ব্যবহারকারীদের ‘মানুষ’ মনে করেনি ফেসবুক!

By -

Facebook-dislikeফেসবুকের রিসার্স টিম সম্পর্কে একে একে বাকরুদ্ধ করার মত সব তথ্য বের হয়ে আসছে। কয়েকদিন আগে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটটির ‘ইমোশন ম্যানিপুলেশন’ গবেষণা নিয়ে বিশ্বব্যাপী আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। প্রায় ৭ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর নিউজফিড পরিবর্তন করে তাদের মানসিকভাবে প্রভাবিত করার ঐ নিরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর প্রথম দিকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও ভুল হয়েছে বলে না মানলেও শেষ পর্যন্ত কোম্পানিটির সিওও (চিফ অপারেটিং অফিসার) শেরিল স্যান্ডবার্গ স্বীকার করেছেন যে, ঐ এক্সপেরিমেন্টের সময় ইউজারদের সাথে যোগাযোগ করার দরকার ছিল।

কিন্তু এখানেই শেষ নয়। সংবাদ সংস্থা ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানাচ্ছে আরও চমকে দেয়ার মত খবর। সংস্থাটি লিখছে, ফেসবুকে ব্যবহারকারীদের অগোচরে তাদের নিয়ে এ ধরণের মানসিক গবেষণা/ পর্যবেক্ষণ/ এক্সপেরিমেন্ট আসলে বহুবার ঘটেছে। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের সুত্রানুযায়ী, ফেসবুক তাদের ইউজারদের ‘ইঁদুর’ বা ‘গিনিপিগ’ বানিয়ে গোপনে গোপনে শত শত এক্সপেরিমেন্ট চালিয়েছে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,213 other subscribers

সংবাদ সংস্থাটি জানাচ্ছে, বছর দুয়েক আগে হাজার হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারীকে সাইটটি আইডেন্টিটি ভেরিফিকেশনের জন্য মেসেজ পাঠায়। আইডি ভেরিফাই না করা পর্যন্ত সেসব ফেসবুক ইউজারদের লগইন করতে দেয়া হয়নি। ফেসবুক তাদেরকে ফেইক আইডি বা রোবট বলে চিহ্নিত করে এবং বলে যে, নিজেদেরকে আসল ব্যবহারকারী / মানুষ বলে প্রমাণ না করা পর্যন্ত সাইটে সাইন-ইন করা যাবেনা। মূলতঃ ফেসবুক জানত যে এসব ইউজারের আইডিতে আসলে কোন সমস্যা নেই। স্রেফ সার্ভারের নিরাপত্তাজনিত প্রোগ্রামের ক্ষমতা পরীক্ষা করার জন্যই ব্যবহারকারীদের এভাবে হয়রানি করেছিল ফেসবুক।

ফেসবুকের ডেটা সাইন্টিস্ট গ্রুপের সদস্যরা যেকোনো সময় যে কারো ওপর এক্সপেরিমেন্ট চালানোর ক্ষমতা রাখত। বর্তমানে এই নীতিতে পরিবর্তন আনার কথা ভাবছে ফেসবুক।

আপনি কি কখনো আইডেন্টিটি ভেরিফিকেশনের সমস্যায় পড়েছিলেন? কে জানে হয়ত আপনার উপরও পরীক্ষা চালিয়েছে ফেসবুক!

প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

 
Advertisements

Comments

Leave a Reply