বিদেশ থেকে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নে পাঠানো টাকা সরাসরি বিকাশে তোলা যাবে

By -

BKash-Logo

বিদেশ থেকে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নের মাধ্যমে পাঠানো টাকা এখন বাংলাদেশে ঘরে বসেই বিকাশ একাউন্টে তোলা সম্ভব হবে। মাস্টারকার্ড, ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন, ব্র্যাক ব্যাংক ও বিকাশ যৌথভাবে এই সেবা চালু করেছে। প্রবাসী বাংলাদেশিরা এই পদ্ধতিতে খুব সহজেই দেশে স্বজনদের নিকট বিকাশে টাকা পাঠাতে পারবেন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,496 other subscribers

wetern union to bkash via mastercard

বিদেশ থেকে এই পদ্ধতিতে বিকাশে টাকা পাঠানো  ও তোলার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে হবেঃ

১. প্রথমেই ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নের নির্ধারিত এজেন্টের কাছে গিয়ে একটি ফরমে বাংলাদেশে অবস্থানরত প্রাপকের নাম ও ঠিকানা লিখতে হবে। তারপর নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ জমা দিলে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নের ঐ এজেন্ট ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নের বিশেষ রেফারেন্স নম্বর (এমটিসিএন) প্রবাসীকে দেবেন। অর্থ লেনদেনের জন্য ব্যবহৃত ১০ সংখ্যার এই নির্দিষ্ট নম্বরটি “এমটিসিএন” নামে পরিচিত। এই এমটিসিএন নম্বর ও পাঠানো টাকার পরিমাণ দেশে থাকা প্রাপককে জানাতে হবে।

২. দেশে অবস্থানরত প্রাপক তার মোবাইলে বিকাশ একাউন্টে প্রবেশ করার জন্য মোবাইলে *২৪৭# নম্বরে ডায়াল করবেন। এখন যে বিকাশ মেন্যু আসবে, সেখান থেকে Remittance (রেমিট্যান্স) এ প্রবেশ করতে হবে। তাহলে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন অপশন পাওয়া যাবে। ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নে প্রবেশ করে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নের সেই রেফারেন্স নম্বর বা এমটিসিএন প্রদান করতে হবে। এরপর পাঠানো টাকার পরিমাণ সংখ্যায় লিখে এন্টার/সেন্ড করতে হবে। সবশেষে বিকাশ একাউন্টের পিন নম্বর প্রবেশ করে সেন্ড করতে হবে। কিছুক্ষণের মধ্যেই মোবাইলে বিকাশে টাকা জমা হওয়া সম্পর্কিত মেসেজ আসবে।

পুরো প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হতে মাস্টার কার্ড, ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন ও বিকাশের প্রযুক্তি ব্যবহৃত হবে।

এই পদ্ধতিতে একজন গ্রাহক প্রত্যেকবার সর্বোচ্চ ৩৫ হাজার টাকা পাঠাতে/তুলতে পারবেন। এক দিনে সর্বোচ্চ ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা তোলা/পাঠানো যাবে। একজন দিনে ৫ বার লেনদেন করতে পারবেন। মাসে ২০ বার টাকা তোলা/পাঠানো যাবে। এক মাসে সর্বোচ্চ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা তোলা/পাঠানো যাবে। আরও জানতে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ নম্বরে অথবা +৮৮০২৮৩৩১৪৬৯ নম্বরে সকাল ৮:৩০ থেকে রাত ১০:০০ টার মধ্যে ফোন করুন।

 

তথ্যসূত্রঃ বিকাশ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, প্রথম আলো

 

Comments

Leave a Reply