১টি প্রো – এই ডিভাইস দুইটি এখন থেকে অফিসিয়ালি দেশের বাজারে পাওয়া যাবে। বাজেটের মধ্যে ফ্ল্যাগশিপ লেভেল পারফরম্যান্স প্রদান করতে সক্ষম ফোন দুইটি। ১২০হার্জ রিফ্রেশ রেট, হাইপারচার্জিং, ১০৮মেগাপিক্সেল এর মতো আকর্ষণীয় ফিচারযুক্ত এই ফোন দুইটিকে শাওমি “সিনেম্যাজিক” উপাধি দিয়েছে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক শাওমি ১১টি ও শাওমি ১১টি প্রো এর দাম, স্পেসিফিকেশন ও আকর্ষণীয় ফিচারসমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত।

শাওমি ১১টি – Xiaomi 11T

শাওমি ১১টি প্রো ফোনটির ডিসপ্লে হিসেবে থাকছে ৬.৬৭ইঞ্চির ফুল এইচডি+ অ্যামোলেড প্যানেল, যা কর্নিং গরিলা গ্লাস ভিক্টাস দ্বারা প্রটেক্টেড। ডিসপ্লের পাঞ্চ-হোলে থাকছে সেল্ফি ক্যামেরা।

আরো থাকছে ১২০হার্জ রিফ্রেশ রেট, যা ফোনটির ইউজার এক্সপেরিয়েন্সকে আরো স্মুথ করে তুলবে। তবে ভ্যারিয়েবল রিফ্রেশ রেট ফিচারটি থাকছেনা, অর্থাৎ ৬০হার্জ অথবা ১২০হার্জ থেকে যেকোনো একটি সিলেক্ট করা যাবে। এছাড়াও এই ফোনের ডিসপ্লে ৪৮০হার্জ টাচ স্যাম্পলিং রেট ও ১মিলিয়নের অধিক কালার সাপোর্ট করে।

অন্যান্য সব ফোনের মত শাওমি ১১টি ফোনটিতেও ৩.৫মিলিমিটার হেডফোন জ্যাক থাকছে। ফোনটিতে ডুয়াল স্পিকার থাকলেও থাকছেনা ডলবি এটমোস সাপোর্ট।

শাওমি ১১টি পাওয়া যাবে শুধুমাত্র ৮জিবি র‍্যাম ভ্যারিয়েন্টে। তবে স্টোরেজের ক্ষেত্রে ১২৮জিবি ও ২৫৬জিবি থেকে বেছে নেওয়ার সুযোগ থাকছে।

শাওমি ১১টি ফোনটি চলবে মিডিয়াটেক এর ফ্ল্যাগশিপ চিপ, ডাইমেনসিটি ১২০০-আলট্রা দ্বারা। তবে ফ্ল্যাগশিপ চিপ হলেও এটি ১১টি প্রোতে থাকা স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ এর মতো শক্তিশালী নয়।

শাওমি ১১টি ফোনটির ব্যাকে থাকছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ। ১০৮মেগাপিক্সেলের বিশাল একটি লেন্স থাকছে ফোনটির ব্যাকে, যা স্যামসাং আইসোসেল এইচএম ২ সেন্সর ব্যবহার করে। একই সেন্সর ১১টি প্রো ফোনটিতেও ব্যবহার করা হয়েছে।

৮মেগাপিক্সেল আলট্রা-ওয়াইড ক্যামেরা থাকছে শাওমি ১১টি ফোনটিতেক্স যা ট্রাভেল শট বা গ্রুপ ফটো তুলতে বেশ সাহায্য করবে। শাওমি ১১টি এর ক্ষেত্রে একটি ভালো বিষয় হচ্ছে এটির ম্যাক্রো ক্যামেরা একই সাথে টেলিফটো ক্যামেরার কাজ করে। যার ফলে ম্যাক্রো ফটোগ্রাফির পাশাপাশি ২এক্স টেলিফটো ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা যাবে ৫মেগাপিক্সেল টেলিম্যাক্রো ক্যামেরাকে। ফোনটির সামনে রয়েছে ১৬মেগাপিক্সেলের সেল্ফি ক্যামেরা।

শাওমি ১১টি - Xiaomi 11T

মি ১১টি এর বক্সেই দেওয়া থাকবে ৬৭ওয়াটের ফাস্ট চার্জার। মাত্র ৩০মিনিটের মধ্যে ফোনটকে শূন্য থেকে ৯০% চার্জ করতে সক্ষম এই ফাস্ট চার্জার। ফোনটির ব্যাটারি ৫০০০মিলিএম্প এর হওয়ায় যেকোনো ধরনের ব্যবহারকারী এক থেকে দুইদিন ব্যাটারি ব্যাকাপ পেয়ে যাবেন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

শাওমি ১১টি এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৬৭ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ১২০০-আলট্রা
  • র‍্যামঃ ৮জিবি
  • স্টোরেজঃ ১২৮জিবি/২৫৬জিবি
  • মেইন ক্যামেরাঃ ট্রিপল ক্যামেরা
    • ১০৮মেগাপিক্সেল ওয়াইড এংগেল ক্যামেরা
    • ৮মেগাপিক্সেল আলট্রা-ওয়াইড এংগেল ক্যামেরা
    • ৫মেগাপিক্সেল টেলিম্যাক্রো ক্যামেরা
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ১৬মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০মিলিএম্প
  • চার্জিংঃ ৬৭ওয়াট শাওমি হাইপারচার্জ

শাওমি ১১টি এর দামঃ

  • ৮জিবি র‍্যাম + ১২৮জিবি স্টোরেজঃ ৪৯,৯৯৯টাকা
  • ৮জিবি র‍্যাম + ২৫৬জিবি স্টোরেজঃ ৫৩,৯৯৯টাকা
Xiaomi 11T

শাওমি ১১টি প্রো – Xiaomi 11T Pro

২০৪গ্রাম ওজনের ফোন শাওমি ১১টি প্রো ফোনটিতে রয়েছে সলিড অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেম ও পলিকার্বনেট রিয়ার কভার। এই ফোনটিতেও পাওয়া যাবে ১২০হার্জ রিফ্রেশ রেটযুক্ত ৬.৬৭ইঞ্চির ডিসপ্লে।

স্পেসিফিকেশনের দিক দিয়ে দাম বিবেচনায় কোনো ধরনের কম্প্রোমাইজ চোখে পড়বেনা শাওমি ১১টি প্রো ফোনটিতে। কোয়ালকম এর স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে ফোনটিতে, যা এতোটাই শক্তিশালী যে, যে কোনো ধরনের ব্যবহারকারীর জন্য সম্পূর্ণরুপে ব্যবহার করাও অসম্ভব।

এই প্রসেসরকে ব্যাকাপ দিচ্ছে ৮জিবি র‍্যাম। ১২৮জিবি ও ২৫৬জিবি স্টোরেজ থেকে নিজের পছন্দের স্টোরেজ মডেল বেচে নেওয়ার সুযোগ থাকছে। তবে থাকছেনা কোনো মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট।

👉 শাওমি MIUI ১৩ এর নতুন ফিচার ও বিস্তারিত জানুন

মি ১১, রেডমি নোট ১০ প্রো ও অনার ৫০ এর মতো একই ১০৮মেগাপিক্সেল সেন্সর, স্যামসাং আইসোসেল এইচএম২ ব্যবহার করা হয়েছে শাওমি ১১টি প্রো ফোনটিতে। তবে শাওমির এআই শট এসিস্ট্যান্ট সিনে থাকা অবজেক্টকে ডিটেক্ট করতে পারায় যেকোনো পরিস্থিতিতে ভালো ছবি প্রদানে সক্ষম এই সেন্সর।

শাওমি ১১টি এর মতো ৫মেগাপিক্সেলের ২এক্স টেলিফটো লেন্স রয়েছে শাওমি ১১টি প্রো তে, যা একই সাথে ম্যাক্রো ক্যামেরা হিসেবেও কাজ করে। এছাড়াও ১৬মেগাপিক্সেল সেল্ফি ক্যামেরা থাকছে ফোনটির সামনে।

শাওমি ১১টি প্রো ফোনটিতে ব্যাটারি হিসেবে থাকছে ৫০০০মিলিএম্প এর পাওয়ারসেল। তবে আসল আকর্ষণ হচ্ছে শাওমি ১১টি প্রো এর ১২০ওয়াট হাইপারচার্জিং ফিচার। এই ফাস্ট চার্জিং ফোনটিকে মাত্র ২০মিনিটের মধ্যে শূণ্য থেকে ১০০% চার্জ করতে সকঢম। এই ধরনের ব্লেজিং ফাস্ট চার্জিং শাওমি ১১টি প্রো ফোনটির প্রধান সেলিং পয়েন্ট হতে যাচ্ছে।

শাওমি ১১টি প্রো  - Xiaomi 11T Pro

উল্লেখ্য যে শাওমি ১১টি ও শাওমি ১১টি প্রো, দুইটি ফোনেও অনুপস্থিত রয়েছে ওয়্যারলেস চার্জিং। দাম বিবেচনায় এই ফিচারটি অনুপস্থিতি কিছুটা বেমানান বলা চলে।

শাওমি ১১টি প্রো এর স্পেসিফিকেশন

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৬৭ইঞ্চি 
  • প্রসেসরঃ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮
  • র‍্যামঃ ৮জিবি
  • স্টোরেজঃ ১২৮জিবি/২৫৬জিবি
  • মেইন ক্যামেরাঃ ট্রিপল ক্যামেরা
    • ১০৮মেগাপিক্সেল ওয়াইড এংগেল ক্যামেরা
    • ৮মেগাপিক্সেল আলট্রা-ওয়াইড এংগেল ক্যামেরা
    • ৫মেগাপিক্সেল টেলিম্যাক্রো ক্যামেরা
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ১৬মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৫০০০মিলিএম্প
  • চার্জিংঃ ১২০ওয়াট শাওমি হাইপারচার্জ

শাওমি ১১টি প্রো এর দামঃ

  • ৮জিবি র‍্যাম + ১২৮জিবি স্টোরেজঃ ৪৯,৯৯৯টাকা
  • ৮জিবি র‍্যাম + ২৫৬জিবি স্টোরেজঃ ৬৪,৯৯৯টাকা

শাওমি ১১টি ও শাওমি ১১টি প্রো ফোন দুইটি আপনার কাছে কেমন লেগেছে? ফোন দুইটি সম্পর্কে আপনার মতামত আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 6,275 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.