কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কি ও এর সুবিধা জানুন

সময়ের সাথে সাথে কন্টাক্টলেস বা স্পর্শবিহীন ক্রেডিট কার্ড বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এই পোস্টে জানবেন কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কি, কিভাবে কাজ করে ও এর সুবিধা সম্পর্কে বিস্তারিত।

কন্টাক্টলেস পেমেন্ট কি?

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কি জানতে হলে আগে কন্টাক্টলেস পেমেন্ট বিষয়টি বুঝতে হবে। কন্টাক্টলেস পেমেন্ট হলো ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে টাচ-বিহীন পেমেন্ট ব্যবস্থা। রেডিও ফ্রেকুয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন (RFID) ও নিয়ার-ফিল্ড কমিউনিকেশন (NFC) ব্যবহার করে কন্টাক্টলেস পেমেন্ট প্রসেস করা হয়।

কার্ড টার্মিনালে কার্ড ইনসার্ট করা কিংবা সোয়াইপ করার একটি বিকল্প উপায় হলো কন্টাক্টলেস পেমেন্ট। এটি বেশ দ্রুত পেমেন্ট মেথড হওয়ার পাশাপাশি বেশ সহজে কাজ করে। এছাড়া এটি ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার জন্যও বেশ কাজের।

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কি?

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড মূলত কন্টাক্টলেস পেমেন্ট প্রযুক্তিসমূহ ব্যবহার করে কার্ড দ্বারা পেমেন্টকে বেশ সহজ করে তোলে। এই কার্ড শর্ট-রেঞ্জ ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক ওয়েভ এর মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ড এর তথ্য পয়েন্ট-অফ-সেল সিস্টেমে ট্রান্সফার করার মাধ্যমে লেনদেন সম্পাদন করে।

বেশিরভাগ ক্রেডিট কার্ডে বিল্ট-ইন চিপ থাকলেও এই চিপ কাজ করতে তা নির্দিষ্ট ডিভাইসে প্রবেশ করাতে হয়। পেমেন্টের জন্য কার্ড ইনসার্ট করার প্রয়োজন নেই কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ডের ক্ষেত্রে। পস মেশিনের উপর শুধুমাত্র কার্ড একবার ধরেই পেমেন্ট করা যাবে এসব কার্ডের মাধ্যমে।

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কিভাবে কাজ করে?

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড এর মধ্যে একটি ছোট এমবেডেড চিপ থাকে, যা থেকে ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গ নির্গত হয়। কন্টাক্টলেস সাপোর্টেড পেমেন্ট টার্মিনালের কয়েক ইঞ্চির মধ্যে কার্ড আনলে পেমেন্ট এর তথ্য ট্রান্সফার হয়ে যায়।

এই পদ্ধতিতে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে ট্রানজেকশন সম্পন্ন করতে এক বা দুই সেকেন্ড সময় লাগতে পারে। তাই খুব দ্রুত কার্ড নিয়ে ফেললে লেনদেনে সমস্যা হতে পারে। পেমেন্ট সম্পন্ন হয়েছে তা বুঝতে পারেন পেমেন্ট টার্মিনাল এর বিপ সাউন্ড, গ্রিন চেকমার্ক বা গ্রিন লাইটের মাধ্যমে।

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড চেনার উপায়

ক্রেডিট কার্ডের ফ্রন্ট বা ব্যাকে কন্টাক্টলেস ইন্ডিকেটর সিম্বল থাকে। এই কন্টাক্টলেস সিম্বল দেখতে অনেকটা ওয়াইফাই সিম্বল এর মত। একই সিম্বল আবার পয়েন্ট-অফ সেল বা কার্ড টার্মিনাল এর স্ক্রিনেও দেখতে পাবেন, যা দ্বারা কন্টাক্টলেস কার্ড সাপোর্ট এর ব্যাপারটি নির্দেশ করা হয়। একটি নির্দিষ্ট সীমার মধ্যে পেমেন্ট এমাউন্ট হলে কোনো পিন কোড কিংবা ওটিপি দরকার হয়না। যেমন বাংলাদেশে কনটাক্টলেস কার্ডের ক্ষেত্রে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত কোনো পিন বা ওটিপি দরকার হবেনা।

নির্দিষ্ট সীমার বাইরে লেনদেন করতে গেলে ক্রেডিট কার্ডের চিপের মত কন্টাক্টলেস কার্ড এর চিপ এর লেনদেনে একটি ওয়ান টাইম কোড বা ওটিপি তৈরী হয়। পেমেন্ট নিশ্চিত করতে হয় এই কোডের মাধ্যমে। অথবা, তখন লেনদেন নিশ্চিত করার জন্য আপনার কার্ডের পিন পস মেশিনে প্রবেশ করাতে হবে।

অর্থাৎ আপনার কন্টাক্টলেস কার্ড হারিয়ে গেলে বা চুরি হয়ে গেলেও ওটিপি কোড ছাড়া একটি নির্দিষ্ট এমাউন্টের পেমেন্ট করা সম্ভব হবে। তাই এই কার্ডের যেমন সুবিধা আছে তেমন সতর্কতাও দরকার।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড এর সুবিধা

দ্রুততা

সাধারণ ক্রেডিট কার্ড টার্মিনালে সোয়াইপ করে তার পেমেন্ট সম্পন্ন হওয়া কিছুটা হলেও লম্বা প্রসেস। কিন্তু কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড এই ধারণাকে সম্পূর্ণ বদলে দিবে। কার্ড ইনসার্ট করার বদলে শুধুমাত্র রিডার এর উপর ধরার মাধ্যমে পেমেন্ট সম্পন্ন করা যায় কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে।

সংস্পর্শ বিহীন

কোভিড-১৯ প্যান্ডেমিক এর কারণে একে অপরের সংস্পর্শ থেকে দূরে থাকা একটি বিষয়ে পরিণত হয়েছে। সাধারণ ক্রেডিট কার্ডে ব্যবহৃত টার্মিনালে পেমেন্টের ক্ষেত্রে সংস্পর্শের প্রয়োজন হয়। অন্যদিকে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ডের ক্ষেত্রে এই সমস্যা নেই, যার কারণে এটি অনেকটা নিরাপদ।

👉 ক্রেডিট কার্ড কি ও কিভাবে পাবেন

চিপের স্থায়িত্ব

ম্যাগনেটিক স্ট্রাইপ ও ইএমভি চিপগুলো সময়ের সাথে সাথে ব্যবহারের কারণে পুরোনো হয়ে যায় ও একটা সময় সমস্যা করে। তবে কন্টাক্টলেস চিপ এর ক্ষেত্রে এই ধরণের কোনো সমস্যা নেই। কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ডের চিপ লম্বা সময় ধরে অক্ষত থাকে ও ব্যবহার করা যায়।

ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে, বিশেষ করে ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়ার দেশগুলোতে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ডের জনপ্রিয়তা বেড়েছে। যার ফলে একই কার্ড দ্বারা বিশ্বব্যাপী একাধিক ভেন্ডরকে পেমেন্ট করা যাবে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে।

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কি ও এর সুবিধা জানুন

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড কি নিরাপদ?

সকল পেমেন্ট মেথডের মধ্যে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড বর্তমানে অন্যতম নিরাপদ। এতে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থের পেমেন্ট করার জন্য পিন কোড দেওয়ার দরকার নেই। ফলে কেউ আপনার কার্ডের পিন দেখতে পারবেনা। আবার আপনার কার্ড যদি হারিয়ে যায় তাহলে যে সেটি হাতে পাবে সে কিন্তু ওই কার্ড দিয়ে সহজেই ৩০০০ টাকার পেমেন্ট করতে পারবে। সুতরাং এটা একই সময় সুবিধাজনক এবং এর ঝুঁকিও আছে।

ক্রেডিট কার্ড দ্বারা পেমেন্ট করার পর গ্রাহকের কাছে একটি এসএমএস চলে যাবে যে তার কার্ডে লেনদেন হয়েছে। কার্ড ইস্যুকারী ব্যাংক প্রতিদিনের কন্টাক্টলেস পেমেন্টের সীমা নির্ধারণ করতে পারবে।

কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড দ্বারা পেমেন্টে কোনো ধরণের ফিজিক্যাল কন্টাক্ট এর দরকার নেই। এর ফলে বর্তমানে চলমান বিভিন্ন স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সমস্যা থেকে কিছুটা হলেও নিরাপদ থাকা যায়। সহজভাবে বলতে গেলে চিরাচরিত ক্রেডিট কার্ডের চেয়ে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড অধিক নিরাপদ।

বাংলাদেশে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড

আমাদের দেশেও কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড এর প্রচলন রয়েছে। অনেক ব্যাংক বর্তমানে কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড প্রদান করে যাচ্ছে। ২০২১ সালের তথ্যমতে, বাংলাদেশে ইতিমধ্যে ৪.৫লক্ষ কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড রয়েছে। এই সংখ্যা বার্ষিক ৭০% হারে বাড়ছে। দেশজুড়ে প্রায় ৪২হাজার পয়েন্ট-অফ-সেল টার্মিনালে এই কার্ডসমূহ ব্যবহার করা যাবে।

বাংলাদেশে বর্তমানে অনেক ব্যাংক কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড প্রদান করে, যেমনঃ ইবিএল, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, ব্রাক ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ইত্যাদি।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 7,269 other subscribers

[★★] প্ৰযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করতে চান? এক্ষুণি একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! techbaaj.com ভিজিট করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন। হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.