মোবাইলের ডাটা খরচ কমানোর উপায়

By -

অনেকেই এরকম অভিযোগ করে থাকেন যে, স্মার্টফোনে মোবাইল ডেটা চালু করলেই একাউন্টের ব্যালেন্স হাওয়া হয়ে যায়। যারা বিভিন্ন ছোটখাটো মেগাবাইট প্যাকেজ কিনে চালান, তারা অনেক সময় এমবি ব্যালেন্স হারিয়ে মূল একাউন্ট থেকে টাকাপয়সা কেটে জিরো ব্যালেন্সের মুখোমুখি হন শুধুমাত্র ফোনের লাগামহীন মোবাইল ডেটা ব্যবহারের কারণে। কিন্তু, কয়েকটি কৌশল অবলম্বন করলে সহজেই এরকম পরিস্থিতি এড়িয়ে চলতে পারেন। চলুন জেনে নিই অত্যন্ত কার্যকর কিছু টিপস যা আপনার মোবাইল ডেটা সাশ্রয় করবে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,261 other subscribers

 

ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ্লিকেশন রিফ্রেশ বন্ধ করুন

যখন ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস চালু থাকে, অ্যাপগুলো নির্দিষ্ট সময় পরপর কাজ করতেই থাকে। এমন সব অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে ফেসবুক, ইমেইল, আবহাওয়া ইত্যাদি অনেক বেশি ডেটা খরচ করে। ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ রিফ্রেশ বন্ধ করতে নিচের উপায় অনুসরণ করুন।

আইফোনে ওপেন করুনঃ Settings > General > Background App Refresh

অ্যান্ড্রয়েডের জন্য ওপেন করুনঃ Settings > Data Usage > Restrict App Background Data (আলাদা আলাদা ব্র্যান্ডের এন্ড্রয়েড ফোনে এই মেন্যুর ভিন্ন ভিন্ন লোকেশন থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটার অপশনটি খুঁজে বের করুন)।

উপরের মেন্যুগুলোতে গিয়ে আপনি চাইলে সকল অ্যাপ বা যেকোনো নির্দিষ্ট অ্যাপের ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা ব্যবহার বন্ধ করতে পারেন।

অ্যাপ্লিকেশন অটো আপডেট বন্ধ করুন

ফোনের বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন প্রায়ই স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট হয়। অটো অ্যাপ আপডেট বন্ধ করতে নিচের নিয়ম অনুসরণ করুন।

আইফোনের জন্যঃ Settings > iTunes & App Stores > Use Cellular Data অপশন বন্ধ করুন।

অ্যান্ড্রয়েডের জন্যঃ গুগল প্লে স্টোর ওপেন করে এর মেন্যুতে Settings > General > Auto Update Apps > Auto Update Apps over Wi-Fi Only নির্বাচন করুন। অথবা অটো আপডেট বন্ধও করতে পারেন এখান থেকে।

Wi-Fi Assist বন্ধ করুন

Wi-Fi Assist চালু থাকলে ওয়াইফাই সিগন্যাল খারাপ হলে ফোন আপনার মোবাইল ডাটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যবহার করতে শুরু করে। এই নেটওয়ার্ক সুইচিং বন্ধ করুন।

আইফোনের জন্যঃ Settings> Cellular অপশন থেকে Wi-Fi Assist বন্ধ করুন।

এন্ড্রয়েডে WLAN অর্থাৎ ওয়াইফাই সেটিংসে গিয়ে Switch between data and WLAN অপশন বন্ধ করুন। এর ফলে আপনার ফোনে যখন ওয়াইফাই এবং মোবাইল ডেটা উভয় সংযুক্ত থাকবে, তখন ফোন শুধুমাত্র ওয়াইফাই ব্যবহার করবে। যদিও আপনি চাইলে মোবাইল ডেটা বন্ধ করে ওয়াইফাই চালু রাখতে পারেন।

ক্লাউড স্টোরেজ সিনক্রোনাইজেশন নিয়ন্ত্রণ করুন

গুগল ড্রাইভ, ওয়ানড্রাইভ, আইক্লাউড ড্রাইভ, গুগল ফটোস প্রভৃতি ক্লাউড স্টোরেজ সেবা ব্যবহারের জন্য শুধুমাত্র ওয়াইফাই নির্দিষ্ট করে দিন। অন্যথায় মোবাইল ডেটা ব্যবহার করে এসব সার্ভিস সিনক্রোনাইজ করলে প্রচুর মোবাইল ডেটা খরচ হবে।

কাজ শেষে সেলুলার ডাটা সম্পূর্ণ বন্ধ করুন

কাজের পর মোবাইল ডাটা বন্ধ করে রাখতে পারেন। জরুরি কোনো ইমেইল বা এ ধরনের নোটিফিকেশনের অপেক্ষায় না থাকলে মোবাইল ডেটা বন্ধ রাখুন। এতে ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপসও ডাটা ব্যবহার করতে পারবেনা।

আশা করি এই টিপসগুলো আপনার ফোনের ইন্টারনেট বিল কমাতে সাহায্য করবে। আপনার যদি কোনো পরামর্শ থাকে, তবে কমেন্টে জানান। ধন্যবাদ।

বোনাস

>> মোবাইলের ব্যাটারি ও চার্জ নিয়ে প্রচলিত ভুল ধারণাগুলো জেনে নিন

>>  প্রতিদিন কম্পিউটার শাট ডাউন করা উচিত নাকি সবসময় চালুই রাখবেন?

>>  এন্ড্রয়েড ফোনে যে অ্যাপগুলো আপনার অবশ্যই দরকার

প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে ভিজিট করুন www.banglatech24.com সাইট। নতুন পোস্টের নোটিফিকেশন ইমেইলে পেতে এই লিংকে গিয়ে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

 

Comments

Leave a Reply