বায়োনিক হাত যেভাবে বদলে দিল একটি জীবন…

bionic hand of nigelসম্প্রতি নিউ ইয়র্ক সিটিতে অনুষ্ঠিত ২য় গ্লোবাল ফিউচার ২০৪৫ ইন্টারন্যশনাল কংগ্রেসে ভবিষ্যতের জন্য বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক উদ্ভাবন ও চিন্তাভাবনা নিয়ে আলোচনা হয়। ইভেন্টের উপস্থাপক হঠাত করেই এমন একটি ঘোষণা দিলেন যার জন্য কেউই প্রস্তুত ছিলেন না।

অনুষ্ঠানের হোস্ট সবাইকে ধৈর্য্য সহকারে একজন বক্তার কথা শোনার অনুরোধ করলেন, কেননা ওটাই ছিল তার জীবনে প্রথমবারের মত কোন জনসভায় কথা বলার অভিজ্ঞতা। নাইজেল অকল্যান্ড নামের এক ব্যক্তি শুরু করলেন তার উপস্থাপনা।

প্রায় ৬ বছর পূর্বে একটি দুর্ঘটনায় ডান হাত হারান তিনি। কয়েক মাস সার্জারি করেও তার হাতটিকে বাঁচানো যায়নি। বরং একটি কসমেটিক হাত (শুধুমাত্র দেখতে হাতের মত, কিন্তু কোন কাজের না) সেই জায়গা দখল করল। মিঃ অকল্যান্ড মানসিকভাবে প্রচণ্ড ভেঙে পড়লেন। এক সময়কার সঙ্গীতপ্রেমী একজন মানুষ ধীরে ধীরে আরও হতাশাগ্রস্ত হয়ে গেলেন।

কিন্তু গত বছর প্রথম দিকে অকল্যান্ডের জীবনে নতুন এক আশার আলো দেখা দিয়েছিল। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক একটি বায়োনিক প্রযুক্তি কোম্পানি তাকে বিবায়োনিক৩ রোবোটিক হাত ব্যবহারের ট্রায়ালে অংশ নেয়ার আহ্বান জানায়। তাতে সাড়া দিয়ে অকল্যান্ড তার বাহুর মাংসপেশির সাথে বায়োনিক হাত সংস্থাপন করান। এটি মস্তিষ্ক থেকে পেশিতে আসা সংকেত কাজে লাগিয়ে নড়াচড়া করে থাকে। মিঃ অকল্যান্ড তার নতুন হাত নিয়ে অসম্ভব আনন্দিত। তিনি একে ৩৬০ ডিগ্রী কোণে ঘুরাতে পারেন। এর সাহায্যে কিবোর্ড প্রেস করা, মাউস চালানো, নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজ সম্পাদন এমনকি রান্নাবান্নাও করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের সমস্ত দর্শক একদম নিশ্চুপ এবং হতবাক হয়ে নাইজেল অকল্যান্ডের কথা শুনছিলেন।

বি-বায়োনিক নির্মিত এই হাতটি রিচার্জেবল ব্যাটারিতে চলে। প্রতি রাতে একে পুরোপুরি চার্জ দিয়ে পরের দিন পুরোটা সময় ডিভাইসটি ব্যবহার করা যায়। মিঃ অকল্যান্ড তার নতুন হাতকে শারীরিক মুক্তির পাশাপাশি মানসিক মুক্তি এবং বড় ধরনের এক পুরস্কার হিসেবে অভিহিত করেছেন।

যেখানে বেশিরভাগ মানুষের নিকটই প্রযুক্তি আসে ল্যাপটপ, ট্যাবলেট বা স্মার্টফোন হিসেবে, সেখানে অকল্যান্ডের কাছে প্রযুক্তি এখন সরাসরি তার জীবনেরই অবিচ্ছেদ্য অংশ। নিচের ভিডিওতে নিজের চোখেই দেখুন সেই বায়োনিক হাত দিয়ে কীভাবে কাজ করেন নাইজেল অকল্যান্ড।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 4,969 other subscribers

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.