এইচপি ল্যাপটপে ক্ষতিকর প্রোগ্রাম!

By -

সুইজারল্যান্ডের একটি তথ্যপ্রযুক্তি নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান মডজিরো তাদের সাম্প্রতিক এক ব্লগ পোস্টে লিখেছে, এইচপি নির্মিত বেশ কিছু মডেলের ল্যাপটপে কি-লগার (ক্ষতিকর প্রোগ্রাম) ইনস্টল করা আছে। এইচপির দুই ডজনের বেশি মডেলের ল্যাপটপের অডিও ড্রাইভারে এমন কিছু বৈশিষ্ট্য পাওয়া গেছে, যেগুলো কম্পিউটারের প্রতিটি কি-প্রেস সংরক্ষণ করে রাখে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,460 other subscribers

ফলে ব্যবহারকারীদের ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ডও সেইভ করে রাখছে এই অডিও ড্রাইভার, যা পিসিতে সংরক্ষিত হয়ে থাকে এবং ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার জন্য মারাত্নক হুমকি হতে পারে।

যেসব এইচপি ল্যাপটপ মডেল এই সমস্যায় আক্রান্ত, মডজিরো তাদের ব্লগ পোস্টে তার একটি লিস্ট প্রকাশ করেছে। পিসিগুলো হচ্ছেঃ

  • HP EliteBook 820 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 828 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 840 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 848 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 850 G3 Notebook PC
  • HP ProBook 640 G2 Notebook PC
  • HP ProBook 650 G2 Notebook PC
  • HP ProBook 645 G2 Notebook PC
  • HP ProBook 655 G2 Notebook PC
  • HP ProBook 450 G3 Notebook PC
  • HP ProBook 430 G3 Notebook PC
  • HP ProBook 440 G3 Notebook PC
  • HP ProBook 446 G3 Notebook PC
  • HP ProBook 470 G3 Notebook PC
  • HP ProBook 455 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 725 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 745 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 755 G3 Notebook PC
  • HP EliteBook 1030 G1 Notebook PC
  • HP ZBook 15u G3 Mobile Workstation
  • HP Elite x2 1012 G1 Tablet
  • HP Elite x2 1012 G1 with Travel Keyboard
  • HP Elite x2 1012 G1 Advanced Keyboard
  • HP EliteBook Folio 1040 G3 Notebook PC
  • HP ZBook 17 G3 Mobile Workstation
  • HP ZBook 15 G3 Mobile Workstation
  • HP ZBook Studio G3 Mobile Workstation
  • HP EliteBook Folio G1 Notebook PC

কোনেক্সান্ট কোম্পানির তৈরি অডিও ড্রাইভারে এই ত্রুটি পাওয়া গেছে। এটি মূলত ২০১৫ সাল থেকে বাজারজাতকৃত নির্দিষ্ট কিছু এইচপি ল্যাপটপের সাথে চলে এসেছে। ড্রাইভার কর্তৃক রেকর্ডকৃত কি-প্রেসের লগ ফাইলগুলো প্রতিবার ল্যাপটপ বুট করার সাথে সাথে মুছে যায়। তারপরেও প্লেইন-টেক্সটে পাসওয়ার্ড, মেসেজ, ডেবিট-ক্রেডিট কার্ডের তথ্য প্রভৃতি সেইভ করা থাকলে ঝুঁকি রয়েই যায়।

আপনার এইচপি ল্যাপটপে উপরোক্ত ক্ষতিকর প্রোগ্রাম ইনস্টল করা আছে কিনা তা জানতে সিস্টেম ড্রাইভের (অর্থাৎ সি ড্রাইভ) উইন্ডোজ ফোল্ডারের মধ্যে সিস্টেম৩২ ফোল্ডার ওপেন করুন (C:\Windows\System32\)। সেখানে MicTray64.exe অথবা MicTray.exe নামের কোনো ফাইল আছে কিনা খুঁজে দেখুন। যদি পাওয়া যায়, তাহলে মডজিরোর পরামর্শ হচ্ছে, সেই ফাইলটি (MicTray64.exe অথবা MicTray.exe) মুছে ফেলা অথবা রিনেইম করা, যাতে এটি আর কাজ করতে না পারে। যদিও এতে দুয়েকটি স্পেশাল ফাংশন কি কাজ করা বন্ধ করতে পারে।

এরপর পিসির C:\Users\Public\ (অর্থাৎ সি ড্রাইভের ইউজারস > পাবলিক ফোল্ডার) ওপেন করে দেখুন সেখানে MicTray.log নামের কোনো ফাইল আছে কিনা। এটাতেই আপনার সব কি-প্রেস রেকর্ড করা আছে। সেই ফাইলটিও ডিলিট করে ফেলুন।

এইচপি এই ত্রুটির কথা স্বীকার করেছে এবং বলেছে ড্রাইভার আপডেট দিয়ে শীঘ্রই এটা সমাধান করবে কোম্পানিটি। সেক্ষেত্রে এইচপির ওয়েবসাইট ভিজিট করে অথবা পিসির আপডেট চেক করে অডিও ড্রাইভার আপডেট করে নিতে হবে।

প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

 

Comments

Leave a Reply