উইন্ডোজ এক্সপির সাপোর্ট বন্ধ হলে বিশ্বের ৯৫% এটিএম বুথ নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়বে

By -

Windows_XP-000চলতি বছর ৮ এপ্রিল উইন্ডোজ এক্সপির জন্য সকল প্রকার সিক্যুরিটি আপডেট বন্ধ করে দেয়ার কথা বলেছিল মাইক্রোসফট। ব্যবহারকারীদেরকে উইন্ডোজের নতুন ভার্সনসমূহে আপগ্রেড করতে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রেডমন্ড। কিন্তু শেষ পর্যন্ত উইন্ডোজ এক্সপির এই নিরাপত্তা আপডেট সঙ্ক্রান্ত সাপোর্টের মেয়াদ আরও ১৫ মাস বাড়িয়েছে মাইক্রোসফট।

নতুন আপডেট শিডিউল অনুযায়ী ২০১৫ সালের ১৪ জুলাই পর্যন্ত তারা উইন্ডোজ এক্সপির জন্য নিরাপত্তা সঙ্ক্রান্ত আপডেট ইস্যু করবে। অর্থাৎ, আগামী বছরের মধ্য জুলাই পর্যন্ত উইন্ডোজ এক্সপির জন্য মাইক্রোসফটের অফিসিয়াল এন্টিভাইরাস, এন্টিম্যালওয়্যার ও সিগনেচার আপডেট উপলভ্য থাকবে।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join 1,120 other subscribers

বিশেষজ্ঞদের মতে, বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ৯৫ শতাংশ এটিএম বুথেই উইন্ডোজ এক্সপি চালিত কম্পিউটার ব্যবহৃত হচ্ছে। এসব পিসির হার্ডওয়্যারও বেশ পুরাতন যার ফলে এগুলো আপগ্রেড না করে নতুন উইন্ডোজ দেয়াটাও কঠিন। উইন্ডোজ এক্সপির সাপোর্ট বন্ধ হয়ে গেলে এটিএম মেশিন পরিচালনায় ব্যবহৃত এসব পিসিতে আর কোনো নিরাপত্তা আপডেট দেয়া যাবেনা। ফলে সেগুলো হ্যাকারদের আক্রমণের সহজ লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হবে।

এটিএম সফটওয়্যার প্রোভাইডার ‘কাল’ এর সিইও অরবিন্দ কোরালার মতে, ২০১৪ সালের এপ্রিল মাস নাগাদ যুক্তরাষ্ট্রে থাকা এটিএম বুথসমূহের মধ্যে সর্বোচ্চ ১৫% এটিএম বুথে উইন্ডোজ ৭ ব্যবহৃত (অথবা ব্যবহারের উপযোগী) হতে পারে। বাকীগুলো সেই পুরাতন আমলেই পড়ে থাকবে। সুতরাং এটি নিঃসন্দেহে একটি বড় সমস্যার ইঙ্গিত দিচ্ছে।

মিঃ কোরালা বলেন, উইন্ডোজ এক্সপি ছাড়ার জন্য এটিএমের জগত এখনও প্রস্তুত নয়, এবং এটা অস্বাভাবিকও না। এটিএম মেশিনগুলো পিসির চেয়ে ধীর গতিতে আগায়।

এখন থেকে ১৩ বছর আগে উইন্ডোজ এক্সপি প্রথম প্রকাশিত হয়। ২০০১ সালের ২৫ অক্টোবর ওএসটি লঞ্চ করে মাইক্রোসফট। এরপর ২০০৭ সালে উইন্ডোজ ভিসতা, ২০০৯এ উইন্ডোজ ৭, ২০১২তে উইন্ডোজ ৮ এবং ২০১৩ সালে উইন্ডোজ ৮.১ বাজারে আনে রেডমন্ড। আগামী বছর উইন্ডোজ ৯ লঞ্চ করা হবে বলে জানা যাচ্ছে।

আপনি কি কখনো এটিএম বুথের কম্পিউটারে চালিত উইন্ডোজ দেখেছেন? সেটি কোন অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করছিল?

Comments

Leave a Reply